চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আবারও বিতর্কের কেন্দ্রে নায়িকা নুসরাত জাহান

পোস্টারে পোস্টারে সয়লাব পশ্চিমবঙ্গের চিত্রনায়িকা ও সাংসদ নুসরাত জাহানের। তার লোকসভা এলাকায় এমন কাণ্ড নিয়ে রীতিমত হইচই। কোনও পোস্টারে লেখা হয়েছে, ‘বসিরহাটের এমপি নুসরাত জাহান নিখোঁজ, সন্ধান চাই।’ পোস্টারের নীচে লেখা, ‘প্রতারিত জনগণ’!

কোনো পোস্টারে আবার লেখা হয়েছে, ‘বসিরহাটের এমপি নুসরাত জাহান নিখোঁজ, সন্ধান চাই।’ আশ্চর্যের হলেও এটাই সত্যি বেশির ভাগ পোস্টারের নীচেই লেখা, ‘প্রচারে তৃণমূল’। বসিরহাটের চাঁপাতলার বিস্তীর্ণ এলাকায় দলীয় সাংসদের নামে এমন ভাবেই পোস্টার দেখতে পেয়ে তৃণমূল বিড়ম্বনার মধ্যে পরে। তড়িঘড়ি তা ছিঁড়েও ফেলা হয়। তবে দলের একাংশের কর্মীরা মেনে নিয়েছে, দলীয় সাংসদকে এলাকায় দেখতে না পাওয়ার কারণেই এই পোস্টার পড়েছে এলাকায়।

Reneta June

কে বা কারা ওই পোস্টার লাগিয়েছেন, তা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তবে দলের মধ্যে সাংসদকে নিয়ে যে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে, তা এবার প্রকাশ্যে আসছে।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাতের অন্ধকারে এই পোস্টার দেয়ালে দেয়ালে সাঁটিয়েছে দিয়েছে কেউ। তবে এই বিষয়টিকে তারা নৈতিক ভাবে সমর্থন করছেন বলে জানিয়েছেন গ্রামবাসীদের একাংশ। এলাকার মানুষজনরা বলেন, “পোস্টারে যে কথা লেখা আছে তা ঠিকই। ভোট দেওয়ার পর থেকে ওকে আর আমরা গ্রামে দেখতে পাইনি। আসেন না এলাকায়।”

এই অভিযোগ দলের আরও অনেকেরই। অনেকেই বলছেন তারকা সাংসদরা এলাকায় প্রায় আসেন না। একই অভিযোগ বীরভূমের সাংসদকে ঘিরেও। এলাকায় আসেন বহু সাংসদ। শাসক, বিরোধী সব দলের সাংসদরাই এলাকায় আসেন না তেমন ভাবে। তাদের ঠিক কী কাজ জানেন না গ্রাম, শহরের মানুষদের।

তবে নুসরাত শুধু সাংসদই নয়, তিনি একজন ব্যস্ততম টলিউডের অভিনেত্রীও। নানা সময়ে খবরের শিরোনামে উঠে এসেছেন টলিউড এই অভিনেত্রী। সংবাদ মাধ্যমে তার ব্যক্তিগত জীবন থাকে সবসময় চর্চায়। কখনও আবার তিনি বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন। এই সাংসদকে নিয়ে বিড়ম্বনাতে রয়েছে দল।

এদিকে এমন ইস্যু পেয়ে এই সাংসদকে নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিরোধীরাও। বসিরহাটের সাংগঠনিক জেলা সভাপতি এবং বিজেপির যুব মোর্চার নেতা পলাশ সরকার এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘টিকটক জীবন, ব্যক্তিগত জীবন ছাড়াও বসিরহাটের সাংসদ হিসেবে অন্তরাল জীবন থেকে পুনরায় সাংসদ হিসেবে বসিরহাটে ফিরে আসুন এই প্রার্থনা করি।’ এ প্রসঙ্গে তৃণমূল সাংসদ নুসরাত জাহানকে মুঠোফোনে চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।