চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নামে বহু কিছু আসে যায়

সন্তান হবার পর অনেকেই সুন্দর কিছু নাম প্রস্তাব করার জন্য অনুরোধ পাঠান। মনে মনে হাসি। জানি প্রস্তাবিত নামগুলোর একটিও না রেখে তাঁরা নিজেদের ভেবে রাখা  নামই রাখবেন। তবু কৌতুক এবং কৌতুহলবশত এই খেলাটিতে অংশ নিই। একবার একজনকে জিজ্ঞেস করলাম—কী ভাই, ভাতিজার জন্য কতগুলো নাম দিলাম...। উনি সলজ্জ উত্তর দিলেন—আপনার ভাবির পছন্দ কী করে ফেলে দেই, বলেন? ভাবিকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বললেন—আপনার ভাইয়ের পছন্দ। নাটকও যোগ করলেন খানিকটা—আপনার ভাই তো বিয়ের প্রথম দিন হতেই সন্তানের নাম...। দুষ্টামি করে বললাম—ভাই তো বললেন নামটি নানা-নানীর দেওয়া। খানিক…

হ্যারল্ড হোল্টের নিখোঁজ রহস্য, ইমরান খানের ফ্যান্টাসি এবং দক্ষিণ এশিয়ার সতর্কতা

১৯৬৭ সালের ১৭ই ডিসেম্বর অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী হ্যারল্ড হোল্ট পোর্টসি বীচে সাঁতার কাটতে নেমে সেই যে নিখোঁজ হলেন, একান্ন বছর পর এখনো পর্যন্ত কোনো বিজ্ঞান, কোনো গবেষকই সুরাহা করতে পারছে না তার অন্তর্ধানের আসল রহস্য কী! তিনি সুঠামদেহি ছিলেন। নিয়মিত ব্যায়াম ছাড়াও সাঁতার, ডুবুরিপনা, সার্ফিং, নৌকা চালনা, মাছ-ধরা ইত্যাদি জলভিত্তিক সবরকম ক্রীড়া-কৌতুকেই দক্ষ ছিলেন। পানির নীচে ডুব দিয়ে কয়েক মিনিট দম ধরে রাখতে পারতেন। সংসদে কৌতুকচ্ছলে সেটি দেখিয়েছেনও দু’তিনবার। বেশির ভাগ সময়ই ফরমাল পোশাকের নীচে বীচ-স্যুট পরে থাকতেন যাতে অফিস শেষ…

‘ঈশ্বরে বিশ্বাস করি না, যদি করতামও ফিদেলই হতো আমার ঈশ্বর’

২৯ সেপ্টেম্বর, ১৯৯৯। ফ্লোরিডা প্রণালীর উম্মাতাল জলে নৌকাডুবিতে বারোজন যাত্রী ডুবে মারা যায়। যাত্রীরা কিউবার। আমেরিকায় রাজনৈতিক আশ্রয় খুঁজবে বলে নৌকায় উঠেছিল। মাছধরা নৌকা নিয়ে মাছ ধরছিল ফ্লোরিডার দুই মৎস্যজীবী তরুণ। নৌকাডুবির খবরটি তারা জানত না। কিউবা থেকে পালিয়ে আসা মানুষদের নৌকাডুবিতে মরার ঘটনা আকছারই ঘটতো বলেই হয়তবা! হঠাৎ তাদের নজরে এলো একটি টায়ার ঢেউয়ের তোড়ে ডুবছে ভাসছে। মনে হলো টায়ারের গায়ে একটি পুতুল লেপ্টে আছে। খানিক পরেই একজন দেখল পুতুলটির হাত নড়ছে। দুজনেই ঝাঁপিয়ে পড়ল জলে। পুতুল নয়, তারা উদ্ধার করল পুতুলের মতো…

মালালা প্রশ্ন করুক- শিশুহত্যার মিছিলে কেন কাঁদেনা বসুন্ধরা?

বালিয়াড়িতে উপুড় মৃত শিশু আয়লান কুর্দির আলোকচিত্রটি এখনো আমাদের স্মৃতিতে জ্বলজ্বল করছে, তাই না? ছবিটির সীমাহীন ফটো-ভ্যল্যু, ক্যামেরা-ভ্যল্যু ছিল। তাই আয়লানকে ভুলে গেলেও ফটোগ্রাফিটি আমরা ভুলব না। ‘বিশ্বকে এ শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি’ স্লোগান আঁকা পোস্টারগুলোর মোক্ষম মৃত মডেল হয়েছিল আয়লান। এনজিওরাও পোস্টারে বা রিপোর্টের কভারে আয়লানকে রেখে ফান্ড ডোনেশন পেয়েছে। তার ছবির মডেল মূল্যমান বাড়ানোর জন্য একটি গল্পও জুড়ে দেয়া হয়েছিল। ক্যামেরার সমান ফোকাস ছিল আয়লানের মাথার কাছে পড়ে থাকা একটি পুতুলের উপর । এটি ‘আয়লানের পুতুল’—ছবির গায়ে এমন…

‘পুরুষ নির্যাতন’ মস্করার বিষয় নয়, সিরিয়াস গবেষণার বিষয়!

একটি বেসরকারি টিভির সংবাদ পর্যালোচনা অনুষ্ঠানে একজন দর্শকের প্রশ্ন ছিল, ‘নারী নির্যাতন নিয়ে বলেন, পুরুষ নির্যাতন নিয়ে বলেন না কেন?’। প্রত্যুত্তরে অতিথি বলেছিলেন: ‘সংসারে এখন ছাড় দেয়াদেয়ি কমে গেছে... ... ইত্যাদি। নিতান্তই অনর্থক কথাবার্তা। ‘পুরুষ নির্যাতন’ বিষয়টি উপেক্ষিত এই উষ্মাটি অনেকের মাঝেই দেখেছি। অনেকের মুখে শুনেছি। কাউকে কাউকে এমনও প্রশ্ন করতে শুনেছি ‘নারী অধিকার’ আন্দোলনের বিষয় হলে পুরুষের অধিকার কেন আন্দোলনের বিষয় হবেনা? কথামালার মাঝে মনে এল ১৯৭০ সাল হতে কয়েক বছরের জন্য পুরুষ অধিকার আন্দোলনও চালু ছিল। সন্তানের…

কানাডায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের চলন বাঁকা নাকি আমাদের যোগাযোগ সমস্যা?

কানাডায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের নাকি চলন বাঁকা, অনেকেই দেখতে পারেন না। অনেকে নামও শুনতে পারেন না। কানাডাপ্রবাসীদের ঘরোয়া আসরগুলোতে আমি সাধারণত চুপচাপ থাকি। উদ্দেশ্য কে কী বলে কীভাবে বলে শোনা ও বোঝার চেষ্টা করা। অনেকে ভোগান্তির লম্বা ফিরিস্তি দেন। হাইকমিশন কাকে কীভাবে কষ্ট দিয়েছে সে’সব গল্প। চুপচাপ শুনলে বোঝা যায় অনেক কথায় মাত্রাতিরিক্ত অতিরঞ্জন আছে। অনেকে নিজের নয় অন্যের অভিজ্ঞতার গল্প শোনান। শালা-শালি, খালা-খালু কে কখন কীভাবে হেনস্থার শিকার হয়েছে ইত্যাদি। প্রায়শই ভাবতাম অন্যদের কথা তো শোনা গেল। হাইকমিশনের কর্তা-কর্মকর্তাদের…

চাঁদাখেলাপি আমেরিকার ইউনেস্কো ত্যাগ ও কিছু কথা

ইউনেস্কোর “ইহুদিবিরোধীদের প্রতি পক্ষপাত” আছে এই অযুহাতে আমেরিকা ও ইসরায়েল ইউনেস্কো ত্যাগ করার ঘোষণা দেবার পরদিনই ইউনেস্কো প্রধানের পদ পেল একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন প্রভাবশালী ইহুদি অড্রে অ্যাজুলে। পদে বসা মাত্রই অ্যাজুলে দুই দেশকেই অনুরোধ করেছে ইউনেস্কো ছেড়ে না যেতে। ইউনেস্কোর ৭০ ভাগ কর্মকর্তা-কর্মচারী আমেরিকান ও ইহুদি। বছরে আয় করে কয়েক’শ মিলিয়ন করমুক্ত বেতন। দুই দেশের একটিও কিন্তু বলেনি আমাদের নাগরিকরা আর ইউনেস্কোয় চাকুরি করবে না! এটিও ওপেন সিক্রেটই যে, মার্কিন ও ইহুদিদের ব্যাপক সংখ্যায় নোবেল পুরস্কার পাবার পেছনে…

মাদকস্বর্গ বার্মা: বাংলাদেশের জন্য নরককুণ্ডের দুয়ার

“মেথ” জীবন-বিধ্বংসী মাদক। মারণাস্ত্র যেন! এশিয়ায় মেথ-এর মুল উৎপাদক বার্মা। ব্যবসায় জড়িত বার্মার সেনাবাহিনীও। এই নিয়ে একটি ডকুমেন্টারি আছে। ডকুমেন্টারিটির আলোচনায় সাইটটি শিরোনাম করেছে— How Asia’s meth is made (with the help of Myanmar’s military)। ভিক্ষুদের একাংশও মেথ ব্যবসায় নেমেছে। খবরের এমন শিরোনাম হয়েছে ‘Buddhist Monk Caught Hiding 4 Million Methamphetamine Pills in His Monastery’। দ্রুততম বিপণন হচ্ছে বিশ্ববাজারে। বার্মার খোপে ঘুপচিতে জন্ম নিচ্ছে মেথ কার্টেলরা। কলম্বিয়া-মেক্সিকো-ব্রাজিলের হেরোইন-কোকেইননির্ভর ড্রাগ…

চীনে মৃত মানুষ বিক্রি করে মিয়ানমারের সেনাশাসকদের ধনী হবার গল্প

মৃত মানুষ বিক্রি করে বিলিয়নার হবার ইতিহাস একমাত্র বার্মার সেনাশাসকদেরই আছে। দীর্ঘদিনের সেনা শাসনকালে অগণিত চীনা নাগরিকের কাছে মৃত বার্মিজদের আইডি কার্ড বিক্রি করা হয়। মিয়ানমারের সেনাশাসকদের সরাসরি প্রশ্রয়ে এসব হবার নানা প্রমাণ আছে। ডোনাল্ড এম সিকিন্স এর ‘হিস্টরিক্যাল ডিকশনারি অব বার্মা’ বইতেও এসব কাণ্ডের উল্লেখ আছে। চীনের এক সন্তান নীতির কারণে বেশি সন্তানে আগ্রহীরা মুড়ি-মুড়কির মত এই কার্ড কিনে পুরোপুরি বাধাবন্ধনমুক্ত বার্মিজ বনে যায়। কাগজে-কলমে ধরা হয় যে, বার্মার মোট জনসংখ্যার ২.৫% হান-চাইনিজ ও ৯% শান নৃ-গোষ্ঠী। কিন্তু…

কানাডার উইনিপেগে বাংলাদেশিদের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা

কানাডার উইনিপেগে ১৭০০ বাংলাদেশিদের বাস। বেশির ভাগ অধিবাসীই উচ্চশিক্ষিত ও সংস্কৃতিমনা। ২০০৪ সাল হতে ম্যানিটোবা প্রদেশের তিনটি মুলধারার বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশি ছাত্রছাত্রীদের সংখ্যাও বাড়ছে। ২০১২ হতে ২০১৫ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে চারশ’ বাংলাদেশি ছা্ত্রছাত্রী ভর্তি হন। তরুণ বাংলাদেশিদের আগমনে ম্যানিটোবার উইনিপেগ বাংলাদেশি সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডমূখর হয়ে উঠছে প্রতিদিনই। বাংলাদেশিদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন কানাডা-বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন (সিবিএ) প্রতি বছরই একধিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এ’ বছরের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি ছিল এ…