চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

উত্তাপ ছড়াচ্ছে যে ম্যাচ

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে শিরোপার পথে আবাহনী ও রূপগঞ্জ ছুটছে সমানতালে। নয় ম্যাচে আট জয়ে দুই দলেরই পয়েন্ট ১৬। এবার এগিয়ে যাওয়ার লড়াইয়ে মুখোমুখি হচ্ছে তারা। শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে রোববার সকাল ৯টায় শুরু হবে সেরাদের দ্বৈরথ। দুই দলেরই আশা মিরপুরের ২২ গজে হবে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের এক ম্যাচ।

সুপার লিগ শুরুর আগে উভয় দলের জন্যই সবচেয়ে গুরুত্ব ম্যাচ এটি। যারা জিতবে তারাই শিরোপার পথে একধাপ এগিয়ে থাকবে। যে কারণে বাড়তি উত্তাপ মিরপুরের ম্যাচকে ঘিরে।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ দলের একঝাঁক তারকা ক্রিকেটার নিয়ে গড়া ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন আবাহনী লিমিডেট এবারও আসরের ফেবারিট। গত আসরের রানার্সআপ লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জকে অবশ্য তারা বেশ সমীহ করছে। সামর্থ অনুযায়ী খেলতে না পারলে জয় পাওয়া যে কঠিন হবে, সেটি সাফ জানিয়ে দিলেন আবাহনী কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। মিরপুরে প্রতিদ্বন্দিতাপূর্ণ ম্যাচের আশা তার।

‘কাগজে-কলমে আমরা অনেক শক্তিশালী, তবে রুপগঞ্জ অনেক ভালো ক্রিকেট খেলছে। সুতরাং প্রতিটি খেলাই গুরুত্বপূর্ণ। আমি বিশ্বাস করি যে আমরা অনেক ভালো দল। আমরা ম্যাচ জেতার কথা চিন্তা করতেই পারি। আমরা যদি আমাদের সামর্থ অনুযায়ী খেলতে পারি এবং সব খেলোয়াড় যদি ঠিক মতো জ্বলে ওঠে তাহলে আবাহনী অনেক শক্তিশালী দল আমি মনে করি।’

‘প্রতিদ্বন্দ্বিতা সব ম্যাচেই হচ্ছে। এক-দুটি ম্যাচ ছাড়া গত নয়টি ম্যাচের মধ্যে পাঁচ-ছয়টিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে। যদিও শেষের দিকে আমরা ভালোভাবে জিতেছি তবে শেষ ম্যাচে আমরা ২২৪ রান তাড়া করতে গিয়ে কঠিন পরিস্থিতিতে ছিলাম, ১৩৫ রানে ৫ উইকেট পড়ে গিয়েছিলো আমাদের। সেখান থেকে অমি (জহুরুল ইসলাম) আর সাইফউদ্দিন দারুণ ব্যাটিং করে ম্যাচ জেতাল। সুতরাং প্রতি ম্যাচেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। জয় পাওয়া কঠিন হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

জয়ের ধারায় থাকা রূপগঞ্জের আসল পরীক্ষাটাই রোববার, আবাহনীর বিপক্ষে। মাশরাফী, মিঠুন, সৌম্য, সাব্বির, রুবেল, মিরাজ, মোসাদ্দেক, সাইফউদ্দিন, অপু, শান্ত, সানজামুলদের সামনে ব্যাটে-বলে নিজেদের মেলে ধরার চ্যালেঞ্জ তাদের। দলটির ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফীস মনে করেন আবাহনীকে হারাতে হলে সব বিভাগেই জ্বলে উঠতে হবে তাদের।

‘অবশ্যই ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। ওদের দলে ভালো কিছু খেলোয়াড় আছে। আমরা যদি গোছানো পারফরম্যান্স করতে করি, তাহলে কালকে (রোববার) একটা ভালো ম্যাচ হবে। ম্যাচের ফলাফল দিন শেষে বোঝা যাবে।’

কঠিন প্রতিপক্ষ হলেও আবাহনীকে হারিয়ে দেয়া অসম্ভব মনে করেন না নাফীস। চলতি লিগে আকাশী-নীল শিবির হেরেছে একটি ম্যাচ, সেটি প্রাইম ব্যাংকের কাছে। উদাহারণ টেনে নাফীস বলেন, ‘প্রাইম ব্যাংক তো হারিয়েছে (আবাহনীকে)। অসম্ভব না। দিন শেষে ব্যাটে বলে খেলা হবে। কাগজ-কলমে অনেক কিছুই হিসাব করতে পারি। অবশ্যই আবাহনী এমন একটা দল যাকে আপনার অবশ্যই সমীহ করে খেলতে হবে। তাদের হিসেবের বাইরে রাখতে পারবেন না। যেটা বললাম, যে-ই গোছানো পারফরম্যান্স করবে সেই টিম জিতবে।’

রোববার দশম রাউন্ডের অপর দুই ম্যাচে ফতুল্লায় প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাবের মুখোমুখি হবে পয়েন্ট টেবিলের সবচেয়ে তলানীর দল উত্তরা স্পোর্টিং ক্লাব। ১২ পয়েন্ট নিয়ে সুপার লিগ প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেছে দোলেশ্বর।

হোম ভেন্যুতে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি)। আট পয়েন্ট নেয় শেখ জামাল অষ্টম ও পাঁচ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে আছে বিকেএসপি। 

Bellow Post-Green View