চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে ৩ শান্তিরক্ষী নিহত

আফ্রিকার দেশ মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনের তিন সদস্যকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

শনিবার সংস্থাটির পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

দেশটিতে রোববার হতে যাওয়া রাষ্ট্রপতি এবং আইনসভা নির্বাচনের আগে বিদ্রোহীদের আক্রমণে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই নির্বাচনকে প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছিল বিদ্রোহীরা।

মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রের জাতিসংঘের শান্তি মিশনের বরাতে রয়র্টাসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রাজধানী বাংগুই থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার উত্তরের শহর ডেকোয়ায় শুক্রবার অজ্ঞাতপরিচয় হামলাকারীরা বুরুন্ডিয়ার শান্তিরক্ষীদের হত্যা করে। ওই ঘটনায় আহত হয় আরও দু’জন।

জাতিসংঘের শান্তি মিশন আরও জানিয়েছে, দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমে বাকুমায় অজ্ঞাত হামলাকারীরা শান্তিরক্ষীদের উপর হামলা চালায়।

হীরা ও সোনায় সমৃদ্ধ মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্র ১৯৬০ সালে ফ্রান্সের কাছ থেকে স্বাধীন হওয়ার পর থেকে পাঁচটি অভ্যুত্থান ও অসংখ্য বিদ্রোহের সম্মুখিন হয়েছে। দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্কোইস বোজাইজ ২০১৩ সালে বিদ্রোহের দ্বারা পদচ্যুত হওয়ার পরে দেশটি নিরাপত্তাহীনতার কবলে পড়েছে।

বিজ্ঞাপন

বর্তমান প্রেসিডেন্ট ফাউস্টিন-আর্চেঞ্জ তুআদেরা রোববার নির্বাচনের মাধ্যমে দ্বিতীয়বারের মতো ক্ষমতায় থাকতে চাইছেন। শনিবার সাংবিধানিক আদালত বিরোধীদের নির্বাচন বিলম্বের জন্য করা আবেদন খারিজ করে দেন।

আদালত চলতি মাসের শুরুতে বোজাইজের প্রেসিডেন্সির প্রার্থিতা প্রত্যাখ্যান করে বলেছিল, তিনি প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন হত্যাকাণ্ড, নির্যাতন ও অন্যান্য অপরাধের আদেশ দেওয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা এবং গুপ্ত হত্যার নির্দেশ দেয়ার কারণে জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তিনি  নৈতিকতার প্রয়োজনীয় শর্ত পূরণেও ব্যর্থ হয়েছেন।

নির্বাচনকে বাধা দিতে মিলিশিয়াদের একটি জোটের সাথে সহযোগিতা করার অভিযোগও করেছে জাতিসংঘ।

বোজাইজ প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন তার বিরুদ্ধে যেসব অপরাধের অভিযোগ করা হয়েছে তা অস্বীকার করে বলেন, তার দল প্রধান বিরোধী দল, তার সাথে মিলিশিয়া বা বিদ্রোহীদের কোনও যোগসূত্র নেই। এবং হত্যা বা সহিংসতার কোনো নির্দেশ তিনি দেননি।

বর্তমান প্রেসিডেন্টের আন্তর্জাতিক সহযোগীতা হিসেবে রাশিয়া, ফ্রান্স ও রুয়ান্ডা সেনা ও সরঞ্জাম প্রেরণ করে সহিংসতার প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।

তিন শতাধিক রুয়ান্ডার শান্তিরক্ষী দক্ষিণ সুদান থেকে বৃহস্পতিবার দেশটিতে এসেছেন। ওই মিশন থেকে জানানো হয়েছে, শুক্রবার দুপুরে রাশিয়ার দুটি সামরিক হেলিকপ্টার বানগুই বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেছে।

বিজ্ঞাপন