চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

‘আমাদের মেরে ফেলে আগায় পানি দিও না, পাতাগুলো ঝরে যাবে’

মিশা-জায়েদকে উদ্দেশ করে অভিনেতা আলমগীর

বিজ্ঞাপন

শিল্পী সমিতির আসন্ন নির্বাচন ঘিরে সরগরম ঢাকাই সিনেমা অঙ্গন। মঙ্গলবার ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ পরিষদের পরিচিতি সভায় উপস্থিত ছিলেন গুণী অভিনেতা, প্রযোজক ও নির্মাতা আলমগীর।

নিজের বক্তব্যে গেল দুইবার ক্ষমতায় থাকা মিশা-জায়েদের ভুল কাজগুলো নিয়ে মুখ খুলেন আলমগীর।

pap-punno

এসময় মিশা-জায়েদকে সতর্ক করে নায়ক আলমগীর বলেন, “তোমরা কথায় কথা মিথ্যা বলো। এটা বন্ধ করো। আল্লাহকে ভয় করো৷ নতুবা আল্লাহই টেনে নামাবে। আমরা যারা আছি, ইন্ডাস্ট্রির গাছের মতো, আমাদের মেরে ফেলে আগায় পানি দিও না, পাতাগুলো ঝরে যাবে। অলরেডি যাচ্ছে। তোমরা সতর্ক হও৷”

Bkash May Banner

মিশা-জায়েদের নানা কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরে দেশ বরেণ্য এ অভিনেতা বলেন, কথায় কথায় তারা (মিশা-জায়েদ) সিনিয়রদের নাম টেনে আনে। আমি শুধু একা নই। ফারুক ভাই, সোহেল রানা ভাই, উজ্জ্বল ভাইদেরও নাম টানে। এ কারণে আমি একাই তোমাদের (মিশা-জায়েদ) নামে মামলা করবো।

তিনি বলেন, মিশা-জায়েদ প্যানেলের সাংগঠনিক সম্পাদককে দেখলাম ফাইল তুলে দেখাচ্ছেন আর বলছেন, ‘দেখুন এখানে আলমগীর ভাইদের স্বাক্ষর আছে। আমিও ওই ফাইলটা একটু দেখতে চাই। তারা ফটোকপির মতো কিছু একটা হয়তো করেছে, আমি এখনও জানি না কী করেছে। আর আমি এটার জন্য ওদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি কেস করবো।’

গেল শিল্পী সমিতির নির্বাচনের ১৮৪ জন শিল্পীর ভোটাধিকার কেড়ে নেয় মিশা-জায়েদ কমিটি। সেই কমিটির উপদেষ্টা ছিলেন আলমগীর। মিশা-জায়েদ বারবার বলে থাকেন, ওইসব শিল্পীদের বাদ দেয়ার জন্য নায়ক আলমগীর সাহেবেরও অনুমতি ছিল। তাই তিনি স্বাক্ষর দিয়েছিলেন। তার মতো অন্যরাও স্বাক্ষর দিয়েছিলেন।

এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে আলমগীর বলেন, মিটিংয়ে উপস্থিত ছিলাম সেটা একটি কাগজে স্বাক্ষর নিয়েছিল। সেই কাগজটি বাদ শিল্পীদের লিস্টে সম্মতি দিয়ে জানিয়ে মিথ্যাচার করছে মিশা-জায়েদ। ওই স্বাক্ষরের কাগজ জোড়াতালি দিয়ে দেখানো হচ্ছে। এমন মিথ্যাচারের জন্য তাদের বিরুদ্ধে আমি ফৌজদারি মামলা করবো।

বিজ্ঞাপন

Bellow Post-Green View