চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ইশ! লেখককে যদি আরেকটু সময় দিতে পারতাম’

দেশীয় চলচ্চিত্রের কিংবদন্তী অভিনেত্রী তিনি। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে প্রায় তিনশো’র মতো ছবিতে অভিনয় করেছেন। চলচ্চিত্রে তার শুরুটা হয়েছিল বিংশ শতকের ষাটের দশকের শেষ দিকে। তিনি সত্যজিৎ রায়ের ‘অশনি সংকেত’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র অঙ্গনে প্রশংসিত হন। বাংলা চলচ্চিত্রে তার অবদান প্রজন্মের পর প্রজন্ম স্মরণ করবে।

বলছি অভিনেত্রী ববিতার কথা। চলতি বইমেলায় প্রকাশ হয়েছে তাকে নিয়ে তরুণ লেখক সাজ্জাদ হুসাইনের বই ‘বিস্ময়ে ববিতা’। সিনেমাসহ ববিতার জীবনের নানা দিক উঠে এসেছে বইটিতে।

সত্যজিতের ফটোগ্রাফার ছিলেন নিমাই ঘোষ। তাঁর ‘অশনি সংকেত’ সিনেমার শুটিং সেটেও তিনি ছবি তুলেছেন। আর এই ছবিতে অভিনয় করতে যেয়েই ববিতা ও নিমাই ঘোষের পরিচয়। এই ফটোগ্রাফার মারা গেছেন গেল বছরের ২৫ মার্চ। ‘বিস্ময়ে ববিতা’র লেখক বলছেন, মৃত্যুর বছর খানেক আগে ববিতার কিছু অপ্রকাশিত রঙিন ছবি দিয়েছিলেন নিমাই ঘোষ। কালীঘাটের বাড়িতে বসে অনেক গল্পও করেছেন ববিতাকে নিয়ে। অন্যসব গল্পের সাথে সেই সব গল্পও পাওয়া যাবে বইটিতে।

এরইমধ্যে ‘বিস্ময়ে ববিতা’ বইটি হাতে পেয়েছেন ‘দহন’ খ্যাত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রী। চ্যানেল আই অনলাইনকে জানিয়েছেন, ‘খুব সুন্দর হয়েছে বইটি। করোনার কারণে আমি খুব বেশি সময় দিতে পারিনি লেখককে। তারপরেও ফোনে যতোটুকু সময় দিয়েছি, তাতেই তিনি খুব দারুণ কাজ করেছেন।’

বিজ্ঞাপন

ববিতা জানালেন, বইটি তিনি পড়তেও শুরু করেছেন। বললেন, ‘যতোটুকু পড়েছি তাতে আমার কাছে বেশ লেগেছে। বইটি পড়ে মনে হচ্ছে, ইশ! যদি লেখককে আরেকটু সময়ে দিতে পারতাম।’

বইটিতে কী ধরনের স্মৃতিকথা আছে? এটা কি জীবনী? এ প্রসঙ্গে ববিতা জানান, ‘না, এটা জীবনী নির্ভর কোনো বই নয়। তবে এতে সত্যজিৎ রায়ের সাথে কাজের অভিজ্ঞতাকেই বেশি প্রাধান্য দেয়া হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, সত্যজিৎ রায়ের ফটোগ্রাফার নিমাই ঘোষকে ফোকাস করেই শুরু হয়, এরপর মেইনলি সত্যজিৎ রায়, জহির রায়হান, সুভাষ দত্ত, নারায়ণ ঘোষ মিতা, আমজাদ হোসেন- এরকম যারা বিখ্যাত নির্মাতা আছেন এবং যাদের সাথে আমি কাজ করেছি তাদের সাথে কাজের অভিজ্ঞতাই বইটিতে উঠে আসবে।

গেল শুক্রবার (২৬ মার্চ) বইটি প্রকাশ পেয়েছে। পাওয়া যাচ্ছে একুশে বইমেলার ৪৮৯ নম্বর স্টলে। বইটির মূল্য ৩৫০ টাকা। এরআগে ২০১৮ সালে একই লেখক কলকাতার তারকা নির্মাতা, অভিনেতা ও শিল্পী অঞ্জন দত্তকে নিয়ে লিখেছিলেন ‘অঞ্জনযাত্রা’।

বিজ্ঞাপন