চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Cable

বাঙালী খানের ফাঁসিঃ ডালিম হোটেলের শহীদদের অতৃপ্ত আত্মা আজ শান্তি পেলো

কিশোর মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিনের বাড়ি বঙ্গোপসাগরের দ্বীপ উপজেলা সন্দ্বীপে। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধকালে এ কিশোর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য কেরোসিন সংগ্রহে চট্টগ্রাম শহরে এসেছিলেন। কিন্তু কেরোসিন নিয়ে যেতে পারেননি। পথেই আটক হন পাকিস্তান বাহিনীর হাতে। ঠাঁই হয় চট্টগ্রামের কারাগারে। পরে জামিন পান কিশোর জসিম। ফের যোগ দেন মুক্তিযুদ্ধে। ওই বছরের নভেম্বরে ঈদের দিন মামার বাসায় গিয়েছিলেন মুক্তিযোদ্ধা জসিম। মামাতো বোন তাকে পোলাও কোর্মা খেতে দেন। খাবার খেয়ে বাসা থেকে বের হতেই আল বদর বাহিনী তাকে ধরে নিয়ে যায় চট্টগ্রামের নন্দনকানস্থ মহামায়া ডালিম…

মীর কাসেমের চূড়ান্ত রায়ের অপেক্ষায় জাতি

অন্যান্য যুদ্ধাপরাধীদের তুলনায় মীর কাসেম আলী কিছুটা ব্যতিক্রম। ক্ষেত্রবিশেষে সাকা চৌধুরীর চেয়েও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই তার বিচার ঘিরে জল্পনা কল্পনাও ছিলো অনেক বেশি। মীর কাসেমের শাস্তির ব্যাপারে তাই আশা নিরাশার দোলাচলে দুলছিলেন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের মানুষেরা। কারণ ছিলো একটাই, টাকার পাহাড়। অপরিমিত অর্থ সম্পদের মালিক এই মীর কাসেম। জামায়াতের মূল আর্থিক পৃষ্ঠপোষক এই ব্যক্তিটি। যুদ্ধাপরাধের বিচার শুরু হওয়ার পর থেকেই হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করে বিদেশী লবিষ্ট ফার্ম নিয়োগ, অনলাইন অফলাইনে ব্যাপক প্রপাগান্ডা ছড়ানো, দেশের…

বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে জিয়াউর রহমানের দায়

১৫ই আগস্ট, ১৯৭৫। বাঙালি জাতির জীবনে কলঙ্কজনক একটি অধ্যায়। এদিন দেশী বিদেশী অপশক্তির প্রত্যক্ষ মদদে স্বপরিবারে হত্যা করা হয়, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, এদেশের স্বাধিকার আন্দোলনের রূপকার , বাঙালি জাতির মুক্তিসংগ্রামের স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। শুরু হয় এক নদী রক্তের বিনিময়ে কেনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধুলিস্যাত করে, পাকিস্তানবাদ প্রচারের এক পেছন পথে যাত্রা। ২১ বছর ধরে সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ঢুকিয়ে দেয়া হয় মৌলবাদ আর সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প। উত্থান ঘটে পাকিস্তানবাদের। কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধীদের করা হয়…

এতোটুকু কৃতজ্ঞতা থাকা উচিত

এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপরে হামলা এবং জমি দখলকারীর পক্ষে জামিন চাইতে আদালতে বড় বড় উকিলদের ভিড় দেখে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন আইনজীবী, অনলাইন এক্টিভিস্ট, ছাত্র আন্দোলনের সাবেক কর্মী রাজেশ পাল। রাজেশ পাল লিখেছেন, “এক অসহায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপরে হামলা এবং জমি বেদখলকারীদের জন্য আদালতে আজ জামিন চাওয়া হয়েছিল। জামিনের বিরোধিতা করতে গিয়ে দেখি জামিন চাইতে সব হোমড়াচোমড়া সিনিয়রদের ভিড়। শুধু একজন সিনিয়র আর কয়েকজন স্নেহাস্পদ জুনিয়র ভাইদের পাশে নিয়ে জামিন ঠেকিয়ে দিই অনেক কষ্টে।হাতেনাতে ধৃত এই আসামীর পক্ষে এভাবে যারা ডিফেন্স…

এতোটুকু কৃতজ্ঞতা থাকা উচিত

এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপরে হামলা এবং জমি দখলকারীর পক্ষে জামিন চাইতে আদালতে বড় বড় উকিলদের ভিড় দেখে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন আইনজীবী, অনলাইন এক্টিভিস্ট, ছাত্র আন্দোলনের সাবেক কর্মী রাজেশ পাল। রাজেশ পাল লিখেছেন, “এক অসহায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপরে হামলা এবং জমি বেদখলকারীদের জন্য আদালতে আজ জামিন চাওয়া হয়েছিল। জামিনের বিরোধিতা করতে গিয়ে দেখি জামিন চাইতে সব হোমড়াচোমড়া সিনিয়রদের ভিড়। শুধু একজন সিনিয়র আর কয়েকজন স্নেহাস্পদ জুনিয়র ভাইদের পাশে নিয়ে জামিন ঠেকিয়ে দিই অনেক কষ্টে।হাতেনাতে ধৃত এই আসামীর পক্ষে এভাবে যারা ডিফেন্স…

রক্তাক্ত গুলশান ও জঙ্গিবাদের করাল থাবা

শুরু হয়েছিল ব্লগার কিলিং দিয়ে, ধর্মীয় অনুভূতির কারণে প্রগতিশীল অনলাইন এক্টিভিস্টরা ব্যতীত আর কেউ তেমন সহানুভূতিশীল ছিলো না। প্রতিবাদ দূরের কথা। কিন্তু যতোই সময় বয়ে যেতে থাকে, বাড়তে থাকে হত্যার পরিধি। প্রকাশক, ইসলামী চিন্তাবিদ, মন্দিরের পুরোহিত, গির্জার পাদ্রী, বৌদ্ধ ভিক্ষু, সমকামী অধিকার এক্টিভিস্ট একে একে সবাই পরিণত হতে থাকেন চাপাতি হামলার শিকারে। কিন্তু শুধুমাত্র গুপ্তহত্যার মধ্যেই যে এসব সীমাবদ্ধ থাকবে না , তা আগেই আঁচ করা গিয়েছিল ভালোভাবেই। গত বছরের মাঝামাঝি থেকেই হঠাৎ দেশে বেড়ে যায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপরে নির্যাতনের…

হাসিবে বাঙালি জাতি, দেখিয়া তোমার ফাঁসি

৭১ এ মানবতা বিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমীর আর একাত্তরে ইসলামী ছাত্র সংঘের “নাজিমে আলা” মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আপীল বিভাগ।ইতিহাসের আরেকটি কলংকজনক অধ্যায় আজ সমাপ্তির পথে। কিন্তু কে এই নিজামী? কেন তার মৃত্যুদণ্ড নিয়ে এতো হইচই?মতিউর রহমান নিজামীর জন্ম ৩১শে মার্চ ১৯৪৩ খ্রিস্টাব্দে পাবনায়।একাত্তরের মহান মুক্তিসংগ্রামে এ জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বুদ্ধিজীবীদের নৃশংসভাবে হত্যার পেছনে যে সংঘটনটি দায়ী ছিলো, সেই কালো সোয়েটার পড়া কুখ্যাত ঘাতকবাহিনী আলবদরের সর্বাধিনায়ক ছিলেন তিনি।…

‘পরবর্তী শিকার আপনি-আমি যে কেউ’

আমার প্রাণপ্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ এখন পরিণত হয়েছে এক মৃত্যু উপত্যকায়। প্রতিদিন প্রতি মূহুর্তে মৃত্যুভয় তাড়া করে ফিরছে দেশের প্রতিটি মুক্তচিন্তার প্রগতিশীল মানুষের মনে। আফিমে মত্ত খুনীরা একদিন যেভাবে মেতে উঠেছিল রক্তের হোলিখেলায়, বিশ্বাসের আফিমে মত্ত গুপ্তঘাতকেরা আজ আবারো মেতে উঠেছে সেই মরণখেলায়। পরমত অসহিষ্ণুতার বিষবাস্পে বিষিয়ে উঠছে আকাশ বাতাস। নিয়মিত বিরতিতে একের পরে এক খুন হয়ে যাচ্ছেন ভিন্নধারার মানুষেরা। অথচ তেমন কোন প্রতিক্রিয়া নেই জনমনে। যেন নিতান্তই মামুলি ব্যাপার এগুলো। আর আলোকিত মানুষগুলো হারিয়ে বাতিঘরের অভাবে…

অনাকাঙ্ক্ষিত দ্বন্দ্বের চির অবসান হোক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণের ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শফিক রেহমানের গ্রেফতার এবং পরবর্তীতে সজীব ওয়াজেদ জয় আর গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডাঃ ইমরান এইচ সরকারের পাল্টাপাল্টি ফেসবুক স্ট্যাটাস ছিলো গত দুদিনের সোশ্যাল মিডিয়ার আলোচনার মূল কেন্দ্রবিন্দু। পক্ষে বিপক্ষে স্ট্যাটাসের পর স্ট্যাটাসে সয়লাব হয়ে পড়েছে নিউজফিড। একই অবস্থা ব্লগ আর অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলিতেও। কিন্তু কে এই শফিক রেহমান? কেন তাকে নিয়ে এতো হইচই? শফিক রেহমান পেশায় ছিলেন একজন কৃতি চাটার্ড একাউন্ট্যান্ট। প্রখ্যাত চাটার্ড…

মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা-উত্তরকালে চীন এবং চীনপন্থীদের ভূমিকা

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের প্রতি চীনের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত হয় ১১ই জুলাই ইয়াহিয়ার প্রতি চৌ এন লাইয়ের চিঠির মাধ্যমে। পিপলস ডেইলিতে সোভিয়েত প্রক্রিয়ার সমালোচনা করা হয় বাংলাদেশকে সমর্থন দানের জন্য। চৌ এন লাই পাকিস্তানের ‘জাতীয় স্বাধীনতা’ ও "রাষ্ট্রীয় সার্বভৌমত্ব রক্ষায়" চীনের দ্ব্যর্থহীন সমর্থনের কথা জানান। জেনারেল ইয়াহিয়া খান শতভাগ নিশ্চিত ছিলেন, চায়নার রেডগার্ডরা পূর্ব পাকিস্তানে এসে তার সৈন্যদের পাশে দাঁড়াবে। এরপর পূর্বপাকিস্তান থেকে বাঙালিদের পুরোপুরি নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার মিশনটি তার পরিপূর্ণতা লাভ করবে। এ বিষয়ে ‘অঘোষিত…