চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পাখির ছানা ধরতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু

কক্সবাজারের মহেশখালীতে বর্ষায় পাহাড়ের ঢালুতে মাটির গর্ত থেকে পাখির ছানা ধরতে গিয়ে পাহাড় ধসে মাটিচাপা পড়ে মোহাম্মদ জুনায়েদ নামের ৮ বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

আজ (শনিবার) দুপুর দেড়টায় উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের পূর্ব হরিয়ার ছড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত জোনায়েদ মোঃ গিয়াস উদ্দিন ও কাউসার বেগম দম্পতির ছেলে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

হোয়ানক ইউনিয়ন পরিষদের দফাদার শামসুল আলম জানান, ১৯ জুন (শনিবার) দুপুর দেড়টায় দিকে ইউনিয়নের পূর্ব হরিয়ার ছড়ায় পাহাড়ের পাশে বসবাসকারী মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের ৮ বছর বয়সি ছেলে মোহাম্মদ জুনায়েদ তার তিন বন্ধুসহ বাড়ির পার্শ্ববর্তী পাহাড়ের ঢালুতে মাটির গর্তে থাকা পাখির বাসা থেকে পাখির ছানা ধরতে গিয়েছিল।

এসময় অকস্মাৎ পাহাড়ের ঢালু থেকে একটা অংশ ধ্বসে শিশুটি চাপা পড়ে।  এরপর সহপাঠীরা বাড়িতে এসে খবর জানালে প্রতিবেশী লোকজনসহ গিয়ে ধসেপড়া পাহাড়ের মাটি খুঁড়ে শিশুটিকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে।

বিজ্ঞাপন

হোয়ানক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তফা কামাল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গতকাল বিকাল থেকে ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে মাইকিং করে ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ের পাদদেশ থেকে লোকজনকে সরে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে।

গত ৬ জুন উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নে অফিস পাড়া গ্রামে পাহাড়ের পাদদেশে খেলতে গিয়ে ওই গ্রামের দিনমজুর মোহাম্মদ শাহজাহান টিপুর ও জাইতুন নাহার পাখি’র ৪ বছর বয়সি কন্যা জাইয়েন সুলতানা সুমাইয়া নিহত হয়।

আরেকজন এলাকাবাসীরা জানান, হোয়ানকের কালালিয়া কাটার পূর্বে দিকে পাহাড়ের ঢালুতে ঝুঁকিপূর্ণভাবে প্রায় ৩ শতাধিক মানুষ বসবাস করছে। অতি বর্ষণের সেসময়ে পাহাড়ে ঢালু থেকে তাদেরকে দ্রুত সরিয়ে না নিলে ভয়াবহ দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

এ ব্যাপারে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান বর্ষায় পাহাড়ি এলাকায় বসবাসকারী লোকজনকে বিশেষ করে শিশুদের ভাঙ্গনরত পাহাড়ের পাদদেশ থেকে নিরাপদে রাখার আহ্বান জানান।