চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’ এরজন্য কতো পেয়েছিলেন ইথুন বাবু?

ও প্রিয় তুমি কোথায়, মাধবী কী ছিলো গো ভুল, একটা চাদর হবে, ভালোবাসতে মন লাগে, রিটার্ন টিকেট- এর গীতিকার ইথুন বাবু

বাংলাদেশের সংগীতের স্বর্ণালী সময়ের একজন সংগীতযোদ্ধা বলা হয় ইথুন বাবুকে। শুরুর দিকে শিল্পী হিসেবে তাকে শ্রোতারা চিনলেও পরবর্তীতে তিনি হয়ে উঠেন বাংলা গানের জগতে অন্যতম জনপ্রিয় গীতিকার ও সুরকার! তার লেখা অসংখ্য গান সেই সময়ে আলোড়ন তুলেছে দেশব্যাপী।

ইথুন বাবুর কথা-সুর ও সংগীতে জনপ্রিয় অ্যালবামগুলোর মধ্যে মনে রেখো, ঘুম আসেনা, প্রিয়া কাছে নেই, চন্দনা, প্রিয়া তোমার মন বলে কিছু নেই, ক্ষমা করে দিও, বড় ব্যথা দিলে অঞ্জনা, মনে মনে মন, সে ছিল আমার প্রিয়তমা, বিরহের প্রেম, মন নদী, সুখে থেকে ভাল থেকো, মাধবী দু:খ দিবে কতো, পরাণ, এক ফালি রোদ উল্লেখযোগ্য।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

তবে তার লেখা, সুর ও সংগীত পরিচালনায় সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পাওয়া অ্যালবামের নাম ‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’। বিশেষত এই শিরোনামের গানটি তৎকালীন সময়ে এতোটাই আলোড়ন ফেলে যে, এর কারণে অ্যালবামটিই বিক্রি হয় ৬০ লাখ কপির বেশি! পরবর্তীতে একই নামে সিনেমাও নির্মিত হয়।

অডিও অ্যালবামের সবগুলো গানে কণ্ঠ দিয়েছিলেন আসিফ আকবর। এক অ্যালবাম দিয়েই এই শিল্পী পৌঁছে যান বাঙালি শ্রোতার অন্দর মহলে।

বিজ্ঞাপন

এমন সাড়া জাগানো কালজয়ী গানের জন্য কতো পেয়েছিলেন ইথুন বাবু? বিপ্লব সেহাঙ্গলের পরিচালনায় চ্যানেল আইয়ের জনপ্রিয় অনুষ্ঠান ‘৩০০ সেকেন্ড’ এ সম্প্রতি শাহরিয়ার নাজিম জয় অতিথি ইথুন বাবুকে এমন প্রশ্নই ছুড়েন।

জবাবে ইথুন বাবু বলেন, আমি আর আসিফ যখন ‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’ অ্যালবামটা জমা দেই সাউন্ডটেকের কাছে, ওরা আমাদেরকে ১ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা দিয়েছিলেন।

ইথুন বাবু বলেন, সেসময় যখন আমরা প্রযোজনা কোম্পানিকে গান দিয়েছিলেন, তখনতো ইউটিউব ছিলো না। ওই সময়ে দেয়া গানগুলো এখন তারা প্লাটফর্ম চেঞ্জ করে ইউটিউবেও দিয়েছে। এটা আমাদের ঠকানো হয়েছে। তাছাড়া প্লাটফর্ম চেঞ্জ করে তারা যখন গানগুলো দিলোই, অন্তত আমাদের কাছে একবার জিজ্ঞেস করে নিতে পারতো।

এছাড়াও এই শোতে বর্তমান সংগীত ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে মন্তব্য করেন ইথুন বাবু।