চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে ১০ লাখেরও বেশি মানুষের মৃত্যু

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১০ লাখেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউজ। সরকারী হিসেবে বিশ্বে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের মৃত্যুর রেকর্ড এটি।

বিবিসি’র অনলাইন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,  দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শোক প্রকাশে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

pap-punno

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বরাতে বিবিসি জানায়, প্রকৃত মৃত্যুর সংখ্যা অনেক বেশি হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রে ৩৩০ মিলিয়ন জনসংখ্যার মধ্যে ৮০ মিলিয়নেরও বেশি মানুষের কোভিড আক্রান্ত হবার রেকর্ড করা হয়েছে।

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা উচ্চহারে মৃত্যুর পেছনে বেশ কয়েকটি কারণ জানিয়েছেন। স্থূলতা এবং উচ্চ রক্তচাপের উচ্চ হার, হাসপাতাল ব্যবস্থা, ভ্যাকসিনে অনাগ্রহ এবং একটি বড় অংকের বয়স্ক জনসংখ্যা কারণ গুলোর মধ্যে অন্যতম।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে দৈনিক রিপোর্টে মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রায়শই দেশ জুড়ে নতুন ধরনগুলি ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে আরও অনেক মৃত্যু বেড়ে যায়।

Bkash May Banner

২০২০ সালের এপ্রিলে প্রথম তরঙ্গে দৈনিক ২ হাজার ৫০০ জনের বেশি মৃত্যুর রিপোর্ট করা হয়।

ওহাইওর কেস ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির জনসংখ্যা ও পরিমাণগত স্বাস্থ্য বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ মার্ক ক্যামেরন বলেন, “বিপজ্জনক হারে কোভিডের উত্থানের ফলে আমাদের হাসপাতালগুলি পূর্ণ ছিল এবং নতুন মৃত্যু ঠেকানো যাচ্ছিলো না।

মহামারী চলাকালীন মারা যাওয়া এক মিলিয়ন আমেরিকানদের বেশিরভাগই ভ্যাকসিন চালু হওয়ার পরে প্রাণ হারিয়েছে।

চলতি বছরের এপ্রিলে পিটারসন সেন্টার ফর হেলথকেয়ার এবং কায়সার ফ্যামিলি ফাউন্ডেশনের একটি পৃথক বিশ্লেষণ অনুমান করে, দেশটিতে মৃত্যুর প্রায় এক চতুর্থাংশকে ভ্যাকসিন দিয়ে প্রতিরোধ করা যেতে পারে।

“তবে তথ্য পরিষ্কার যে, টিকা না দেওয়ায় কোভিড-১৯ এবং মৃত্যুর ঝুঁকি বেশি।”

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্যের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে ক্যালিফোর্নিয়ায়, যেখানে প্রায় ৯০ হাজার মানুষ মারা গেছে।

বিজ্ঞাপন

Bellow Post-Green View