চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নায়িকা দর্শনার আবিরে রঙিন হলেন শাকিব!

“ওরে গৃহবাসী
খোল দ্বার খোল, লাগল যে দোল
স্থলে, জলে, বনতলে লাগল যে দোল
দ্বার খোল, দ্বার খোল।”

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতার মতোই বিশেষ এই দিনে বরাবরই দোলে মেতে উঠে বাঙালি। আবিরের রঙে রঙিন হয়ে উঠে চারদিক। আট থেকে আশি, কেউ বাদ যান না এই রঙের খেলা থেকে। কিন্তু এবার পরিস্থিতি ভিন্ন। চলছে করোনাকাল। সকলকে মানতে হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি! তবে এরমাঝেও কলকাতার নায়িকা দর্শনা বণিকের আবিরের রঙে রঙিন হয়ে উঠেন দেশের তারকা অভিনেতা শাকিব খান!

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জন্মদিনেও ‘অন্তরাত্মা’ ছবির শুটিং করছেন ঢাকাই ছবির শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। আছেন পাবনায়। এই ছবির শুটিং স্পটেই রবিবার (২৮ মার্চ) হঠাৎ তাকে আবির মেখে রাঙিয়ে দিলেন নায়িকা দর্শনা! কিছু বুঝে উঠার আগেই লাল, নীল, হলুদসহ হরেক রঙে রঙিন হয়ে উঠেন শাকিব।

গায়ের পাঞ্জাবি দেখে বোঝার উপায় নেই, একটু আগেও এটা ছিলো ধবধবে সাদা! নায়ক প্রথমে কিছু বুঝতে পারছিলেন না। না বুঝে নায়কও আবির হাতে নিয়ে মেখে দিলেন নায়িকাকে! এরপরই সারা শুটিং ফ্লোরে হইহুল্লোড় পড়ে যায়। শুরু হয় একে অপরকে আবির মেখে দেওয়ার প্রতিযোগিতা!

বিজ্ঞাপন

কিছুক্ষণ পর জানা গেলো আসল ঘটনা। সনাতনী হিন্দু ধর্মের দোল পূর্ণিমা। এই তিথিতে বৃন্দাবনে রাধা-কৃষ্ণ একসঙ্গে হোলি খেলে রঙিন হয়ে উঠেছিলেন। হিন্দু ধর্মালম্বীদের বিশ্বাস এই পূর্ণিমাতে সামান্য কিছু পূজা অর্চনা তাদের জীবনে শুভ ফল আনবে।

এমন শুভ দিনে শুটিংয়ের ফাঁকে নায়িকা দর্শনা তাই এ পরিকল্পনা এঁটেছিলেন নায়ককে জন্মদিনে আবিরে রাঙাতে। এই দিনে শুটিংয়ের শেষে এসে ছবিটির প্রযোজক সোহানী হোসেন ও পরিচালক ওয়াজেদ আলী সুমন নায়ককে দ্বিতীয়বারের মতো চমকে দিতে যখন জন্মদিনের কেক কাটেন এ সুযোগটাই কাজে লাগান নায়িকা।

সবার মাঝে শাকিবের গালে জামায় মেখে দেন বাহারি রং। শাকিব খান এদিন ৪২ বছরে পা রাখলেন! বিশেষ এ দিনটি ঢাকায় থাকা হয়নি ‘কিং খান’ এর। আছেন পাবনা সদরে। এখানে আসন্ন ঈদের সিনেমা ‘অন্তরাত্মা’র শুটিং করছেন। সোহানী হোসেনের প্রযোজনায় সিনেমাটি পরিচালনা করছেন ওয়াজেদ আলী সুমন। জন্মদিন উপলক্ষে প্রযোজক সোহানী হোসেন বিশেষ চমক দেন শাকিব খানকে, যা এ নায়ক কখনও ভুলবেন না বলে জানিয়েছেন।

জন্মদিনের প্রথম প্রহরে অন্তরাত্মার প্রযোজক ও কাহিনীকার সোহানী হোসেন রাত ১২ টা ১ মিনিটে দুটি হাতি ও ব্যান্ডপার্টি, সমগ্র রিসোর্টে আলোকসজ্জা ও শাকিবের ব্যানার দিয়ে মোড়িয়ে দিয়ে চমকে দেন। বিরাট জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনে শাকিবকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে কেক কাটেন। যা দেখে শাকিব খান বিস্মিত হন। পরে রবিবার রাতে আবার ও গেটটুগেদার আয়োজন করেন।