চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নির্বাচনী ঢোল বাদন ও কিছু জরুরী কথা

সকল সন্দেহের অবসান ঘটিয়ে অবশেষে নির্বাচনী ঢোল বেশ জোরে সোরেই বাজতে শুরু করেছে। গত ১০ নভেম্বর সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত করে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করার ফলেই দেশব্যাপী নির্বাচনী ঝড় বেশ জোরেসোরেই বইতে শুরু করেছে। এখন সবাই আলাপ করছেন তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। যদিও এখন পর্যন্ত লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড গঠনে নির্বাচন কমিশন বা সরকার আজও এগিয়ে আসেননি। নির্বাচন কমিশন এই নির্বাচনকে আরও বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক করে তুলতে…

বাহাত্তরের সংবিধান পুনরুজ্জীবনে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হোন

পাঁচ বছর পর পর আমাদের দেশে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে সংবিধানের বিধান অনুযায়ী- যদিও সর্বদা তা যে সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক হয় তা নয়। বিশেষ করে চিন্তা করা যায় ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত প্রায় প্রার্থী বিহীন এবং নজিরবিহীন নির্বাচনটির কথা। এখন বিষয়টি অতীত হয়ে গেলেও সেই অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে বিরোধী দল ও জোটগুলি এবারকার নির্বাচন ও নানাদিক থেকে আশঙ্কামুক্ত না হওয়া সত্বেও সবাই অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়াতে দেশব্যাপী একটি স্বস্তির নি:শ্বাস পড়েছে। তাই এবার অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে প্রায় ১০ বছর পর।…

নির্বাচনী আইন: প্রার্থী-ভোটার, সেদিন ও আজ

বাংলাদেশের জনগণ ও সবগুলো বিরোধীদলের মাথায় যে বিষয়টি ঘুরপাক খাচ্ছে তা হলো- আসন্ন সংসদীয় নির্বাচনটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে কিনা? সেই ভাবনাটি। কারণ সকলেরই উক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে। ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে- যেমনটি খোদ সামরিক শাসনামলের প্রহসনের নির্বাচনগুলিতেও ঘটেনি। অর্ধেকের বেশি আসনে বিনা প্রতিদ্বদ্বিতায় নির্বাচন কোনদিন কেউ দেখেনি শুনিনি। এক কথায় বলতে গেলে সংসদীয় গণতন্ত্রে ফিরে আসার পর যেই না হঠাৎ করে তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতি উঠিয়ে দেওয়া হলো জনমনে সংশয়ের উৎপত্তি তখন থেকেই। আর তার চুড়ান্ত রূপটিই যেন ফুটে উঠেছিল…

রাজনৈতিক সংস্কৃতি ও বাংলাদেশ

গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা ও বাঙালী জাতীয়তাবাদ হয়ে উঠেছিল বিপ্লবী বাঙালি জাতির সম্মিলিত, প্রত্যয় দীপ্ত কণ্ঠস্বর। পঞ্চাশ ও ষাটের দশকে এই প্রত্যয়গুলি স্থান করে নিয়েছিল কোটি কোটি বাঙালির হৃদয়ে সগৌরবে। তবে পঞ্চাশের দশকটি ছিল ঐ প্রত্যয়গুলির উন্মেষকাল। বিকশিত হয় ষাটের দশকে অপ্রতিরোধ্য শক্তি নিয়ে। অতঃপর ১৯৭১ এ এসে তা আমাদের সুমহান সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধেরও মূল রণধ্বনিতে পরিণত হয় এবং ধ্বনিত প্রতিধ্বনিত হতে থাকে লাখো লাখো অস্ত্রধারী যুদ্ধরত মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠেও তাদের শত্রু নিধনের মূল প্রেরণা হিসেবে। পাকিস্তান আমলে…

সড়কপথে বেশুমার হত্যালীলা নিত্যদিন প্রতিদিন!

“নিরাপদ সড়ক চাই” দাবিতে শিক্ষার্থীরা গড়ে তুললো তাদের দুই সতীর্থের আকস্মিক ও নির্মম হত্যার প্রতিবাদে। আকস্মিকভাবে গড়ে ওঠা স্বতঃস্ফূর্ত এই আন্দোলনে সারা দেশে অংশগ্রহণকারীদের সংখ্যা হিসেবে আনলে কমপক্ষে ১০ লাখ মানুষ পথে নেমেছিলেন ঐ দাবির ভিত্তিতে গড়ে তোলা আন্দোলনের সাথে সক্রিয় সংহতি জানাতে। চলমান দশকের হয়তো বা এটাই বিবেচিত হবে মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ও আইনের শাসনের দাবিতে সর্বাধিক গণমুখী আন্দোলন। ঐ তরুণ-তরুণীরাই এ দেশের আগামী দিনের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতীক-এমন একটা সুখকর অনুভূতি প্রকাশ করেছিলেন অনেকেই। “নিরাপদ সড়ক চাই” দাবিতে…

ভয়াবহ আদর্শিক শূন্যতা: জোট ও ভোট

একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচন দ্রুতই এগিয়ে আসছে। মোটামুটিভাবে আগামী ডিসেম্বরের তৃতীয় বা চতুর্থ সপ্তাহে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এ কথা সরকারি দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর কাদের বলেই দিয়েছেন। অপরদিকে নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী আইন ও বিধি-বিধান সংশোধনের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। আইন মন্ত্রণালয়ও সম্ভবত তাই। এগুলোর প্রতিফলন সংসদের আগামী অধিবেশনেই ঘটবে সম্ভবত। আবার হয়তবা রোববার থেকে শুরু হওয়া অধিবেশনই হবে বর্তমান সংসদের শেষ অভিবেশন। শুধু তাই নয়, সরকারি ঘোষণামতে নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় বা নির্দলীয় সরকার প্রতিষ্ঠার…

দুর্গোৎসবে তারুণ্য

বাঙালি জাবনে ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসবের শেষ নেই-সীমা নেই। সেই বাল্য কালের গ্রাম জীবন থেকেই দেখে আসছি ধর্মীয় উৎসবের প্রাচুর্য্য। যেমন দুর্গোৎসব, জন্মাষ্টমী উৎসব, চৈত্র সংক্রান্তি উৎসব, নববর্ষ উৎসব, রথযাত্রা উৎসব, রাসযাত্রা উৎসব, পৌষ উৎসব, ঈদ উৎসব, বৌদ্ধ পূর্ণিমা উৎসব, বড়দিন উৎসবক প্রভৃতি। কিন্তু কখনোই সকল উৎসব সকল মানুষের চিত্তে সমভাবে অনুরণন তুলতে দেখিনি। আবার কোনো কোনোটা তা করতে বিপুল পরিমাণে সফল হয়েছে। এতে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ বিরাট সংখ্যায় সম্পৃক্ত হয়েছেন। এমনই একটি উৎসব দুর্গোৎসব-যা বাংলাদেশের অন্যতম জাতীয় উৎসবে পরিণত…

আনন্দানুভূতি ও গভীর শঙ্কা নিয়ে দেশের পথে

“ফিরে চল মাটির টানে যে মাটি আঁচল পেতে চেয়ে আছে মুখের পানে....” বিখ্যাত এই গানটির উপরে বর্ণিত কলি কতই না প্রিয় ও আবেগ সঞ্চারিত ! দূরদেশ থেকে স্বদেশে ফেরার প্রাক্কালে এমন কোন বাঙালিকে হয়তো খুঁজেই পাওয়া যাবে না যার মনে ঐ স্তবকটি অনুরণ তোলে না। আটমাস কয়েকদিন অস্ট্রেলিয়ার সিডনী নগরীতে থেকে দেশে ফেরার প্রাক্কালে আমার মনেও অনুরূপ প্রতিক্রিয়ার অনুভব। হয়তো বিমান থেকে নেমে দেশের মাটিতে যখন পা ফেলবো তখন আবার নি:শব্দেই হয়তো গেয়ে উঠবো “ও আমার দেশের মাটি তোমার পরে ঠেকাই মাথা” বাংলা ভাষা, বাংলা সাহিত্য, বাংলার কবি-শিল্পীরা কত অসাধারণ…

বিপ্লবী জননেতা বাদশা ভাইয়ের প্রতি অতল শ্রদ্ধা

গত ৩১ জুলাই বাদশা ভাইয়ের ভাতুষ্পুত্র জয় ফেসবুক মেসেঞ্জারে হঠাৎ একটি আমন্ত্রণপত্র পাঠালো। পড়ে দেখি চার আগস্ট পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাদশা ভাইয়ের স্মরণসভার আয়োজন করা হয়েছে। কিন্তু আমি আছি দূরদেশ অস্ট্রেলিয়ায়। স্মরণসভায় উপস্থিত থাকার আগ্রহও প্রবল। কিন্তু কিভাবে? তাই এই ক্ষুদ্র নিবন্ধের মাধ্যমে হাজির হওয়ার চেষ্টা নিলাম সেই আয়োজনে। বাদশা ভাই আমার চেয়ে বয়সে বড়। তাঁর জন্ম তারিখ ৩০ এপ্রিল ১৯৩০। আমার জন্ম তারিখ ৪ অক্টোবর ১৯৩৩। রাজনীতিতেও তিনি আমার সিনিয়রর। তাঁর জন্ম পাবনা শহরে, আমার জন্ম গ্রামে। পাবনা শহরে স্থায়ী ভাবে চলে আসি…

সিডনির কথামালা (পর্ব: তিন)

অস্ট্রেলিয়ায় ২০১৬ সালের ২ জুলাই অনুষ্ঠিত ফেডারেল নির্বাচনে আগের দিন দেশটির বহুল প্রচারিত ইংরেজী দৈনিকহেডলাইন করে “Political deadlock set to last for weeks”. তাই রাজনৈতিক মহলের হতাশা ও অনিশ্চয়তার মেয়াদ যেন আরও বেড়ে গেল। যদিও শেষ অবধি প্রাপ্ত ফলাফলে দেখা যাচ্ছে বিল সর্টেনেরনেতৃত্বাধীন অষ্ট্রেলিয়ান লেবর পার্টি এই নির্বাচনে ২০১৩ সালের নির্বাচনী ফলাফলের তুলনায় যথেষ্ট ভাল ফল করে অনেক বেশী আসনে (তুলনামূলকভাবে) বিজয় অর্জন করে সরকারী দল লিবারেল ন্যাশনাল এলায়েন্সের ঘরে যেন আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। তাদের মধ্যে কোন্দল এখন তুঙ্গে।নেতৃত্বের…