চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাংলাদেশে খেলতে আসা ৫ প্রোটিয়া নারী ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত

বাংলাদেশে করোনার সংক্রমণ হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় সিরিজ সংক্ষিপ্ত করা হয়েছিল। বাতিল করা হয়েছিল সিলেটের পঞ্চম ও শেষ ওয়ানডে। তাতেও শেষ রক্ষা হলো না। দেশের ফিরে যাওয়ার ২৪ ঘণ্টা আগে কোভিড পজিটিভ হয়ে ঢাকার একটি হোটেলে আইসোলেশনে আছেন সাউথ আফ্রিকা নারী ইমার্জিং দলের ৫ ক্রিকেটার। নেগেটিভ না হওয়া পর্যন্ত তাদের দেশে ফেরার সুযোগ নেই।

খবরটি নিশ্চিত করেছেন বিসিবি পরিচালক ও উইমেনস উইং চেয়ারম্যান শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল। চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি বলেন, ‘সাউথ আফ্রিকা নারী দলের ৫ ক্রিকেটার করোনা শনাক্ত হয়েছেন। তারা গতকাল ঢাকায় ফিরেছেন এবং একটি হোটেলে আইসোলেশনে আছেন। তাদের অন্তত ১০ থেকে ১৪ দিন থাকতে হবে। করোনা নেগেটিভ হলে তাদের দেশে ফেরার ব্যবস্থা আমরা করবো। সোমবার দিবাগত রাতে কয়েকজন ও আজ বাকি ক্রিকেটারদের সাউথ আফ্রিকা ফিরে যাওয়ার কথা।’

বিজ্ঞাপন

তিনি জানান, স্বাগতিক অর্থাৎ বাংলাদেশ নারী ইমার্জিং দলের দলের সকল ক্রিকেটার ভালো আছেন।

সোমবার বিকেলে দুই দলের ক্রিকেটাররা একই ফ্লাইটে সিলেট থেকে ঢাকায় ফেরেন।

পাঁচ প্রোটিয়া ক্রিকেটারেরর মধ্যে লিয়া জনস ও সিনালো জাফটা ১১ এপ্রিল সিলেটে চতুর্থ ওয়ানডে খেলেছেন। করোনায় আক্রান্ত হওয়া বাকি তিন ক্রিকেটার হলেন-মাতসিপি মারসিয়া, নবোলুমকো বেনেতি, রবেইন সিয়ারলে। সোমবার সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় তাদের করোনা শনাক্ত হয়।

২৮ মার্চ বাংলাদেশ সফরে আসে প্রোটিয়া মেয়েরা। ঢাকা বিমানবন্দর থেকেই তারা আরেকটি ফ্লাইটে চলে যায় ম্যাচের ভেন্যু সিলেটে। সেখানে তিন দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে মাঠে নামে সফরকারীরা। প্রথম চার ম্যাচের চারটিতেই সালমা-রুমানা-নিগারদের কাছে হারে সাউথ আফ্রিকা ইমার্জিং দল। ১৩ এপ্রিলের শেষ ম্যাচটি বাতিল করা হয় করোনা ও লকডাউন পরিস্থিতির কারণে।

বিজ্ঞাপন