চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান থেকে বলছি

এই সেই ময়দান, যেখানে একদা একটি মুজিবরের কণ্ঠ লক্ষ মুজিবরের কণ্ঠ স্বরের ধ্বনি প্রতিধ্বনি হয়ে বেজে উঠেছিল। এই সেই জায়গা, যেখানে একদিন আকাশে বাতাসে রণিত হয়েছিল একটি জাতির নামে একটি দেশের নাম, ‘বাংলাদেশ’। এই ছায়ায় মায়ায় ঘেরা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পথের বাঁকে বাঁকে আজও রণিত হয় সেই দীপ্ত দরাজ স্বর….. ‘রক্ত যখন দিয়েছি, রক্ত আরো দেবো। এই দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়ব ইনশাআল্লাহ। এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম। জয় বাংলা।’ উনিশশো একাত্তরের পথ বেয়ে, পঁচাত্তরের রক্তনদী মাড়িয়ে এতগুলো বছর…

তসলিমা নাসরিন বনাম মাসুদা ভাট্টি

আমি আপাতত দুজনের উপর মহা বিরক্ত। মাসুদা ভাট্টিকে চরিত্রহীন বলার পর আমার জানা মতে বাংলাদেশে সবার প্রথম আমি স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম, আমি চরিত্রহীন। তবে ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেনের এই চরিত্রহীন বলাটাকে আমি প্রথমত নিয়েছি রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে। এর কারণ পরিষ্কার ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেনকে মাসুদা ভাট্টি প্রশ্ন করেছেন, তিনি জামাত শিবিরের সাথে সংশ্লিষ্ট কিনা, কারণ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেই প্রমাণ বহন করে এমন ভিডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল তার আগের দিন রাত থেকেই। এই প্রশ্ন শুনে ব্যারিস্টার সাহেব তেলে বেগুনে জ্বলে উঠলেন। কারণ সামনের নির্বাচন…

আমার বন্ধু রাসেল!

এত যে বিষাদ চারিধারে আজ ! উত্তুরে হাওয়া হাহাকার করছে কান্না হয়ে। অথচ আজকের দিনটি তো এমন হবার কথা ছিল না...ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে আজ যে দেবশিশুর আগমন হয়েছিল তার জন্মোৎবের আলোক ছটা মেঘে মেঘে ভেসে বেড়াবার কথা ছিল। কথা ছিল তেতুলিয়া হয়ে বঙ্গোপসাগরে মিলিয়ে যাওয়ার। কীভাবে করব আমরা আজকের দিনকে বরণ । জাতি হিসেবে আমাদের দুর্ভাগ্য যে, ইতিহাসের কলংকজনক হত্যাকান্ডের নির্মম শিকার সেই দেবশিশুর হত্যাকারী আমরা নিজেরাই। ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর দিনটি চিরদিনের জন্য বিষাদ ভরা হয়ে রইল। আর কোন দিন প্রত্যুষে হাসবে না সূর্য । রাত জাগা পাখির ডানায় করে…

বঙ্গবন্ধু এভিনিউর রক্তিম শেষ বিকেল

২২ আগস্ট ২০০৪, ভোর ৭টা ৩০ মিনিট। এক যুগেরও বেশি হয়ে গেল! তবু ভুলতে পারিনি দুঃসহ এক সকালের স্মৃতি। তখন আমার বয়স কত? ১৫ এর শেষ বেলা। হলিক্রস কলেজে পড়ি তখন। এদেশে তখনও আসেনি নীল খামের ফেসবুক। দেশের খবর বলতে সেই বিটিভির খবর আর সকালের পত্রিকা। তাও আবার ১২ ঘণ্টার বাশি খবর। তখনও অনলাইন সংবাদের চল আসেনি । ২২ আগস্টের সেই দিনটি ছিল রোববার। ভুলোমনা আমার দিনক্ষণ মনে থাকার একটি বিশেষ কারণ ছিল-মিশনারি কলেজ রবিবার বন্ধ থাকে। তাই আমার কলেজও বন্ধ ছিল সেদিন। ২১ আগস্ট রাতে খুব অস্থির লাগছিল। বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে শেষ বিকেলের রক্তিম বিদায়ের…

কী ছিলো জার্মানির সেই গবেষণা প্রতিবেদনে?

জার্মান বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘বেরটেলসম্যান স্টিফটুং’ গত ২৩ মার্চ একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে ১২৯টি দেশের মধ্যে ৫৮টি দেশ এখন স্বৈরশাসনের অধীনে এবং ৭১টি দেশকে গণতান্ত্রিক বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এর সাথে বাংলাদেশকে ‘স্বৈরতান্ত্রিক’ দেশ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। বিষয়টি নাড়া দিয়েছে বাংলাদশের প্রত্যেকটি দেশপ্রেমী জনগণকে। এমনকি জাতীয় রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে এটি নিয়ে যথেষ্ট আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দলটির নীতিনির্ধারকেরা এ প্রতিবেদনের কঠোর সমালোচনা করে বলেছেন, যখনই…

যেভাবে জাতিসংঘের ওয়েবসাইটে যুক্ত হলো বাংলাদেশের নাম

জাতিসংঘের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ইভেন্টের বর্ণনার কোথাও বাংলা ভাষা, ভাষা আন্দোলন, বাংলাদেশের কথা উল্লেখ নেই! বিষয়টি চোখে পড়া মাত্রই চোখের সামনে মলিন হয়ে গেল আমার বাংলা মায়ের মুখ। ২১ এর ভোরে শহীদ মিনারে খালি পায়ে ফুল দিতে নিয়ে যাওয়া আজকের শিশুকে কী গল্প শুনাবো আমরা? ডিজিটাল গলিপথে রোজ ঘুরে বেড়ানো শিশুটি কি কেবল আমাদের মুখের কথায় ভরসা করবে? অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আমাদের জাতীয় চেতনার জায়গা। ভাষার জন্য বাঙালি জাতি রাজপথে রক্ত ঝরাতে পিছপা হয়নি। বায়ান্নর ২১ এর পথ বেয়ে বাষট্টির ৬দফা ,…