চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইশতেহার আলোচনা

দিন দিন বাংলাদেশ রাজনীতিতে নির্বাচনী ইশতেহার গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের 'দিন বদলের সনদ' শিরোনামের ইশতেহারটি জনগণের মনোযোগ আকর্ষণ করে। এই সনদের দুটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গীকার হচ্ছে 'একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার' এবং  'ডিজিটাল বাংলাদেশ'। বলা হয়ে থাকে যে এ দুটি অঙ্গীকারের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে ভোটারেরা এতটাই উৎসাহিত হয়েছিল যে আওয়ামী লীগ ভূমিধ্বস বিজয় অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিল। 'দিন বদলের সনদ' ইশতেহারের পর থেকে প্রতিটি রাজনৈতিক দল ইশতেহারের প্রতি বিশেষ মনোযোগী হয়। অনেকগুলো দল বিশেষ করে বিএনপি দশম জাতীয়…

শেখ হাসিনার বিশ্বনেতা হয়ে ওঠা

বিশ্ববিখ্যাত প্রভাবশালী সাময়িকী ফোর্বসের বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ১০০ নারীর মধ্যে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবস্থান ২৬তম। এই তালিকায় শুধু রাজনীতিবিদেরাই নন, রয়েছেন ব্যবসায় পরিচালনা, ফ্যাশন ডিজাইন, স্বাস্থ্য সেবা, ক্রীড়া, অর্থনীতিসহ বহু পেশার নারীরা। তালিকার মধ্যে রাজনীতি ক্যাটাগরিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবস্থান ৬ষ্ঠ। তার আগে ক্রমান্বয়ে রয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে, ৩ মার্কিন নারী বিচারপতি, রানি এলিজাবেথ, এবং ৫ম স্থানে ট্রাম্প কন্যা ইভানকা ট্রাম্প। ৩য় অবস্থানে থাকা…

ডিফিকাল্ট রাজনীতি সহজ হয়ে যাক ৩০ ডিসেম্বর

নির্বাচনকে অনেকে বলে ভোট যুদ্ধ। নির্বাচন আসলে যুদ্ধের মতই একটা বিষয় তবে যুদ্ধ নয়। নির্বাচন হলো নীতি, আদর্শ, কর্মপরিকল্পনার লড়াই। যে দল যত ভাল করে নিজেদের আদর্শ তুলে ধরতে পারবে, দেশের সম্ভাবনার দ্বার উম্মোচন করতে পারবে, সামাজিক, রাষ্ট্রীয় সমস্যাগুলোর মূলে পৌঁছে প্রতিকারের ব্যবস্থার কথা বলতে পারবে সে দল জনগণের কাছে তত বেশি গ্রহণযোগ্য হবে; বেশি ভোট পাবে; সরকার গঠন করবে, পরিচালনা করবে; জনগণের কাছে সময়মত জবাবদিহি করে আবারো ভোট চাইবে। কোন দল পর্যাপ্ত জনমত টানতে না পারলে তার কারণগুলো চিহ্নিত করবে; আবারো নতুন করে দেশ, সমাজ নিয়ে…

সংলাপ উত্তর ত্রাহিদশায় বিএনপি!

২০১৫ সালে আওয়ামী লীগের সরকার পতনের জন্য পেট্রোল বোমা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে আলোচনার মাধ্যমে নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা কী হবে তা নিয়ে সরকারের সঙ্গে সংলাপের দাবি করে আসছিল জামায়াত-বিএনপি’র নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। গণফোরাম, বিকল্পধারা, বাম গণতান্ত্রিক জোটসহ আরও অনেকে সংবিধানে বিধিবদ্ধ নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে সন্তষ্ট নন। তারাও সংবিধান পরিবর্তন করে নির্দলীয় সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনতে চান। দুর্নীতি, ২১ আগস্ট হত্যাকাণ্ড এবং পেট্রোল বোমা সন্ত্রাসের বিচার শুরু হলে জামায়াত-বিএনপি…

ড. কামাল আধ্যাত্মিক না রাজনৈতিক নেতা?

ড. কামাল হোসেন বলেছেন, “নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বা কোনো রাষ্ট্রীয় পদ পাওয়ার কোনো ইচ্ছা আমার নেই।” একটি গণতান্ত্রিক, ধর্মনিরপেক্ষ ও বহুমাত্রিক সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করে যাবেন বলেও জানান ড. কামাল। ২২ অক্টোবর জাতীয় প্রেস ক্লাবে গণফোরামের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। মানুষ রাজনীতি করে রাষ্ট্রীয় পদ লাভ করে রাষ্ট্র বা সরকারের পরিচালনা করার মাধ্যমে দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করার জন্য। এমন কোন রাজনৈতিক নেতা পাওয়া যাবে না যিনি রাষ্ট্রীয় পদ নেননি। এমন কী নেলসন ম্যান্ডেলা পর্যন্ত নির্বাচন করে…

নির্বাচনে অংশ নেয়া ছাড়া বিএনপি’র আর কোন পথ নেই

একাদশ জাতীয় নির্বাচন ঘনিয়ে এসেছে। নির্বাচন কমিশন বলেছে ডিসেম্বরের মধ্যে নির্বাচন হবে; অক্টোবরের পরে তফসিল ঘোষণা। নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন রাজনৈতিক খেলাধুলার খবর পত্রিকার পাতায়, টেলিভিশনের পর্দায় উঠে আসছে প্রতিদিন। জনমনেও সৃষ্টি হয়েছে চঞ্চলতা। কেউ সহিংসতার সম্ভাবনায় উদ্বিগ্ন হচ্ছেন; কেউবা রাজনৈতিক স্থিতির প্রত্যাশা করছেন। বছরের শুরুর দিকে বেসরকারী বিনিয়োগের যে উর্ধগতি দেখা দিয়েছিল সে গতি মন্থর হয়ে এসেছে। ব্যবসায়ীরা নতুন বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ধীরে চলার নীতি গ্রহণ করেছেন। বিশ্ববাজারে ডলার মূল্য বাড়তির দিকে থাকলেও দেশে তা…

ডানপন্থি রাজনীতির সঙ্কট কাটাতে কি নতুন কেউ আসছে?

বাংলাদেশ রাজনীতি উপযুক্ত বিরোধী দলের অভাবে ভারসাম্য হারাচ্ছে। সরকারের কর্মকাণ্ড, নীতি, অব্যবস্থাপনা ইত্যাদির উপযুক্ত সমালোচনা করতে ব্যর্থ হচ্ছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। এদের মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখ করতে হয় বিএনপি, জাতীয় পার্টি, সিপিবি, গণফোরাম, এলডিপি, বিকল্পধারার কথা। বাজেট পরবর্তী সময়ে কোন একটি দলের কাছ থেকে মনে রাখার মতো সমালোচনা পেলাম না। মাদক বিরোধী অভিযান, কোটা সংস্কার আন্দোলন বা এমন অন্যান্য বড় রাজনৈতিক ইস্যুতেও একই অবস্থা দেখতে পাই। বিএনপি তাদের নেতা-নেত্রীর জমি, বাড়ি, সাজা, যুদ্ধাপরাধী রক্ষা ছাড়া গত দশ বছরে অন্য কোন…

বাংলাদেশ বিরোধী শক্তির কফিনে শেষ পেরেক

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার সময়ে সামরিক, কূটনৈতিক সাহায্য সহযোগিতা করেছিল ইন্দিরা গান্ধীর নেতৃত্বাধীন ভারত এবং লিওনিদ ব্রেজনেভের নেতৃত্বাধীন সোভিয়েত ইউনিয়ন। ভারতের সঙ্গে সেই সময় সোভিয়েত ইউনিয়ন সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর ছিল। ভারত সোভিয়েত স্টাইলে কমিউনিজম গ্রহণ না করলেও স্বাধীনতার আগে থেকেই দেশটি সমাজতান্ত্রিক ধ্যান-ধারণায় বিশ্বাসী। তৎকালীন সরকারী দল কংগ্রেস শুরু থেকেই মধ্যবাম ধারার একটি রাজনৈতিক দল। ৪৭ সালে স্বাধীন হবার পর থেকে ভারতে সাধারণের মনে পশ্চিমা সাম্রাজ্যবাদের প্রতি চরম ঘৃণা বিরাজমান ছিল। এসব কারণে ভারতের স্বাভাবিক বন্ধু…

নির্বাচন বছরের অর্থনীতি

স্বাধীনতার অনেক পরে হলেও শুরু হয়েছে স্বাধীনতার চেতনা বাস্তবায়ন। সাম্রাজ্যবাদী এবং পাকিস্তানি আদর্শের অনুসারীরা এখানে দুর্নীতি, সন্ত্রাস, সাম্প্রদায়িকতা আর অনাচারের যে সংস্কৃতি চালু করেছে তা হটিয়ে ধীরে ধীরে এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ। অর্থনৈতিক এবং সামাজিক উন্নয়ন সুচকগুলোর মাপকাঠিতে প্রতিবেশী দেশগুলোকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বানচাল করতে স্বাধীনতা বিরোধীদের সৃষ্ট চরম নৈরাজ্য, হত্যা, ধ্বংস, বিদেশি চাপ সব সামলে নিয়ে মাত্র আট বছরের মধ্যে বাংলাদেশ নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে উঠে এসেছে। সম্প্রতি জাতিসংঘ ঘোষণা…

তারল্য সঙ্কটের যথার্থ সমাধান

বেশ কয়েক বছর ধরে অতিরিক্ত তারল্যের চাপে ভুগছিল বাংলাদেশ। ১৩ সাল থেকে শুরু হওয়া রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা ১৫ সালে এসে স্তিমিত হলেও দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরে আসতে ১৬ সাল পর্যন্ত সময় লাগে। ১৭ সালে এসে বিনিয়োগকারীরা রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা সম্পর্কে নিশ্চিত হন। শুরু হয় তাদের বিনিয়োগ। বেড়ে যায় ঋণের চাহিদা। ঋণের চাহিদা বৃদ্ধিকে একটা সুযোগ হিসেবে গ্রহণ করে বেসরকারী ব্যাংকগুলো। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে অধিক মুনাফা অর্জনের প্রচেষ্টা শুরু হয় সঙ্গে সঙ্গে। খেলাপি ঋণের পরিমাণও বাড়ে তাল মিলিয়ে। গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে খেলাপি ঋণের পরিমাণ…