চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রাশিয়ায় কোয়ারেন্টাইন না মানলে ৭ বছরের কারাদণ্ড

মহামারী কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় কঠোর আইন অনুমোদন করেছে রাশিয়ার পার্লামেন্ট ডুমা।

কোয়ারেন্টাইনের শর্তগুলোর গুরুতর লংঘনের দায়ে সর্বোচ্চ ৭ বছরের কারাদণ্ডসহ করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় আইনের একটি ‘অ্যান্টি-ভাইরাস‘ প্যাকেজ অনুমোদন দিয়েছে দেশটির পার্লামেন্ট।

বিজ্ঞাপন

করোনা ভাইরাস বিস্তাররোধে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য এই ধরনের কঠোর আইন দ্রুত সংশোধনীসহ পাশ হয় দেশটিতে, বলছে বিবিসি।

আইনে বলা হয়, যদি কেউ কোয়ারেন্টাইন ভঙ্গ করে এবং তার জন্য অন্যরা আক্রান্ত হয়ে মারা যায়, তাহলে কোয়ারেন্টাইন লংঘনকারীর সর্বোচ্চ ৭ বছরের কারাদণ্ড হবে।

এছাড়াও বাড়িতে অবস্থানরত সুস্থ ব্যক্তিরা বাড়ি থেকে বের হয়ে আদেশ লংঘন করলে এবং করোনা সম্পর্কিত  ভুয়া খবর ছড়িয়ে দোষী সাব্যস্ত হলে ৫ বছর কারাদণ্ড হবে।

এই আইনে জরুরি প্রয়োজন অনুযায়ী যথাযথ বিধিনিষেধ বাস্তবায়নের কর্তৃত্ব সরকারকে অর্পণ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সংসদে এই আইন অনুমোদন করার সময় কোনো ধরনের বিতর্ক দেখা যায়নি।

ডুমার স্পিকার বলেন,  এগুলো মূলত মহামারীর সময় প্রতিরোধ ও সতর্কতামূলক পদক্ষেপ। আমাদের প্রিয়জনদের জীবনের সুরক্ষার এমন আইন জরুরি হয়েছে।

ফেব্রুয়ারি থেকে রাশিয়া কোভিড -১৯ মোকাবিলায় একাধিক পদক্ষেপ নেয়। এর মধ্যে চীনের সাথে তার দীর্ঘ সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া এবং প্রাথমিক সন্দেহজনকদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। তবে লোকজনের মধ্যে কোনো আশঙ্কা দেখা যাচ্ছিলো না। তারা স্বাভাবিক জীবন চালাচ্ছিলো। রেস্টুরেন্ট, পার্কে, ক্যাফেতে আড্ডা জমাতে শুরু করে।

এই অবস্থা দেখে মস্কোর মেয়র লকডউন ঘোষণা করে জরুরি খাবার, ফার্মাসি, পোষা প্রাণীর ১০০ মিটার হাঁটার অনুমতি ছাড়া সব চলাচল বন্ধ করে দেন। এরই মধ্যে কোয়ারেন্টাইন ভঙ্গকারীদের ফোন ট্র্যাকিংয়েরও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়।

রাশিয়ায় কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসে এখন পযন্ত আক্রান্ত হয়েছে  ২ হাজার ৩৩৭ জন এবং মৃত্যু হয় ১৭ জনের।