আব্দুল্লাহ আল সাফি
আব্দুল্লাহ আল সাফি

আউটপুট এডিটর, চ্যানেল আই অনলাইন https://www.facebook.com/shafi.abdullah shafidocs@gmail.com

সম্প্রতি দেশজুড়ে বয়ে যাওয়া রেকর্ড কম তাপমাত্রা সহকারে শৈত্যপ্রবাহের পরে ধীরে ধীরে উঞ্চ হয়ে উঠছে আবহাওয়া। ঋতু পরিবর্তনের খেলায় শীতকাল চলে গিয়ে আসছে বসন্তকাল। ঋতুর মতো রাজনৈতিক পালাবদলের আভাস পাওয়া যাচ্ছে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে। একাদশ সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে আবহাওয়ার মতো দেশের রাজনৈতিক আবহাওয়াও গরম হয়ে উঠছে। সেই গরম রাজনৈতিক পরিবেশে লু হাওয়া আনতে শুরু করেছে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নামে দায়েরকৃত জিয়া অরফানেজ মামলা রায়ের তারিখ। ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ হবে ওই রায়। ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপাসন বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ৬ জনের রায় ঘোষণা হবে। এ মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে।

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on বুধবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ১০:৩২

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষক মোবাশ্বের হাসান সিজার নিখোঁজের হিসেব এখনও মেলেনি। কোথায় আছে, কেমন আছে, কবে ফিরে আসবে, এমন নানা প্রশ্ন নিয়ে অপেক্ষায় আছে সিজারের পরিবার, সহকর্মী ও গণমাধ্যম কর্মীরা। দেশে-বিদেশের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়ালেখা করে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাংবাদিকতা, আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থায় চাকরি, বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পের সঙ্গে সর্ম্পকযুক্ত, বন্ধুমহলে হাস্যোজ্বল একজন মানুষের এভাবে চোখের আড়ালে চলে যাওয়াটা কষ্টের। এ বছরের ৭ নভেম্বর থেকে নিখোঁজ রয়েছে সে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তথ্য মতে, নিখোঁজের দিন ৭ নভেম্বর সন্ধ্যা পৌনে সাতটা থেকে সিজারের ফোন বন্ধ, সন্ধ্যা ৬ টা ৪১ মিনিটে তার ফোনে সর্বশেষ কল এসেছিল, তখন সে বেগম

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৭ ১৪:৪৮

মিয়ানমারে নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মাঝে ত্রাণ ও অন্যান্য সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনা ছাড়াও সমন্বয়ও করছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে সেনাবাহিনী কাজ শুরু করার পরে সেখানকার কাজে শৃঙ্খলাসহ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার হয়। সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে আসার আগে যত্রতত্র ত্রাণ ও নগদ অর্থ বিতরণ করতে গিয়ে পদদলিত হয়ে মৃত্যুসহ নানা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছিল। কিন্তু, এখন সবকিছু একটি নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতিতে পরিচালিত হচ্ছে। রোহিঙ্গারা তাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে এক অত্যাচারী সেনাবাহিনীকে দেখেছে। পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে তারা দেখছে এক মানবিক সেনাবাহিনীর রূপ। আইএসপিআর সূত্রে জানা গেছে, গত ২১ সেপ্টেম্বর কক্সবাজার জেলা প্রশাসন রোহিঙ্

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ ১৮:৪২

কক্সবাজারের পর্যটন মৌসুম শুরুর আগেই রোহিঙ্গা ইস্যুতে স্থানীয় হোটেল, পরিবহন ও পর্যটন কেন্দ্রগুলো জমজমাট ব্যবসা করছে। প্রতিবছর ১৬ ডিসেম্বর থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত কক্সবাজারে পর্যটন মৌসুম হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। এ বছর ২৫ আগষ্ট রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আসা শুরু হওয়ার পর তাদের সহায়তা কার্যক্রমকে কেন্দ্র করে মৌসুমের সুবাতাস পেতে শুরু করেন কক্সবাজার ও টেকনাফের হোটেল-মোটেল-রিসোর্ট ব্যবসায়ীরা। বিদেশি বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থা ও দেশীয় বিভিন্ন বড়-ছোট সংস্থার ত্রাণ ও পুনর্বাসন কাজে নিযুক্তদের সাময়িক আবাসস্থল হয়ে উঠেছে কলাতলীসহ পুরো কক্সবাজারের হোটেলগুলো। ৫ তারকার মানের হোটেলসহ ভালমানের অনেক হোটেলে বুকিং পাওয়া বেশ কষ্টসাধ্য হয়ে উঠেছে বলে সরেজমিনের দেখা গেছে। গত ২৫ আগষ্টের পরে দেশে রোহিঙ

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on রবিবার , ১৯ নভেম্বর ২০১৭ ১৯:১৯

প্রায় দুই মাস আগে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থাসহ দেশি-বিদেশি বহু প্রতিষ্ঠান। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসার প্রায় সব ধরণের আয়োজনে রোহিঙ্গাদের জীবনে এসেছে স্বস্তি। প্রথম প্রথম ত্রাণের জন্য হাহাকার আর হুড়োহুড়ির চিত্র থাকলেও বর্তমানে পর্যাপ্ত ত্রাণ সরবরাহ এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীসহ স্থানীয় প্রশাসনের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোকে মনে হতে পারে বাংলাদেশের কোন শহর। সরেজমিন রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন ক্যাম্প ঘুরে এমনটাই দেখা গেছে। ২৫ আগষ্টের পর পালিয়ে আসা সোয়া ৬ লাখ রোহিঙ্গা এখন কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ১৬টি ক্যাম্পে অবস্থান করছে। উখিয়া থেকে টেকনাফমুখি প্রধান সড়ক থেকে ক্যাম্পগুলোতে ঢোকার মুখে সেনা পাহারা পেরিয়ে

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on বুধবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৭ ১৪:৪৮

দেশে প্রবেশ করা রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পের কারণে প্রাকৃতিক বন, সামাজিক বনায়নের গাছ কাটা ও পাহাড় ধ্বংসের পাশাপাশি জীববৈচিত্র পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছে।  বর্তমানে বৃষ্টির প্রকোপ না থাকার কারণে কিছু স্বস্তি থাকলেও বর্ষাকালে অথবা হঠাৎ বৃষ্টিপাত হলে ভয়াবহ পাহাড় ধসে বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গাদের প্রাণহানি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন পরিবেশ সংশ্লিষ্টরা। বন ধ্বংসের হিসেবে কক্সবাজারেই প্রায় সাড়ে চার হাজার একর সংরক্ষিত বন ধ্বংস করে ক্যাম্প স্থাপন করে থাকছে রোহিঙ্গারা। বন বিভাগের হিসাবে শুধুমাত্র সামাজিক বনায়নের গাছের আর্থিক মূল্য প্রায় ৫০০ কোটি টাকা। প্রাকৃতিক বনের গাছ হিসাব করলে ক্ষতির পরিমাণ বহুগুণ বাড়বে। বন বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ১৯ অক্টোবর পর্যন্ত হিসাব অনুযায়ী ১ হাজার ৬৪৫ এ

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on রবিবার , ১২ নভেম্বর ২০১৭ ২৩:১৫

কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ১৬টি স্থায়ী-অস্থায়ী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এখন পর্যন্ত ৫৫ জন এইচআইভি-এইডস আক্রান্ত রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশু সনাক্ত করা হয়েছে। এইচআইভি-এইডস আক্রান্তদের মধ্যে মিয়ানমারে থাকা অবস্থায় ৫১ জন এবং বাংলাদেশে আসার পরে নতুন ৪ জনকে সনাক্ত করা হয়েছে।  গত ২১ সেপ্টেম্বর মরিয়ম নামের এইডস আক্রান্ত এক রোহিঙ্গা তরুণী কক্সবাজার হাসপাতালে মারাও গেছে। চ্যানেল আই অনলাইনকে ফোনে এসব তথ্য জানিয়েছেন কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ডা. আব্দুস সালাম।  এইচআইভি প্রতিরোধক সচেতনতার অভাব ও জন্ম-নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা গ্রহণের অভ্যাসের অভাবে এইচআইভি-এইডসসহ নানা যৌন সংক্রামক ব্যাধি বাড়তে পারে বলে জানান তিনি। শিশুরাও আছে সংক্রমণ ঝুঁকিতে। সিভিল সার্জন আরও আশঙ্কা করেছেন, ম্যালেরিয়াপ্রবণ মিয়ানমার থেকে

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on বৃহস্পতিবার, ০৯ নভেম্বর ২০১৭ ১৭:২৪

'মিয়ানমার একটি স্বাধীন দেশ এখানে মুক্তভাবে চলাচলের অধিকার আছে আমাদের দেশ, আমাদের মাটি এদেশ একটি নিরাপদ দেশ।' এই সুন্দর বাক্যগুলো নিয়েই তৈরি মিয়ানমারের জাতীয় সঙ্গীত। উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের শিশুদের একটি স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায়, সেখানকার খুদে শিক্ষার্থীরা তাদের নিয়মিত পাঠের সঙ্গে তাদের দেশ মিয়ানমারের জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে দেশের প্রতি শ্রদ্ধা জানান দিয়ে থাকে। শিশু কসমিত আরা ও নজিমুল হাসান মনের সব আবেগ দিয়ে তার সহপাঠীদের নিয়ে গেয়ে চললো মিয়ানমারের জাতীয় সঙ্গীত। যদিও কিছুদিন আগে সেই দেশ থেকে তারা বহন করে এনেছে ভয়াবহ স্মৃতি আর স্বজন হারানোর বেদনা। মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের তাদের দেশের নাগরিক হিসেবে স্বীকার না করে রোহিঙ্গাদের 'বেঙ্বলি' বলে সারাবিশ্বে অপপ্রচার চাল

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on বুধবার, ০৮ নভেম্বর ২০১৭ ১৩:১০

ড. সেলিম জাহান একজন কৃতি বাংলাদেশি। তিনি নিউইয়র্কে জাতিসংঘের উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) মানব উন্নয়ন প্রতিবেদন কার্যালয়ের পরিচালক। জাতিসংঘের মানব উন্নয়ন প্রতিবেদনের মূল লেখক টিমের অন্যতম সদস্য তিনি। এর আগে ১৯৯৩ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত জাতিসংঘের মানব উন্নয়ন প্রতিবেদন কার্যালয়ের উপপরিচালক হিসেবে নয়টি বৈশ্বিক মানব উন্নয়ন প্রতিবেদন প্রণয়নের ‘কোর টিমের’ সদস্য ছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ থেকে পড়াশোনা করে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগেই দীর্ঘদিন অধ্যাপনা করেছেন। ১৯৯২ সালে ইউএনডিপিতে যোগ দেওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েই ছিলেন। শিল্প-সাহিত্যের জগতেও রয়েছে তার সরব উপস্থিতি। রবীন্দ্রনাথের অর্থ-চিন্তা বিষয়ে প্রবন্ধ লিখেছেন সেই

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on সোমবার, ২৮ অগাস্ট ২০১৭ ১৬:৫৪

একসময় চরম অবহেলার শিকার দেশের পর্যটন খাত নানা প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। বিপুল পরিমান বেসরকারি ও ব্যক্তি উদ্যোগের সঙ্গে সরকারের মনোযোগে এই অগ্রগতি বলে জানিয়েছেন এখাতের সংশ্লিষ্টরা। তবে দৃশ্যমান কিছু সমস্যা-প্রতিবন্ধকতার কারণে এখনও আশানুরুপ সেবা দিতে না পারার আক্ষেপ রয়েছে তাদের মধ্যে। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কে‌ন্দ্রে শুরু হওয়া ৩ দিনব্যাপী ‘ইন্টারন্যাশনাল ট্যুরিজম ফেয়ার-২০১৭’ এ অংশ নেয়া পর্যটনখাতের উদ্যোক্তারা আর আয়োজকরা চ্যানেল আই অনলাইনকে এমনটিই জানিয়েছেন। পর্যটনকে কেন্দ্র করে অর্থনৈতিক বিকাশ ঘটিয়ে ইতোমধ্যে বিশ্বের বহু দেশ প্রমাণ করেছে, পর্যটন অর্থনৈতিক উন্নয়নের অন্যতম মাধ্যম। সিঙ্গাপুর, তাইওয়ান, হংকং, থাইল্যান্ড ও মালয়েশিয়ার জাতীয় আয়ের একটা বড় অংশ অর্

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on শুক্রবার, ১১ অগাস্ট ২০১৭ ১৮:১২