চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চারদিনেই পাল্টে গেল বিশ্বকাপের চেহারা

এক সপ্তাহ আগেও ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলসের চলতি বিশ্বকাপকে সাম্প্রতিককালের সবচেয়ে বিরক্তিকর ও অরুচিকর বিশ্বকাপ হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছিল। বৃষ্টির কারণে একের পর এক ম্যাচ ভেসে গেছে। চারটি ম্যাচ তো এক বল মাঠে গড়ানোর আগেই পরিত্যক্ত হয়।

বৃষ্টি বিরক্তির সঙ্গে ছিল এক তরফা ম্যাচের আমেজ। প্রথম ১০ দিনের ফলাফল দেখে মনে হচ্ছিল বিশেষজ্ঞ ও সমর্থকদের আন্দাজই মিলে যাচ্ছে। বিশ্বকাপ শুরুর আগে অধিকাংশ বিশেষজ্ঞই সেমিফাইনালের যে চারটি দলের কথা বলেছিলেন, তারা সবাই প্রায় জিতছিল। আন্দাজের তালিকায় ভারত, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ছিল অবশ্যই ইংল্যান্ড।

বিজ্ঞাপন

নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তানের সঙ্গে লো-মার্জিনে হারলেও ফেভারিট তালিকায় থেকে এই সময়ে কেউই ইংলিশদের বাদ দেয়নি। তবে যা একটু বেমানান ছিল সাউথ আফ্রিকার বিষয়টি। যারা আফগানিস্তানের সঙ্গে পয়েন্ট তালিকার তলানিতে গলাগলি করছে।

এই সপ্তাহে এসে সবকিছুই পাল্টে গেছে। বিশেষ করে ২০-২৩ জুন। অনেক কিছু না পাওয়া, না দেখার আক্ষেপ ঘুচিয়ে বিশ্বকাপ একটি আসল প্রতিযোগিতা হিসেবে ধরা দেয়। এই সময়ে চারদিনে পাঁচটি ম্যাচ হয়েছে। সম্ভবত টুর্নামেন্টের সবচেয়ে সহজ প্রত্যাশিত কিছু কিছু ম্যাচ পাল্টে গিয়ে সত্যিই কঠিন ম্যাচে পরিণত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আন্ডারডগস হিসেবে নেমেও বাংলাদেশ তাদের দুর্দান্ত ক্রিকেট দিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে যে দৌড়ানি দিয়েছে। আফগানিস্তান, যারা টুর্নামেন্টে একটি ম্যাচও জেতেনি, তারা অপরাজিত ভারতকে প্রায় উল্টেই দিয়েছিল। একই রাস্তায় চলে আরেক অপরাজিত দল নিউজিল্যান্ডকে খাদের কিনারায় ঠেলেও শেষ পর্যন্ত অতিশয় বেদনাদায়ক হার মানতে হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে।

কিন্তু এই ক্লোজ ম্যাচগুলোর মধ্যে সম্ভবত সবচেয়ে বড় চমক হিসেবে আসে স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে শ্রীলঙ্কার হারিয়ে দেয়াটা। এই ম্যাচের ফলাফলই পয়েন্ট টেবিলে চতুর্থ স্থানের জায়গাটা অনেক বেশি অরক্ষিত করে তুলেছে।

সেমিফাইনালের দৌড়ে বাংলাদেশ তো আছেই। সেই সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তান বা শ্রীলঙ্কারও সেমিফাইনালের সম্ভাবনা এখন রয়েছে।

তাছাড়া আফগানিস্তান তো ভারতকে প্রায় হারিয়েই দিয়েছিল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং বাংলাদেশ দারুণ ফর্মে রয়েছে, পাকিস্তান টুর্নামেন্ট থেকে সাউথ আফ্রিকাকে বিদায়ই করে দিয়েছে। এভাবে প্রতিযোগিতা বেড়ে যাওয়ায় শীর্ষ চারের ক্ষেত্রে অনেকের রাস্তাই এখন হুমকিতে।

আগেরদিন আফগানিস্তানকে দুমড়ে-মুচড়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার একে অপরের সামনে ক্রিকেটের দুই পুরনো ‘শত্রু’ ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া। যে ম্যাচকে বিশ্বকাপের ‘অ্যাশেজ’ বলা হচ্ছে। এই ম্যাচ আবার স্বাগতিক ইংল্যান্ডের জন্য এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জিং ম্যাচ।