চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

তাদের ‘রিয়েল আদালতে’ বিচার হবে: ড. কামাল

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে ড. কামাল হোসেনদের উপর হামলাকে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের উপর হামলার সঙ্গে তুলনা করে যারা হামলা করেছে এবং যারা হামলার নির্দেশ দিয়েছে তাদের ‘রিয়েল আদালত’- এ বিচার হবে বলে হুঁশিয়ারী দিয়েছেন ড. কামাল হোসেন।

শুক্রবার পুরনো পল্টনে ঐক্যফ্রন্টের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আজকে বুদ্ধিজীবী দিবস ছিল। আমার অনেক বন্ধু শহীদ হয়েছেন। তাদেরকে আজ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়েছিলাম। সেখানে হামলা হয়েছে। শহীদদের স্মৃতির সামনে এমন ঘটনা শহীদদের অবমাননা। এটা মেনে নেয়া যায় না। এর বিচার হবে।

তিনি বলেন, যারা শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতিসৌধে হামলা করেছে এরা কারা? এদের পরিচয় কী? কয় পয়সা পেয়ে তোমরা এই কাজ করেছো? এটা কোনো সুস্থ, দেশপ্রেমিকের কাজ হতে পারে না। এই হামলায় শহীদদের আত্মা কষ্ট পাবে। আজকে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এটাও ভুলে গেছে তারা। এরা কিছু ছোকরা। কিছু টোকাই। ভাড়াটিয়া। এরা কারা? এদের ভাড়া করেছে কার?

ড. কামাল হোসেন বলেন, আইজি সাহেব, আপনার ব্যাপারে আমি ভালো জানি। আমি লিখিত চিঠি পাঠাবো আপনাকে। আজকে পুলিশের ব্যাপারে যা শুনেছি, তা বিশ্বাস হচ্ছে না। আপনি বিশ্বস্ত লোকদের দিয়ে তদন্ত করান। আমরা তদন্তে সহয়োগিতা করবো। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের সম্মানে এই কাজ করবো। আমি লেগে থাকবো।

পুলিশ হামলায় সহযোগিতা করেছো অভিযোগ করে তিনি বলেন, যারা হামলা করেছে তাদের গ্রেপ্তার না করে হামলার শিকার হওয়াদের গ্রেপ্তার করেছে। আমি প্রত্যেকটি এরেস্টের তথ্য চাই৷

Advertisement

পুলিশকে তিনি বলেন, পুলিশ তোমরা এটা জেনে রাখো, যারা বেআইনি আদেশ দিচ্ছে কেউ চিরস্থায়ী নয়। যারা কোনো আইন ভঙ্গ করছে না তাকে এরেস্ট করে সংবিধান লংঘন করেছো।

‘পুলিশ, কার কথা মতো এগুলো করছো? কে বাধ্য করছে যারা আদেশ দিচ্ছে, তাদের রিয়েল আদালতে বিচার হবে”।

ঐক্যফ্রন্টের এই নেতা বলেন, যারা ১৫ দিনের জন্য ক্ষমতায় আছো, তারা বেআইনি আদেশ দেয়া বন্ধ করো। মাথা ঠান্ডা রেখে এসব বন্ধ করো। ভালো কিছু করো৷ সরকারকে বলছি, আপনারা আইন মানেন। সরকার আইনের উর্ধ্বে না৷ এই দেশে কোনো সরকার আইনের উর্ধ্বে না। এটাই স্বাধীনতার অর্থ।

তিনি আরও বলেন, এমন হামলার যারা নির্দেশ দিচ্ছে স্বাধীন দেশে তাদের লজ্জা পাওয়া উচিত। তোমরা আর মাত্র ১৬ দিন ক্ষমতায় আছো। এর মধ্যে ভালো ভাবে থাকো। যা করছো তার জন্য ১৬ দিন পর বিচার হবে।

এসময় তিনি মানুষের উপর ১০০ ভাগ আস্থা আছে উল্লেখ করে বলেন, তারা বিচার করবে। তারা আইনের শাসন ফিরিয়ে আনবে।