চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাংলাদেশি অভিবাসীদের প্রশংসা করলেন তাবুকের গভর্নর

বাংলাদেশি অভিবাসীদের সহনশীলতা ও তাঁদের কাজের প্রশংসা করেছেন সৌদি আরবের তাবুক প্রদেশের গভর্নর প্রিন্স ফাহাদ বিন সুলতান আল সউদ।

সৌদি আরব ও বাংলাদেশের সরকার ও জনগনের মধ্যে খুবই হৃদ্যতাপূর্ন সম্পর্ক রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

Reneta June

সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী  আজ তাবুকের গভর্নর প্রিন্স ফাহাদ বিন সুলতান আল সউদ এর সাথে বৈঠককালে গভর্নর এ কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

তাবুকের গভর্নর দুদেশের সম্পর্ক ব্যবসা বাণিজ্য, বিনিয়োগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে আগামী দিনে আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশা প্রকাশ করেন। তিনি বাংলাদেশের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন। এ সময় রাষ্ট্রদূত গভর্নরকে জানান তাবুক প্রদেশের বিভিন্ন শহরে অনেক বাংলাদেশি কর্মরত রয়েছে। এ অঞ্চলে কর্মরত বাংলাদেশি অভিবাসীদের প্রশংসা করে গভর্নর বলেন, তিনি তাঁদের নিজের লোক বলে মনে করেন। তাঁদের সাহায্য সহযোগিতা করা তিনি তাঁর দায়িত্ব বলে মনে করেন।

রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, লোহিত সাগরে মৎস্য আহরনে বাংলাদেশীদের দক্ষতা কাজে লাগানো এবং তাবুকের কৃষি উপযোগী জমিতে বাংলাদেশের কৃষি অভিজ্ঞতা কাজে লাগানো যেতে পারে বলে রাষ্ট্রদূত উল্লেখ করেন।

এছাড়া তাবুকে সৌদি আরবের সবচেয়ে বড় প্রকল্প নিওম বাস্তবায়নের সফলতা কামনা করেন রাষ্ট্রদূত। তাবুকে রয়েছে বিভিন্ন ঐতিহাসিক পর্যটন স্থান। এখানে রয়েছে লোহিত সাগর ও এর মনোরম সমুদ্র সৈকত। এ সকল দর্শনীয় স্থানের কথা তুলে ধরে রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের বিভিন্ন পর্যটন স্থানের সাথে সহযোগিতার মাধ্যমে দুদেশের মধ্যে পর্যটন বৃদ্ধির বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এছাড়া দুদেশের সংস্কৃতি বিনিময়ের কথা ও রাষ্ট্রদূত উল্লেখ করেন।

এর আগে রাষ্ট্রদূত গতকাল বিকেলে তাবুকের পুলিশ প্রধান মেজর জেনারেল ইব্রাহিম বিন সুলতান আল যাবান এর সাথে বৈঠক করেন। এ সময় রাষ্ট্রদূত তাবুক অঞ্চলে বসবাসরত বাংলাদেশিদের সহায়তার অনুরোধ জানান। এছাড়া বিপদগ্রস্ত বাংলাদেশি গৃহকর্মীদের সেফ হাউজে স্থান দেয়ার অনুরোধ জানান । তাবুকের পুলিশ প্রধান অভিবাসী বাংলাদেশীদের প্রশংসা করে বলেন, বাংলাদেশিরা এখানে সৌদি আইন কানুন মেনে চলে এবং কোনপ্রকার অন্যায় কাজে জড়িত নয়।

এ সকল সভায় জেদ্দাস্থ বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল মোঃ নাজমুল ইসলাম ও দূতাবাসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।