চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘আমার স্কুল কলেজের স্যাররা ফোন করে বাহবা জানিয়েছেন’

‘ভাইরাল গার্ল’ এর জনপ্রিয়তা প্রসঙ্গে নির্মাতা কাজল আরেফিন অমি

রোমান্টিক কমেডি নাটকের নির্মাতা হিসেবে কাজল আরেফিন অমির হাঁকডাক বেশ। হাস্যরস দিয়ে যা তৈরি করেন দর্শক লুফে নেয়। সম্প্রতি ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ দিয়ে ব্যাপকভাবে আলোচিত হওয়া পরিচালক কাজল আরেফিন অমি ‘ভাইরাল গার্ল’ নামে একটি অন্য প্যার্টানের নাটক বানিয়েছিলেন। যেখানে ছিল না কোনো কমেডি বা রোমান্টিকতা!

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে ভয়ঙ্কর পরিণতি ও এর ফলে মানুষের সাজানো জীবন যে তছনছ হয়ে যেতে পারে, সেই সব ভুল চোখে আঙুল দিয়ে দেখান অমি। এ নাটকটি বানিয়ে দর্শকের কাছ থেকে অন্যরকম সাড়া পেয়েছেন জনপ্রিয় এ নাট্য নির্মাতা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

মাত্র ১৩ দিনেই ৫০ লাখের বেশি দর্শক নাটকটি দেখেছেন। কাজল আরেফিন অমি বলেন, রোমান্টিক কমেডি কনটেন্টগুলো সবসময় জনপ্রিয়তা বেশি পায়। শিক্ষণীয় বিষয় কম দেখে। জনপ্রিয়তা আর ভিউস কিন্তু এক জিনিস নয়। যেটা জনপ্রিয় হবে সেটা কোনোভাবেই আটকে রাখা যাবেনা। যেমন ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’। ‘ভাইরাল গার্ল’ যে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে এই আশা নিয়ে আমি কিংবা মেহজাবীন আপু কেউই কাজ শুরু করিনি।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, যেহেতু এটা শিক্ষণীয় কাজ, তাই চেষ্টা করেছিলাম কাজটা ভালো হোক এবং অন্যরকম হোক। যে কাজটি দিয়ে নির্মাতা হিসেবে দর্শক নতুনভাবে অমিকে চিনবেন। প্রত্যাশা ছিল, হয়তো মানুষ বলবে, কাজটা ভালো হয়েছে। কিন্তু এতো বেশি সাড়া পাবো এবং জনপ্রিয়তা পেয়ে যাবে আমাদের কারও কল্পনাতে ছিল না। আমার স্কুল কলেজের স্যাররা পর্যন্ত আমাকে ফোন করে বাহবা জানিয়েছেন। কাজ ভালো লাগলে এখন অনেকেই ম্যাসেঞ্জারে টেক্সট দিয়ে জানায়। কিন্তু ফোন করে উইশ করে না। ‘ভাইরাল গার্ল’ বানিয়ে অনেকদিন পর ফোনে অনেক অনেক উইশ পেয়েছি। আমার ছোটবেলা শিক্ষকরা আমাকে ফোন দিয়েছেন।

কাজল আরেফিন অমি বলেন, আগে টিভিতে ভালো কাজ অনএয়ার হলে ফোন আসতো। এবার অনেকদিন পর অনেক অনেক ফোন পেয়েছি। এমন কিছু মানুষ আমাকে ফোন করেছেন যা আমার কাছে ছিল প্রত্যাশার বাইরে। ‘ভাইরাল গার্ল’ শিক্ষণীয় কাজ হলেও রোমান্টিক বা কমেডি কনটেন্টের মতো ভিউস টানছে। এটা আমাদের জন্য আশার ব্যাপার। পরিচালকরাও এমন কনটেন্ট আগামীতে বানাবেন এবং প্রযোজকরা এমন কনটেন্ট তৈরিতে উৎসাহিত হবেন। ভিউস হবে না এমন ধারণা পালটে যাবে। আমি নিজেও প্রচণ্ডভাবে উৎসাহিত হয়েছি। তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আগামীতে আরও শিক্ষণীয় কাজ বানাবো।

এবারের ভালোবাসা দিবসে ‘লতা অডিও’ ও ‘ফিমেল’ নামে দুটি নাটক বানিয়েছেন কাজল আরিফিন অমি। প্রাণ ফ্রুটো লাভ এক্সপ্রেস সিজন সিক্স এ পাঁচটি ভালোবাসার গল্প দিয়ে পাঁচটি শর্টফিল্ম বানিয়েছেন তিনি।

পরিচালক অমি বলেন, পরপর দুবার প্রাণ ফ্রুটো লাভ এক্সপ্রেস বানাচ্ছি। এর আগে কোনো ডিরেক্টর রিপিট হয়নি। গতবারের অভিজ্ঞতা ভালো বলেই এতো চমৎকার কাজ আবার করছি। দুজন বন্ধুর গল্প, স্বামী-স্ত্রীর গল্প, বাবা-ছেলের গল্প, প্রপোজের গল্প এমন পাঁচটি গল্প নিয়ে তৈরি করেছি।