চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাফল্যের ধারাবাহিকতায় আসছে ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট সিজন ৩’

‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ সিজন ১ ও ২ দিয়ে ব্যাপকভাবে আলোচিত হয়েছেন নির্মাতা কাজল আরেফিন অমি। আগের দুই সিজনের সাফল্যে ভেসে এবার ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’-এর তৃতীয় সিজন আনছেন তরুণ এ নির্মাতা।

চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে আলাপে কাজল আরেফিন অমি বলেন, দর্শক এতটাই আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করছে যে একপ্রকার চাপ অনুভব করছি। তাদের অপেক্ষা বাড়ালে হয়তো হিতে বিপরীত হতে পারে!

বিজ্ঞাপন

তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২০ আগস্টের পরে শুটিংয়ে যাচ্ছে ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ টিম। সেপ্টেম্বর থেকে টেলিভিশন ও ইউটিউবে প্রচারে আসবে বলে জানান অমি। এও জানান, মোশন রকের ব্যানারে নির্মিত হয়ে একটি বেসরকারি টিভিতে প্রচারের পরে ধ্রুব টিভির ইউটিউব চ্যানেলে প্রতি পর্ব পাওয়া যাবে।

বিজ্ঞাপন

‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’-এর প্রথম সিজনের চেয়ে দ্বিতীয় সিজন দিয়ে বেশি সাড়া পেয়েছেন কাজল আরেফিন অমি। বললেন, প্রথম সিজনে ছিল গ্রাম থেকে ঢাকায় এসে একত্রিক হওয়ার ঘটনা। ‘সিজন ২’তে ছিল বিভিন্ন কর্মকাণ্ড এবং প্রত্যেকের চরিত্রের বিস্তৃতি। এজন্য দর্শক পছন্দ করেছে।

তবে নতুন সিজনের বাড়তি চমক প্রত্যেকের এ সময়ের অবস্থা ও তাদের ভবিষ্যৎ পেশাগত জীবনে নানান সম্ভাবনা দেখানো। অমি বলেন, আগের চরিত্রগুলো ঠিকঠাক থাকলেও এবার নতুন কিছু বিষয় যোগ হবে। দেখা যাবে নতুন কয়েকজন শিল্পীকে। নাটকের বিষয় বস্তুতেও পরিবর্তন আসবে। আগের চেয়েও বেটার কিছু দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে।

তিনি বলেন, আগের দুই সিজন করে প্রত্যেক শিল্পীর মধ্যে এমন সখ্যতা গড়ে উঠেছে, যেকোনো দৃশ্যে তারা প্রত্যেকেই সেরা থাকতে চায়। একবার দৃশ্য শুরু করলে তারা থামতে চায় না। সবাইকে ব্যালেন্স করে চরিত্রগুলো এগিয়ে নিয়ে যাওয়া বেশ কঠিন। আর যখন কোনো কনটেন্ট হিট হয়ে যায় তখনই মানসিক চাপ বাড়তে থাকে। এসব কিছু মাথায় রেখে দর্শকদের পছন্দ ও প্রত্যাশা প্রাধান্য দিয়ে ‘সিজন ৩’ তৈরি করছি।

ব্যাচেলর পয়েন্ট প্রথম সিজন ৫৩ পর্বে এবং দ্বিতীয় সিজন ছিল ৫৭ পর্বে। তৃতীয় সিজন পরিচালনার পাশাপাশি চিত্রনাট্যও করছেন অমি। এবার কত পর্ব থাকবে সেটি চূড়ান্ত নয়। তবে দর্শক হতাশ হওয়ার আগেই শেষ করে দেবেন বলে জানান অমি। তার ভাষ্য, আগের দুই সিজন শতভাগ সাফল্যে পেয়েছি। মানুষ এই সিরিয়াল কি পরিমাণে ভালোবাসে সেটা বলে বোঝাতে পারবো না। তাদের নিরাশ করলে আমার নিজেরই খারাপ লাগবে। চেষ্টা করবো ১০০ তে ১০০-ই এফোর্ড দেয়ার। বাকিটা আল্লাহ ভরসা।