চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মেসি ম্যাজিকে মাথা উঁচু থাকল আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ স্বপ্নের

Nagod
Bkash July

ধীরলয়ে খেলা। তেমন কোনো আক্রমণ নেই। ঘণ্টা পেরিয়ে গেল। গোলের দেখা নেই। শঙ্কার মেঘ ঘনীভূত হতে শুরু করেছে ততক্ষণে। কিন্তু আর্জেন্টিনার আছেন যে এক ম্যাজিসিয়ান। লিওনেল মেসি। বরাবরের মতো হয়ে এলেন ত্রাতা। মেক্সিকোকে হারিয়ে নকআউটের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখল আলবিসেলেস্তেরা।

Reneta June

লুসেইল স্টেডিয়ামে গ্রুপ সি এর ম্যাচে মেক্সিকোকে ২-০ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টিনা।

অধিনায়ক মেসির ৬৪ মিনিটের গোলের পর এনজো ফের্নান্দেজের ৮৭ মিনিটের গোলে ৩ পয়েন্ট আনা জয় তুলেছে আর্জেন্টিনা। গ্রুপপর্বে প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবের কাছে হেরে চাপে পড়েছিল লিওনেল স্কালোনির দল।

এই গ্রুপে এখন ২ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে পোল্যান্ড। সমান ম্যাচে ৩ পয়েন্ট করে নিয়ে গোলপার্থক্যে দুইয়ে আর্জেন্টিনা, তিনে সৌদি আরব। চারে ২ ম্যাচে ১ পয়েন্ট তোলা মেক্সিকো।

তৃতীয় রাউন্ড, তথা গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচে মেক্সিকো খেলবে সৌদির বিপক্ষে। মেসির আর্জেন্টিনা খেলবে লেভান্ডোভস্কির পোল্যান্ডের বিপক্ষে। ওই ম্যাচে জিতলে সরাসরি নকআউটে যাবে আলবিসেলেস্তেরা। আর ড্র করলে নানা বিপদ সংকেত নিয়ে গ্রুপের অন্য ম্যাচটির দিকে তাকিয়ে থাকবে, সঙ্গে নজর রাখতে হবে গোলসংখ্যার দিকেও।

পিঠ ঠেকে যাওয়া ম্যাচ। এমন দিনে সৌদির বিপক্ষে ২-১ গোলে হারা ম্যাচের একাদশে পাঁচ পরিবর্তন এনে নামিয়েছিলেন কোচ স্কালোনি। কিন্তু মাঠে প্রথমার্ধে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না একাদশের কাউকেই! শরীর যেন ভারি হয়ে উঠেছিল সবার, পা চলছিল না! খেলার তাড়নাটাই অনুপস্থিত দৃশ্যমান হয়! মনের ভয়ে বাঘে খাচ্ছিল ডি মারিয়াদের, সেটা বেশ বোঝা যাচ্ছিল।

ম্যাড়ম্যাড়ে প্রথমার্ধের একেবারে শেষে গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজ আর্জেন্টিনাকে বাঁচিয়ে দেন ভেগার দুর্দান্ত ফ্রি-কিক ঠেকিয়ে। দ্বিতীয়ার্ধেও মিনিট পনেরো বিরতির আগের ধীরলয়ই চলে। সেখান থেকে বেরোতে দরকার ছিল দুর্দান্ত কিছুর। সেটাই এনে দেন মেসি। মুহূর্তেই পাল্টে যায় মাঠের চিত্রপট।

ম্যাচের ৬৪ মিনিটে মেসির সেই ঝলক। ডি মারিয়ার থেকে বল পেয়ে ২৬ গজ দূর থেকে বুলেট শট নেন অধিনায়ক। মেক্সিকো গোলরক্ষক ওচোয়া অনেকটা ঝাঁপিয়েও বলের গতিরোধ করতে পারেননি। আসে লিড।

গোলটি দিয়ে প্রয়াত কিংবদন্তি ডিয়েগো ম্যারাডোনাকে ছুঁয়েছেন মেসি। জাতীয় দল জার্সিতে তার ৯৩ গোল হল। বিশ্বকাপে ৮টি। বিশ্বমঞ্চে যা কেবল ম্যারাডোনার সমানই নয়, ম্যারাডোনার সমান ২১ ম্যাচেই। এদিন তো বিশ্বকাপে ম্যারাডোনার সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ডও ধরে ফেলেছেন এলএম টেন।

গোল এনে উজ্জীবিত আর্জেন্টিনা প্রতিপক্ষ রক্ষণে হামলে পড়ে শেষদিকে। ৮৭ মিনিটে আসে দ্বিতীয় সাফল্য। মেসি এবার গোল বানিয়ে দেয়ার ভূমিকায়। অধিনায়কের পাসে বল পেয়ে বাতাসে বাঁকানো শটে গোল আনেন এনজো ফের্নান্দেজ। জয় নিশ্চিত হয়ে যায় আর্জেন্টিনার।

BSH
Bellow Post-Green View