চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সরকারের সংযমী ব্যয় নীতি কতটা ইতিবাচক?

করোনাভাইরাস মহামারিতে এখনও নাকাল পুরো বিশ্ব। বাংলাদেশেও করোনার তৃতীয় ঢেউ আঘাত হানতে শুরু করেছে। এমন প্রেক্ষাপটে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানিয়েছেন: করোনাভাইরাসের কারণে নতুন অর্থবছরেও বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়নসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে সরকারের সংযমী ব্যয় নীতি অব্যাহত থাকবে।

চ্যানেল আই অনলাইনের প্রতিবেদনে জানা যায়, ‘অর্থমন্ত্রী বলেছেন: করোনা সংক্রমণের এই পরিস্থিতিতে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ব্যয় করা হবে না। কারণ উন্নয়ন ব্যয়ের নামে অপচয়ের চেয়ে এই মুহুর্তে টিকা কেনা, স্বাস্থ্য খাতসহ জীবন বাঁচাতে সহায়ক হয় এমন কাজে অর্থ বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে, এ কারণেই কিছুটা কৃচ্ছতার নীতি অনুসরণ করবে সরকার।’ স্বাস্থ্যখাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে সরকারের নেওয়া এ অবস্থানকে আমরা যৌক্তিক ও ইতিবাচক বলেই মনে করি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

তবে সোমবার থেকে দেশজুড়ে কঠোর লকডাউন শুরু হচ্ছে। এ অবস্থায় দরিদ্রদের নিয়ে নতুন করে পরিকল্পনা করতে হবে। দুঃস্থদের সহায়তা, নগদ অর্থ প্রদান অব্যাহত রাখার বিকল্প নেই। অর্থমন্ত্রী অবশ্য এ বিষয়টি বিবেচনায় রয়েছে বলেই জানিয়েছেন। তিনি বলেন: ‘সরকার দুঃস্থদের সহায়তা করে যাচ্ছে। নগদ অর্থ দিচ্ছে। যারা সমস্যায় আছেন বলে চিহ্নিত করা গেছে তাদের নগদ সহায়তা করা হয়েছে। প্রয়োজনে আরও করা হবে। এ বিষয়ে আলাদা কমিটি আছে। প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি দেখাশোনা করেন। কোনো ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে যেকোন সিদ্ধান্ত নেয়ার দরকার হলে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দেবেন।’

করোনা মহামারির শুরু থেকে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক বিরূপ প্রভাব বিচক্ষণতার সাথে মোকাবেলা করে আসছে। এখনও অর্থনীতিতে লকডাউনের প্রভাব নিয়ে আমরা শঙ্কিত। তবে এ অবস্থা থেকেও বাংলাদেশ ভালোভাবে বের হয়ে আসবে বলেই আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস। এজন্য গত বছরের লকডাউনের মধ্যেও যেভাবে লক্ষ্য অর্জিত হয়েছিল, সেভাবে এবারও লক্ষ্য অর্জনে সংশ্লিষ্টদের উদ্যমী হতে হবে। বিশেষ করে রাজস্ব, রেমিট্যান্স ও রিজার্ভ বাড়ানোর দিকে নজর দিতে হবে।

এসব পরিকল্পনার সবকিছু অর্জন তখনই সম্ভব হবে, যদি আমরা সবাই সচেতন হই, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুরক্ষিত ও সুস্থ থাকি। এজন্য মাস্ক পরাসহ যাবতীয় নিয়মকানুন মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা থাকলে বিগত বছরের ন্যায় এবারও করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশ সফল হবে বলেই আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস।

বিজ্ঞাপন