চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ধর্মান্তরিত করে বাল্যবিবাহের ঘটনা তদন্তে ইমরান খানের নির্দেশ

পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে হিন্দু ধর্মাবলম্বী দুই কিশোরীকে অপহরণ করে জোরপূর্বক ধর্মান্তরিত করার পর বাল্যবিয়ে দেয়ার অভিযোগ তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিজে।

যত দ্রুত সম্ভব মেয়ে দু’টিকে উদ্ধার করতে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশও দিয়েছেন তিনি।

রোববার উর্দু ভাষায় প্রকাশিত এক টুইটবার্তায় পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী এ কথা জানান।

অভিযোগপত্র অনুসারে, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম উৎসব হোলির সন্ধ্যায় সিন্ধুর ঘোটকি জেলায় ১৩ বছর বয়সী রাভিনা ও ১৫ বছর বয়সী রিনাকে নিজ বাড়ি থেকে এক দল লোক ‘ভুলিয়ে ভালিয়ে’ বের করে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

অপহরণের কিছু সময় পরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। সেখানে দেখানো হয়েছে, একজন কাজী ওই দুই মেয়েকে ইসলামিক রীতিতে বিয়ে দিচ্ছেন। এরপর প্রকাশিত আরেকটি ভিডিওতে দুই কিশোরীকে বলতে শোনা যায় যে, তারা স্বেচ্ছায় ইসলাম গ্রহণ করেছে।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে টুইটবার্তায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, রাভিনা ও রিনাকে পাঞ্জাবের রহিম ইয়ার খান শহরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে – তথ্যটি খতিয়ে দেখতে সিন্ধুর মুখ্যমন্ত্রীকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরও জানান, ইমরান খান সিন্ধু ও পাঞ্জাব সরকারকে এ বিষয়ে একটি যৌথ কর্মপরিকল্পনা তৈরি করতে নির্দেশ দিয়েছেন, এবং যথাযথ কঠোর পদক্ষেপ নিতে বলেছেন যেন এমন কোনো ঘটনা আর না ঘটে।

ইমরান খান বলেছেন, ‘পাকিস্তানের সংখ্যালঘুরা হলেন আমাদের পতাকার সাদা অংশ, আর পতাকার সবগুলো রঙই আমাদের কাছে অত্যন্ত মূল্যবান। এই পতাকার সুরক্ষা নিশ্চিত করা আমাদের দায়িত্ব।’

এর আগে শনিবার ফাওয়াদ চৌধুরী জানিয়েছিলেন, সরকার জোর করে ধর্ম পাল্টে বাল্যবিয়ে দেয়ার অভিযোগটি আমলে নিয়েছে। এ ব্যাপারে সরকারের ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাসও দিয়েছিলেন তিনি।

শেয়ার করুন: