চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অনুদান বঞ্চিত সংগঠনগুলো নিয়ে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা

সাংস্কৃতিক সংগঠনকে অনুদান:

‘এখানে টাকার অংকটা মূখ্য নয়। অনুদানের টাকা না পেলে প্রাচ্যনাট থেমে যাবে না। কিন্তু এটাতো আমাদের প্রাপ্য, সরকার বিশেষ সময়ে বিশেষ বিবেচনায় এই অনুদানটি দিচ্ছেন’

সম্প্রতি ২০২০-২১ অর্থ বছরে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের অধীনে চারুশিল্প ও থিয়েটার খাত থেকে সাংস্কৃতিক সংগঠনকে অনুদান বরাদ্দ দেওয়ার তালিকা প্রকাশ হয়েছে। যে তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পর অভিযোগ উঠেছে, বেশ কয়েকটি সক্রিয় সংগঠনকে অনুদান দেয়া হয়নি।

তারমধ্যে অন্যতম প্রাচ্যনাট। সারা বছর নানা সামাজিক সাংস্কৃতিক আন্দোলনে যে দলটি থাকে সামনের সারিতে, সেই সক্রিয় দলটিকে অনুদান প্রাপ্তির তালিকা থেকে বাদ দেয়া মেনে নিতে পারছেন না সাংস্কৃতিক কর্মীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও দেখা গেছে প্রতিবাদ।

বিষয়টি নিয়ে প্রাচ্যনাটের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য রাহুল আনন্দ চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, পুরো বিষয়টি খুব অদ্ভুত। গত ২৪ বছর ধরে প্রাচ্যনাট সব আন্দোলন, প্রতিবাদে ছিলো প্রতিবাদী ভূমিকায়। করোনার মধ্যেও আমরা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছি। সাংবাদিক রোজিনাকে হেনস্তার প্রতিবাদেও আমরা সামিল ছিলাম। সামাজিক, সাংস্কৃতিক সমস্যা মোকাবেলাতে বরাবরই আমরা সামনের সারিতে। অথচ সরকারি অনুদান প্রাপ্তির তালিকায় এমন সক্রিয় সংগঠনটির নাম এড়িয়ে যাওয়া হলো, এটা দুঃখজনক।

তিনি জানান, যে ২৭০টি সংগঠনকে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় থেকে অনুদান দেয়া হয়েছে তারমধ্যে ‘প্রাচ্যনাট স্কুল অব অ্যাকটিং অ্যান্ড ডিজাইন’ এর নাম আছে। প্রাচ্যনাটের কনসার্ন প্রতিষ্ঠানকে অনুদান দেয়া হলো, অথচ মূল সংগঠনকেই বঞ্চিত করা হলো।

রাহুল আনন্দ বলেন, এখানে টাকার অংকটা মূখ্য নয়। অনুদানের টাকা না পেলে প্রাচ্যনাট থেমে যাবে না। কিন্তু এটাতো আমাদের প্রাপ্য, সরকার বিশেষ সময়ে বিশেষ বিবেচনায় এই অনুদানটি দিচ্ছেন। সেখানে আমাদের দলটি সর্বদা সক্রিয়, তাহলে আমরা কেন সেই অনুদান পাবো না!

বিজ্ঞাপন

সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার কথা বলা হচ্ছে, এ বিষয়ে প্রাচ্যনাটকে কিছু জানানো হয়েছে কিনা? জানতে চাইলে প্রাচ্যনাটের এই সদস্য বলেন, মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের কিছু জানানো হয়নি। অনুদান বিষয়ে আমরা জেনেছি সিদ্ধান্তটি পুনর্বিবেচনা করা হবে। সেটা গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন থেকে আমাদের জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কামাল বায়েজিদের শরণাপন্ন হলে তিনি চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন,  শুধু প্রাচ্যনাট নয়- ঢাকা পদাতিক, পদাতিক নাট্য সংসদ, ঢাকা ড্রামার মতো সক্রিয়দলগুলোও অনুদান থেকে বঞ্চিত হয়েছে। ঢাকার বাইরে দিনাজপুর, নিলফামারিসহ আরো কিছু জেলার দলগুলোও বঞ্চিত হয়েছে। এটা হয়েছে মন্ত্রণালয়ের অনিচ্ছাকৃত ভুলের কারণে।

দুঃখপ্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘সক্রিয় সংগঠনগুলোর মধ্যে যারা অনুদানপ্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছে, তাদের কাছে গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন দুঃখপ্রকাশ করছে। আগামি দিনে যেন এরকম ভুল ত্রুটিও কোনোভাবে না হয়, সে বিষয়টিও আমরা গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি।’

আগামি সোমবারের মধ্যে বঞ্চিতদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসতে পারে জানিয়ে কামাল বায়েজিদ আরো বলেন, আমরা সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রী মহোদয়কে বঞ্চিত সংগঠনগুলোর বিষয়ে অবহিত করেছি, তারা আশ্বাস দিয়েছেন দ্রুতই বিষয়টি সমাধান করবেন। হয়তো আগামি সোমবারের মধ্যে এ বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত পেয়ে যাবো বলে আশা করছি।

উল্লেখ্য, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় থেকে এবছর দেশের ২৭০টি সাংস্কৃতিক সংগঠনকে ১ কোটি ৯০ লাখ ৩৫ হাজার টাকা অনুদান প্রদানের তালিকা ঘোষণা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন