চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিএনপিসহ চার দলের নতুন জোট ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’

নেতৃত্বে ড. কামাল হোসেন

এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে বাদ দিয়ে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে বিএনপি, গণফোরাম, জেএসডি এবং নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে নতুন রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

শনিবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এই জোটের আত্মপ্রকাশ ঘটে।

এতে জোটের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

তিনি নতুন এ জোটের দাবি এবং লক্ষ্য সম্পর্কে  বিস্তারিত তুলে ধরে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ভিত্তিক অসাম্প্রদায়িক, কার্যকর গণতান্ত্রিক ও শান্তির বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার নিয়ে বৃহত্তর ঐক্য গঠনের যাত্রা শুরু করলো জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ড. কামাল হোসেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, বিএনপি নেতা ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গণস্বাস্থ্যের জাফর উল্লাহ চৌধুরী, গণফোরাম নেতা অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, মোস্তফা মহসিন মন্টু, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন প্রমুখ।

Advertisement

এর আগে গত ১৫ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে একইভাবে সংবাদ সম্মেলন করে সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বে যুক্তফ্রন্ট ও ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে থাকা গণফোরামের সমন্বয়ে গঠিত হয়েছিল জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া।

সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেনকে আহ্বায়ক করে সেই জোট নিরপেক্ষ নির্বাচনসহ দেশের সব রাজনৈতিক দলের জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিতে ৫ দফা দাবির পাশাপাশি ৯ দফা লক্ষ্যও নির্ধারণ করেছিল।

এরপর গত ২২ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গুলিস্তানে মহানগর নাট্যমঞ্চে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের ডাকে ‘জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া’র সমাবেশে যোগ দেয় বিএনপির চার শীর্ষনেতা।

সেখানে বিএনপি নেতারা জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সঙ্গে এক হয়ে যুগপৎ আন্দোলন করার কথা জানায়।

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার কয়েকটি কর্মসূচি পালনের মধ্যেই সম্প্রতি কয়েকটি বিষয়ে ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে মতানৈক্য হয় বদরুদ্দোজা চৌধুরীর। এমনকি শনিবার তাকে বাসায় দাওয়াত দিয়েও ছিলেন না  ড. কামাল।

পরে তারা আলাদা অালাদা সংবাদ সম্মেলন করার ঘোষণা দেন।