চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নগরীতে যান চলাচল স্বাভাবিক, নেই হরতালের প্রভাব

গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বাম গণতান্ত্রিক জোটের ডাকা আধাবেলা হরতালের প্রভাব নেই রাজধানীতে। এ হরতালে সরকারবিরোধী বিভিন্ন দলের সমর্থন, এমনকি সাধারণ মানুষের মত থাকলেও নগরীর বিভিন্ন সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

রোববার সকাল থেকেই রাজধানীর গণপরিবহন ব্যবস্থা ছিল স্বাভাবিক। গণপরিবহনগুলোতে ছিল কর্মমুখী মানুষের ভিড়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, রাজধানীর শ্যামলী, মোহাম্মদপুর, সায়েন্সল্যাব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, শাহবাগ ও কাকরাইল এলাকায় যানবাহনের উপস্থিতি রয়েছে অন্যান্য দিনের মতোই স্বাভাবিক।

শাহবাগ ও পল্টন এলাকায় বাম জোটের নেতাকর্মীদের হরতালের সমর্থনে অবস্থান নিতে দেখা গেছে। তবে হরতালের সমর্থন দেয়া বিএনপি ও গণফোরামের কাউকে মাঠে দেখা যায়নি।

শাহবাগ মোড়ে প্রগতিশীল ছাত্র জোটের অবস্থানেরর ফলে চারদিকে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

নাগরিকদের মত হরতালের পক্ষে
হরতালে নাগরিক দুর্ভোগ বিদ্যমান থাকলেও নাগরিকরা এ হরতালের পক্ষে মত দিচ্ছেন।

বেসরকারী চাকরিজীবী কায়সার রহমান চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করে সাধারণ মানুষের ওপর জুলুম করা হচ্ছে। এর ফলে বাড়ি ভাড়া বাড়বে, বিদ্যুতের দাম বাড়বে, এছাড়াও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বেড়ে যাবে।

পুলিশ সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায়
এদিকে, এ অবস্থানকে ঘিরে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ। যে কোন অপতৎপরতা রোধে প্রস্তুত রাখা হয়েছে পুলিশের সাঁজোয়া যান ও জলকামান।

পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, হরতালকে কেন্দ্র করে কেউ যাতে কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য পুলিশ সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। রাস্তায় অবস্থান নেয়া হরতালের সমর্থনকারীদের সঙ্গে কথা বলে তাদেরকে রাস্তা ছেড়ে দিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। রাস্তা আটকে জনগনের ভোগান্তি না করার জন্য তাদেরকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

হরতালের সমর্থক সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের নেতা আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘সরকার অবৈধ গ্যাস লাইন বিচ্ছিন্ন করতে পারছে না। কিন্তু তারা গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করছে, এতে লাভ কার? বাণিজ্যিকভাবে সিলিন্ডার গ্যাসের ব্যবহার বাড়াতে বলা হচ্ছে।’

গ্যাসের দাম বাড়ানোর এই সিদ্ধান্ত অবিলম্বে প্রত্যাহার করারর দাবি জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন