চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এলআরবিতে ভাঙন, হাল ধরবে কে?

দুই ভাগে বিভক্ত দেশের অন্যতম জনপ্রিয় ব্যান্ড দল ‘এলআরবি’। দলের প্রতিষ্ঠাতা ও কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর পর কয়েক দফায় আলোচনায় আসে দলটি। নতুন ভোকাল নিয়েও সামনে পথ চলার কথাও শোনা যায়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ভাঙনই চূড়ান্ত হয়।

এলআরবির ব্যবস্থাপক হিসেবে দীর্ঘ দিন ধরে দলের সঙ্গে আছেন শামীম আহমেদ। আইয়ুব বাচ্চুর এই ঘনিষ্ঠজন জানালেন, এলআরবিতে তিনি আর নেই। সম্প্রতি দল থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

কেন এমন সিদ্ধান্ত? জানতে চাইলে শামীম আহমেদ বলেন, যারা বসের (আইয়ুব বাচ্চু) সাথে এলআরবি শুরু করেছেন, তারা আমাকে আর চাচ্ছেন না। কিংবা তারা যেভাবে চাইছেন সেভাবে তাদের মতের সাথে আমার মিলছে না, তাই এলআরবি থেকে আমি বের হয়ে গিয়েছি।

তবে নিজে এলআরবির সঙ্গে না থাকলেও প্রাণের এই দলটির জন্য সব সময় শুভ কামনা থাকবে বলেও জানান এলআরবির এক সময়ের ব্যবস্থাপক। তিনি বলেন, স্বপন ভাই আছেন, তিনি বসের সাথে দলটি শুরু করেছিলেন। দলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে তিনি তার মতো করে চাইতেই পারেন, দলের হাল ধরার অধিকার তারই সবচেয়ে বেশী। তিনি নিশ্চয় দলের ভালোর জন্যই সবকিছু করবেন। তাদের জন্য আমার শুভ কামনা থাকলো।

এদিকে এলআরবির আরেক সিনিয়র গিটারিস্ট মাসুদ। দলের ভাঙন নিয়ে কথা হয় তার সঙ্গেও। এলআরবি ছেড়ে যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে চ্যানেল আই অনলাইনকে মাসুদ বলেন, কিসের ভাঙন, কিসের ছেড়ে যাওয়া! এলআরবির কোনো ভাঙন হয়নি, এলআরবি কেউ ছেড়ে যায়নি। আমাদের একজনই ছেড়ে গেছেন, তিনি আমাদের বস (আইয়ুব বাচ্চু)। আর তার চলে যাওয়ার সাথে সাথে সবই শেষ।

কিছুটা অভিমান নিয়ে মাসুদ আরো বলেন, আমাদের সাথে কিছু না জিজ্ঞেস করে নিজেদের খেয়াল খুশি মতো এলআরবি নিয়ে মিডিয়ায় বক্তব্য দিয়েছেন বাকি সদস্যরা, এটা দুঃখজনক। তবে এগুলো নিয়ে আর কথা বাড়াতে চাই না।

‘এলআরবি’র জন্মের শুরু থেকেই আইয়ুব বাচ্চুর সঙ্গে ছিলেন বেইজ গিটারিস্ট স্বপন। পরে ২০০৬ সালে এসে ড্রামে যোগ দিয়েছিলেন রোমেল। আইয়ুব বাচ্চুর অনুপস্থিতিতে আগামীতেও তারা দলটিকে সামনে এগিয়ে নিতে বদ্ধপরিকর।

এ বিষয়ে চ্যানেল আই অনলাইনকে এলআরবির ড্রামার রোমেল বলেন, বস (আইয়ুব বাচ্চু) নেই বলে তার হাতে গড়া দলটিও থেমে যাবে, এটা হতে দেয়া যায় না। আমাদের সাথে এলআরবির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য স্বপন ভাই আছেন,যতো দিন বেঁচে থাকি, মঞ্চে বাচ্চু ভাইয়ের রুপালি গিটার ও মাইক্রোফোন স্ট্যান্ড সব সময় থাকবে।

রোমেল জানান, নতুনভাবে সাজানো হচ্ছে এলআরবির লাইন-আপ। বেহালায় সুনীল চন্দ্র দাসকে নেয়া হচ্ছে, শিগগির অতিথি ভোকালও নিযুক্ত করা হবে।

১৯৯১ সালের ৫ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যান্ড দল হিসেবে যাত্রা করে ‘এলআরবি’। যার প্রতিষ্ঠাতা ও লিড ভোকাল ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। লিটল রিভারব্যান্ড –এর সংক্ষিপ্তরূপ হচ্ছে এলআরবি। যদিও পরবর্তীতে ‘লিটল রিভার ব্যান্ড’ নামটি পরিবর্তন করে রাখা হয় ‘লাভ রানস্ ব্লাইন্ড’।

এলআরবি প্রতিষ্ঠা পাওয়ার পরই বাংলা ব্যান্ড সংগীতে যেনো একটা ঝাঁকুনি লাগে। একটি ডবল অ্যালবাম দিয়ে সেই ঝাঁকুনি যেনো আরো দীর্ঘস্থায়ী হয়। দুটি গান দিয়ে একটি পুর্ণাঙ্গ অ্যালবামের কাজও বাংলাদেশে এলআরবি’র আগে কেউ করেনি। নব্বই দশকের শুরুতে মাধবী এবং হকার নামে বের হয়েছিলো এলআরবি’র সেই বিখ্যাত ডবল অ্যালবাম।

Bellow Post-Green View