চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Cable

রিজার্ভ চুরি: বাংলাদেশ ব্যাংককে সহায়তা করবে ফেডারেল রিজার্ভ

Nagod
Bkash July

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে চুরি হওয়া রিজার্ভের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংককে সহায়তা দেবে নিউ ইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক।

Reneta June

এই সপ্তাহের চুক্তি অনুযায়ী নিউ ইয়র্ক ফেডারেল বেশ কিছু ডকুমেন্ট ও তথ্য বাংলাদেশ ব্যাংক বা কোর্টে সরবরাহ করবে। বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা বা তাদের বেছে নেওয়ার ব্যাপারে সহায়তা করবে।

নিউ ইয়র্ক ফেড এবং বাংলাদেশ ব্যাংক একসঙ্গে ফিলিপিন্সের বেশ কিছু এজেন্সি বা পার্টির সঙ্গে দেখা করবে তাদের চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধারে সহায়তা করতে উৎসাহিত করতে।

ফেডারেল রিজার্ভের আনুষ্ঠানিক চুক্তি অনুযায়ী টেকিনিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট দেওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংক খানিকটা স্বস্তি পেতে পারে। সেই সঙ্গে ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে হওয়া চুরির ব্যাপারে দীর্ঘদিন ধরে বলা সহায়তার কথাও পরিপূর্ণ হবে।

এ ঘটনায় ফিলিপিন্সের ব্যাংকের বিরুদ্ধে শুক্রবার মামলা দায়ের করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে চুরি হওয়া সেই ৮১ মিলিয়ন ডলারের মাত্র ১৫ মিলিয়ন ফেরত পেয়েছে বাংলাদেশ। এই সমাধান ও সহায়তার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত একজন রয়টার্সকে বলেছেন: নিউ ইয়র্ক ফেডারেল এফিডেভিটস তৈরি করবে এবং শুনানি ও মামলা চলাকালীন কর্মকর্তাদের পরীক্ষা করবে। তারা বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধিদেরও সম্পৃক্ত করবে ও বিশেষ বিষয়ে কর্মীদের সাক্ষাৎকার নেওয়ার সুযোগ দেবে।

তবে আরসিবিসি ব্যাংকের অ্যাটর্নি তাই হেঙ চেং বলেন: এই মামলা পুরোপুরি ভিত্তিহীন, পাতলা আবরণ দেওয়া পিআর প্রচারণা, যেখানে নিজেদের উপর থেকে দায় সরানোর চেষ্টা করা হয়েছে। শুধু অভিযোগগুলো মিথ্যাই নয়, তাদের এখানে মামলা করারও অধিকার নেই, কারণ কোনো অভিযুক্তই যুক্তরাষ্ট্রের নয়।

শুক্রবার রিজার্ভ চুরির ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে ফিলিপিন্সের আরসিবিসি ব্যাংক এবং তাদের কয়েকজন পদস্থ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

নিউ ইয়র্কের ম্যানহাটন সাদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে দায়ের করা এ মামলায় রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশন (আরসিবিসি) এবং ওই ব্যাংকের বেশ কয়েকজন শীর্ষ কর্মকর্তাসহ ডজনখানেক ব্যক্তিকে আসামি করা হয়।

উল্লেখ্য, চুরি হওয়া রিজার্ভের সাড়ে তিন কোটি ডলারের বেশি অর্থ শ্রীলঙ্কা এবং ফিলিপিন্স থেকে বাংলাদেশে ফেরত এসেছে। এর মধ্যে শ্রীলঙ্কায় যাওয়া ২ কোটি ডলার আর ফিলিপিন্সে যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলারের মধ্যে ফিরে এসেছে মাত্র ১ কোটি ৪৫ লাখ ডলার। আরও অর্ধকোটি উদ্ধারে অগ্রগতি আছে।

২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে সংরক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ৮১ মিলিয়ন ডলার চুরি হয়। এ ঘটনায় দেশব্যাপী আলোড়ন তৈরি হলে তৎকালীন গভর্নর আতিউর রহমান পদত্যাগ করেন।

BSH
Bellow Post-Green View