চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

লেভান্ডোভস্কির পরিবর্তে রোনালদোকে চায় বায়ার্ন

রবার্ট লেভান্ডোভস্কি জানিয়ে দিয়েছেন বায়ার্ন মিউনিখ ছাড়ছেন এবং বার্সেলোনা ছাড়া আর কারও প্রস্তাব বিবেচনা করেননি। তার পরিবর্তে সাদিও মানেকে লিভারপুল থেকে দলে টেনেছে বাভারিয়ানরা, এমন আলোচনাই ছিল। নতুন খবর, পোলিশ স্ট্রাইকারের পরিবর্তে ক্লাবটির নজর এখন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর দিকে।

২০১৪ সালে ৫০ মিলিয়ন ইউরোয় বরুশিয়া ডর্টমুন্ড ছেড়ে বায়ার্নে আসেন লেভান্ডোভস্কি। ঠিক সেই অর্থেই, অর্থাৎ ৫০ মিলিয়নেই তাকে ছাড়তে প্রস্তুত বাভারিয়ান দলটি। বার্সেলোনার আর্থিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে বলেও খবর। তারপরও এই দামে লেভাকে কাতালান ক্লাবটি কিনতে পারবে কিনা সেই শঙ্কাও দূর হয়নি।

Reneta June

সেই কারণেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে ফুটবলার বিনিময়ের কথা ভাবছে বায়ার্ন। লেভাকে ইউনাইটেডে আসছে গ্রীষ্মে দলে পাওয়ার বিষয়টি ইতিবাচকভাবে নেবে বলে আশা করছে তারা। বুন্দেসলিগা চ্যাম্পিয়নরা লেভার বদলে রিয়াল মাদ্রিদের সাবেককে দলে টানার জন্য মুখিয়ে। চাওয়া পূরণ হলে সেটি হবে ফুটবল অঙ্গনের সব বিনিময় চুক্তির সেরা চুক্তি।

বিজ্ঞাপন

লিভারপুল থেকে সাদিও মানেকে নেয়া সত্ত্বেও জার্মান চ্যাম্পিয়নরা তাদের তারকা স্ট্রাইকার লেভান্ডোভস্কিকে ছাড়তে রাজি নয়। উপযুক্ত বিকল্প খুঁজে না পাওয়া পর্যন্ত তারা অপেক্ষা করতে চায়। রোনালদোকে পাওয়াই কেবল সেই বিকল্প হতে পারে। রোনালদোকে আনার ব্যাপারে বায়ার্ন আলোচনার দরজা আন্তরিকতার সঙ্গেই খোলা রেখেছে বলে খবর।

এদিকে ইউনাইটেডে নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবতে শুরু করেছেন রোনালদো। ট্রান্সফার মার্কেটে ইউনাইটেডের নিষ্ক্রিয় কার্যকলাপে তিনি হতাশ। ম্যানচেস্টার সিটি নরওয়েজিয়ান ‘বিস্ময়’ আর্লিং হালান্ডকে এবং স্ট্রাইকার ডারউইন নুনেজকে দলে টেনেছে লিভারপুল। অথচ রেডডেভিলরা এমন বড় কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি। ফলে এই দল নিয়ে শিরোপা জেতা সম্ভব কিনা- তা ভাবাচ্ছে রোনালদোকে।

আর্থিক বিবরণী থেকে জানা যাচ্ছে, বায়ার্নে লেভান্ডোভস্কি ৯ মিলিয়ন ইউরো পারিশ্রমিক পান। এ পরিমাণ পারিশ্রমিক পেলে রোনালদো এমন বিনিময় চুক্তি সাদরেই গ্রহণ করতে পারেন। পর্তুগিজ মহাতারকার ওল্ড ট্রাফোর্ডে চুক্তির একবছর বাকি। ইউনাইটেড পরের বছর তাকে ফ্রি এজেন্ট হিসেবে হারানোর পরিবর্তে মোটা অঙ্কের ফি গ্রহণ করতে চাইবে। কারণ এরিক টেন হাগ দল পুনর্গঠনের জন্য বিপুল অর্থ খরচ করতে চাইছেন।