চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হেরেও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স, নক আউটে অস্ট্রেলিয়া

Nagod
Bkash July

সবার আগে নক আউটের টিকিট কেটে রেখেছিল ফ্রান্স। গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে বেঞ্চের শক্তি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে যেয়ে তিউনিশিয়ার বিপক্ষে অঘটনের শিকার হয়েছে দলটি। ১-০ গোলে হেরে বসেছে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। আরেক ম্যাচে ডেনমার্ককে হতাশায় ডুবিয়ে ১-০ গোলের জয়ে নক আউটে পা রেখেছে অস্ট্রেলিয়া।

Reneta June

ডি গ্রুপে দুই জয় ও এক হারে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। সমান ৬ পয়েন্ট পেলেও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকায় গ্রুপ রানার্সআপ অস্ট্রেলিয়া। টেবিলের তিনে থেকে আসর শেষ করল তিউনিশিয়া, পয়েন্ট ৪। ডেনমার্ক ১ পয়েন্ট তুলে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে।

বুধবার এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে ম্যাচে শুরুর একাদশে নয়টি পরিবর্তন আনেন ফ্রান্স কোচ দিদিয়ের দেশম। গোড়ালির চোটে বেঞ্চে ছিলেন কাইলিয়ান এমবাপে। অধিনায়ক হুগো লরিসও মাঠে ছিলেন অনুপস্থিত। গোলরক্ষক হিসেবে খেলেছেন স্টিভ মাডান্ডা।

বেঞ্চের খেলোয়াড়দের আধিপত্য থাকা দলের উপর প্রথমার্ধে উল্টো আধিপত্য দেখায় তিউনিশিয়া। অষ্টম মিনিটেই গোল করে বসেছিল দলটি। সেট পিস থেকে ওয়াহবি খাজরির শটে বল পেয়ে বক্সের ভেতর থাকা নাদের গ্রান্দি জালে জড়ান। লাইন্সম্যান পতাকা তুলে অফসাইডের সংকেত দিলে গোলটি বাতিল হয়।

ম্যাচের ২৯ মিনিটে আইসা লাইডুনির ক্রসে বল পেয়ে হেড করেন আনিস বিন সিমানে। ঝাঁপিয়ে পড়ে ফ্রান্সকে রক্ষা করেন স্টিভ মাডান্ডা। ছয় মিনিট পর খাজরির নেয়া বাঁ-পায়ের দূরপাল্লার শটও ফ্রেঞ্চ গোলরক্ষক ঠেকান।

বিরতির পর ৫৯ মিনিটে ফ্রান্সকে স্তম্ভিত করে লিড আনে তিউনিশিয়া। মাঝ মাঠ থেকে আইসা লাইডুনির লম্বা শটে বল নিয়ে এক্সেল দেশাইয়ের ট্যাকলকে উপেক্ষা করে বাঁ-পায়ের দারুণ ফিনিশিংয়ে লক্ষ্যভেদ করেন স্ট্রাইকার ওয়াহবি খাজরি।

পরিস্থিতি প্রতিকূলে না থাকায় ৬৩ মিনিটে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে কাইলিয়ান এমবাপে ও আদ্রিয়েন রাবিওতকে নামাতে বাধ্য হন দেশম। দশ মিনিট পর অ্যান্টনিও গ্রিজম্যানও নামেন। ৭৮ মিনিটে উসমানে ডেম্বেলে নেমে পড়েন। এতে ফ্রান্সের আক্রমণে গতি পায়।

ম্যাচের ৮৯ মিনিটে এমবাপের দূরহকোণ থেকে নেয়া শট ঠেকান তিউনিশিয়ার আয়মেন দাহমেন। যোগ করা সময়ের অষ্টম মিনিটে গ্রিজম্যান গোল করায় ফ্রান্স পরাজয় এড়ানোর স্বস্তি পেয়েছিল। ভিএআরে রেফারি গোল বাতিল করলে স্মরণীয় জয় পায় তিউনিশিয়া। যদিও প্রথম রাউন্ডেই তাদের বিদায় হয়ে গেছে।

আল জানুব স্টেডিয়ামে আরেক ম্যাচে ১১ মিনিটে ডেনিশ মিডফিল্ডার ম্যাথিয়াস জেনসেনের ডান পায়ের শট প্রতিহত করেন অজি অধিনায়ক ম্যাট রায়ান। ২৬ মিনিটে মিচেল ডিউকের হেড পাসে বল নিয়ে রিলে ম্যাকগ্রের শট ঠেকান ক্যাসপার স্মাইকেল।

তিন মিনিট পর আন্দ্রেয়াস স্কভের কিক প্রতিহত করেন রায়ান। ম্যাচের ৩২ ও ৪১ মিনিটে ডিউকের নেয়া হেড এবং শট জালে ঢুকতে দেননি স্মাইকেল।

ম্যাচের ৬০ মিনিটে রিলে ম্যাকগ্রের মাঝ মাঠে থেকে নেয়া লম্বা পাসে বল আদায় করেন ম্যাথিউ লেকাই। অনেকখানি দৌড়ে প্রতিপক্ষের দুই খেলোয়াড়কে কাটিয়ে বক্সে ঢোকেন। বাঁ-পায়ের মাটি কামড়ানো শটে স্মাইকেলকে পরাস্ত করে বল জালে জড়ান, এগিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া।

ম্যাচের বাকি সময়ে আর কেউ জালের দেখা না পাওয়ায় ব্যবধান কম-বেশি হয়নি। ডেনিশদের হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়।

 

BSH
Bellow Post-Green View