চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হাঁটার ওপর ওষুধ নাই

সুস্থ থাকতে হলে জিমে যেতেই হবে, এমন ধারণা আছে অনেকের মনে। মোটা হলে জিমে যাব, বেশী খেলে জিমে যাব,জিমে যাব তাই হাঁটবো না-এমন চিন্তা মাথায় নিয়ে ঘোরেন অনেকেই। কিন্তু সুস্থ থাকতে জিম এর কোনো প্রয়োজনই নেই। জিমে মোটা অঙ্কের বেতন না দিয়েই সুস্থ আছেন পৃথিবীর বহু মানুষ।

পৃথিবীতে সবচেয়ে সুস্থ ভাবে বেঁচে আছেন যারা, তারা নিয়মিত হাঁটেন। হাঁটা হলো সবচেয়ে ভালো ব্যায়াম। এছাড়াও দৌড়ানোও দারুণ ব্যায়াম। আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে সপ্তাহে ছয় ঘণ্টা হাঁটলে দীর্ঘ জীবন এবং সুস্বাস্থ্য লাভ করা সম্ভব।

গবেষণায় দেখা গেছে, সুস্থ মানুষেরা শারীরিকভাবে একটিভ থাকেন। পরিশ্রম করার ক্ষেত্রে কোনো আলসেমি নেই। ঘণ্টার পর ঘণ্টা জ্যামে বসে না থেকে হেঁটে রাস্তা পারি দিতে পছন্দ করেন তারা। এছাড়াও ঘরের কাজকর্ম নিজের হাতে করতে ভালোবাসেন। দেখা গেছে যে এক দশক আগেও মাত্র ১০% মানুষ হাঁটতে চাইতেন না। অথচ এখন ৯০% মানুষের হাঁটার প্রতি অনীহা।

Advertisement

অর্থাৎ, জিমের ভারি যন্ত্রপাতিতে ব্যায়াম না করেও সুন্দর ফিগার এবং সুস্বাস্থ্য ধরে রাখা যায়। দৈনন্দিন কাজকর্মের মাধ্যমেই আয়ু বাড়ানো সম্ভব।

হার্ভার্ড মেডিক্যাল স্কুলের আরেকটি রিপোর্টে দেখা গেছে, নিয়মিত হাঁটলে হৃদযন্ত্র ভালো থাকে এবং কোনো রোগে ভোগার সম্ভাবনা ৩১% কমে যায়। অকালে মৃত্যুর ঝুঁকিও ৩২% কমে যায়।

বর্তমান যুগে অধিকাংশ মানুষ কম্পিউটার স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা চেয়ারে বসে কাটিয়ে দেন। তাই অকালে মৃত্যুর ঝুঁকিও বাড়ছে। এক্ষেত্রে অফিস থেকে বাড়ি ফেরার পথে গাড়িতে দীর্ঘ সময় বসে না থেকে পায়ে হেঁটে রওনা দিন। তাড়াতাড়ি পৌঁছাতেও পারবেন আবার ব্যায়ামও হবে। যাকে বলা হয় এক ঢিলে দুই পাখি। টাইমস অব ইন্ডিয়া