চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘পৌর নির্বাচন’ নিয়ে বিতর্কের জেরে ছুরিকাঘাত, ছাত্রদল নেতা নিহত

কক্সবাজার শহরে ‘পৌর নির্বাচন’ নিয়ে আলোচনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে এক ছাত্রদল নেতা নিহত হয়েছেন। শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে কক্সবাজার শহরের বাঁচামিয়ার ঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আফরুজুল হক টুটুল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

নিহত এএইচ এম তানভীর (২৭) কক্সবাজার শহরের দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এলাকার আশু আলী ঘোনার মোহাম্মদ সোলায়মানের ছেলে। তিনি কক্সবাজার জেলা ছাত্রদলের প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক।

স্থানীয় লোকজন ও নিহতের স্বজনদের বরাত দিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার টুটুল জানান: শুক্রবার বিকেলে কক্সবাজার শহরের বাঁচামিয়ার ঘোনা এলাকার নুরুল আমিন সওদাগরের দোকানের সামনে পৌর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের নিয়ে স্থানীয়দের ২ পক্ষের আলাপ-আলোচনার এক পর্যায়ে তর্ক-বিতর্কের জেরে এ ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন: দু’পক্ষের তর্ক-বিতর্কের এক পর্যায়ে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে। এতে প্রতিপক্ষের লোকজনের ছুরিকাঘাতে এইচ এম তানভীর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।

নিহতের ছোট ভাই ইবনে সিনা বলেন: কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনে ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আশরাফুল হুদা সিদ্দিকী জামশেদ আসার খবরে বাঁচামিয়ার ঘোনা এলাকার নুরুল আমিন সওদাগরের দোকানের সামনে অবস্থান করছিলেন। এসময় সেখানে আগে থেকে অবস্থান করছিল স্থানীয় বাসিন্দা আবুল বশর, নেজাম উদ্দিন, মিজান উদ্দিন, আতিক উল্লাহ, মোস্তাক আহমদ, দেলোয়ার হোসেন টুলু, জাহাঙ্গীর আলম, মো. রায়হান ও শাহাদাত হোসেন সহ ১০/১২ জন। পৌরসভার নির্বাচন নিয়ে আলাপ-আলোচনার এক পর্যায়ে তারা তানভীরের সঙ্গে তর্ক-বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে। এতে হাতাহাতির এক পর্যায়ে ছুরিকাঘাত করলে তানভীর আহত হন।

এইচ এম তানভীর কক্সবাজার জেলা ছাত্রদলের প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন বলে জানান নিহতের ভাই ইবনে সিনা।

ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা টুটুল।