চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাকিব-মিরাজদের জন্য এশিয়ান স্পিন কোচ

ড্যানিয়েল ভেট্টরির সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যাওয়ায় জাতীয় দলের স্পিন কোচের পদ এখন ফাঁকা। নিউজিল্যান্ডের সাবেক বাঁহাতি স্পিনারের জায়গায় এশিয়ান কাউকে নিয়োগ দেয়ার কথা ভাবছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

সংক্ষিপ্ত তালিকায় আছেন শ্রীলঙ্কা, ভারত ও পাকিস্তানের একজন করে কোচ। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান সোমবার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, শিগগিরই কোচ নিয়োগ চূড়ান্ত হয়ে যাবে। জুলাইয়ে বাংলাদেশের জিম্বাবুয়ে সফরটি হতে পারে নতুন স্পিন কোচের প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ভেট্টরির অনুপস্থিতিতে কয়েকটি সিরিজে টাইগারদের স্পিন বিভাগ সামলেছেন স্থানীয় কোচ সোহেল ইসলাম। তাকে রাখার সুপারিশও নাকি করেছেন কয়েকজন খেলোয়াড়। সঙ্গে সম্ভাব্য স্পিন কোচের তালিকায় নাকি আছেন লঙ্কানদের সাবেক বাঁহাতি স্পিনার রঙ্গনা হেরাথ।

‘স্পিন কোচ এশিয়া থেকে আসবে তিনজন। তার মধ্যে শ্রীলঙ্কান একজন, আরেকজন ভারতের, একজন পাকিস্তানের। আমরা চেষ্টা করছি কথা বলতে এবং হয়তবা কয়েকদিনে মধ্যে তারা পৌঁছাবে। সেক্ষেত্রে আমরা দুই-তিন দিনের মধ্যে সিনিয়র ক্রিকেটারদের পরামর্শটা নেই। ওদের কথাবার্তা আমরা নিই, কোচিং স্টাফ আছে, হেড কোচ আছে, তাদের সঙ্গে আলোচনা করি, আমরাও চিন্তা ভাবনা করি।’

বিজ্ঞাপন

আকরাম জানিয়েছেন, ব্যাটিং কোচ নিয়েও সিদ্ধান্ত নেবে বিসিবি। বর্তমানে ব্যাটিং কোচের দায়িত্বে আছেন জন লুইস।

বিসিবি সূত্রে জানা গেছে জাতীয় দলের সাবেক কোচ অস্ট্রেলিয়ান জেমি সিডন্স আছেন ব্যাটিং কোচের বিবেচনায়। কোচ ইস্যুতে বোর্ডের সব মহলে আলোচনা করে কোচ নিয়োগ চূড়ান্ত করবে বিসিবি, আকরাম বললেন এমনই।

‘এর সাথে আমাদের ব্যাটিং কোচ এখনো জন লুইস আছে, ওর ব্যাপারটা অনেকে আগ্রহ দেখাচ্ছে আবার অনেকে আগ্রহ দেখাচ্ছে না। প্রথমে ওর সিদ্ধান্তটা আমরা নেব, ওকে আমরা রাখব কি রাখব না। যদি না রাখি, আমাদের দুই-তিনজন শর্ট লিস্টেড আছে। এরমধ্যে একজন আছেন যিনি আগেও বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করেছেন। এটা মনে হয় আরও তিন-চার দিন সময় লাগবে। এরমধ্যেই আমরা ফাইনাল করে ফেলবো।’

‘কোনকিছু এখনো নিশ্চিত হয়নি। পছন্দ অপছন্দের বিষয়টা খেলোয়াড়দের মধ্যে রয়ে গেছে। এখনও আমাদের কোনকিছু নিশ্চিত হয়নি। সত্যি কথা বলতে কী, স্পিন কোচের ব্যাপারে আমাদের সোহেলকেও অনেক খেলোয়াড় চাচ্ছে। তাই আমরা সবকিছু বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নেব।’