চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পেনাল্টি মিস, হতাশা ও স্বপ্নভঙ্গের দীর্ঘ যাত্রা

জয়ের বিকল্প ছিল না শ্রীলঙ্কার। অন্যদিকে কেবল একটা পয়েন্ট তুলতে পারলেই চলত বাংলাদেশের। তাতে মিলত ফাইনালের টিকেট। এমন সমীকরণের ম্যাচে ১০ জনের লঙ্কানদের বিপক্ষেও শেষ হাসি আনতে পারেনি জামাল ভুঁইয়ার দল।

মাহিন্দার রাজাপক্ষে ট্রফির লিগে পর্বে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২-১ গোলে হেরে টুর্নামেন্ট শেষ করেছে বাংলাদেশ। ফাইনালে খেলবে জয়ী স্বাগতিকরা।

কলম্বোর রেসকোর্স ময়দানে মালদ্বীপের বিপক্ষে গত খেলায় জয়ের নায়ক তপু বর্মণ পেনাল্টিতে গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেছেন। জুয়েল রানা একটি গোল করেছেন। কিন্তু দরকারি আরেকটি গোলের খোঁজ কেউ দিতে পারেননি।

স্বপ্নভঙ্গের আরেকটি ৯০ মিনিটের শেষ বাংলাদেশ ফিরছে দেড়যুগ পর মালদ্বীপকে ২-১ গোলে হারানোর সুখস্মৃতি নিয়ে। নিজেদের প্রথম ম্যাচে সিশেলসের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছিল মারিও লেমোসের শিষ্যরা।

বিজ্ঞাপন

প্রথমার্ধের ২৬তম মিনিটে ওয়াসিম তাজিকের গোলে লিড নেয় শ্রীলঙ্কা। ম্যাচের ৩৩ মিনিটে জামালের কর্নার থেকে আসা বলে মাথা ছুঁইয়েছিলেন তপু, সেটি গোললাইন থেকে ফেরাতে যেয়ে বিপত্তি, হাতের ব্যবহার করে ফেলেন স্বাগতিকদের ডাকসন। দেখেন লাল কার্ড।

তাতে দশজনের দল হয়ে পড়ে লঙ্কানরা। সেই ঘটনায় পাওয়া পেনাল্টিতে সমতার সুযোগ মিলেছিল। সুযোগ নষ্ট করেন তপু। স্পটকিক উড়িয়ে মারেন বারের অনেকটা উপর দিয়ে।

মধ্যবিরতির পর ফিরে সুযোগ হাতছাড়ার মহড়া দিতে শুরু করে সফরকারীরা। একের পর এক সহজ গোলের সুযোগ জাল পর্যন্ত নিতে না পারার শেষে ৭১ মিনিটে আসে উল্লাসের ক্ষণ। ইয়াসিনের বাড়ানো বলে জাল খুঁজে নেন জুয়েল।

সমতায় ফিরে যখন চাঙ্গা বাংলাদেশ, মূহমূহ চাপ তৈরি করতে থাকে প্রতিপক্ষ রক্ষণে। গোল না পেলেও ১ পয়েন্ট তোলার কাছাকাছি চলে যায়। এরমাঝেই নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে ঘটে যায় মহাবিপত্তি।

ম্যাচের ৯০ মিনিটে লঙ্কান বক্সের মধ্যে হাতে বল লাগান সাদউদ্দিন। বাজে পেনাল্টির বাঁশি। স্পটকিকে শ্রীলঙ্কা ফাইনালে পা রাখার গোলটি তুলে নেয়। বিপরীতে হতাশা আর স্বপ্নভঙ্গের আরেকটি গল্প দীর্ঘ হয় বাংলাদেশের।

বিজ্ঞাপন