চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নরসিংদীতে কাভার্ডভ্যান চাপায় পাঁচ সবজি বিক্রেতা নিহত

সুমন রায়, নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর রায়পুরায় নিয়ন্ত্রণ হারানো একটি কাভার্ড ভ্যানের চাপায় ভ্রাম্যমাণ পাঁচ সবজি বিক্রেতার মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় আহত হয়েছে আরও ২ জন।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মাহমুদাবাদের মেশিনগড় এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

Reneta June

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন; রায়পুরার মাহমুদাবাদ এলাকার সেন্টু মিয়ার ছেলে রিপন মিয়া (৩৫), তায়েব মিয়ার ছেলে মাসাকিন মিয়া (৪৫) ও ফজর আলীর ছেলে ফারুক মিয়া (৫০), মেশিনঘর গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে শাজাহান মিয়া (৫০) ও জনাব আলীর ছেলে বাচ্চু মিয়া (৬৪)। তারা মহাসড়কের একপাশে দাঁড়িয়ে তাদের জমিতে উৎপাদিত সবজি বিক্রি করছিলেন।

বিজ্ঞাপন

দুর্ঘটনায় মোট পাঁচজনের মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন রায়পুরার মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মঞ্জুর এলাহী।

স্থানীয়রা বলছে, মহাসড়কের মাহমুদাবাদের এই স্থানে প্রতিদিন ভোর থেকে সবজির বাজার বসে। স্থানীয় শতাধিক কৃষক তাদের জমিতে উৎপাদিত বিভিন্ন সবজি এই বাজারে এনে বিক্রি করেন। এখানে সবজি কিনতে আসা ক্রেতারা ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যানের মাধ্যমে এখানকার সবজি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নিয়ে বিক্রি করেন। নিহত তিনজনও এখানকার স্থানীয় কৃষক ও সবজি বিক্রেতা ছিলেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাজধানী ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা একটি কাভার্ড ভ্যান ভৈরবের দিকে যাচ্ছিল। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মাহমুদাবাদের মেশিনগড় এলাকা অতিক্রমের সময় কাভার্ড ভ্যানটি নিয়ন্ত্রণ হারায়। সে সময় এটি উল্টো পথে গিয়ে একটি যাত্রীশূন্য অটোরিকশা ও তিন সবজি বিক্রেতাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুই সবজি বিক্রেতা মাসাকিন মিয়া ও ফারুক মিয়ার মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে পার্শ্ববর্তী ভৈরব বাজার ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে নিহত দুইজনের লাশ উদ্ধার করেন।

এর আগেই উপস্থিত স্থানীয় লোকজন আহত রিপন মিয়াকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ভৈরবের একটি হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হন। কিন্তু হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। এদিকে ভৈরব হাইওয়ে থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসার আগেই নিহত দুজনের লাশ যার যার বাড়িতে নিয়ে চলে যান পরিবারের লোকজন ও স্বজনরা।

ভৈরব বাজার ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ আজিজুল হক জানান, আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে আসি। এসে ওই কাভার্ড ভ্যান সরিয়ে দুইজনের লাশ উদ্ধার করি। আরেকজন হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা গেছেন বলে জানতে পারি। উদ্ধার করা দুজনের লাশ তাদের স্বজনরা বাড়িতে নিয়ে গেছেন।

ভৈরব হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হোসেন জানান, এই দুর্ঘটনায় মোট তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। কাভার্ড ভ্যানটি জব্দ করা গেলেও এর চালক পলাতক। নিহতদের স্বজনদের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।