চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শ্রীলংকা গেলেন বিমান বাহিনী প্রধান

বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত সস্ত্রীক এবং দুইজন সফরসঙ্গীসহ শ্রীলংকার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন।

আজ বুধবার ছয় দিনের এক সরকারী সফরে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটি সি-১৩০জে বিমানের মাধ্যমে শ্রীলংকার উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বুধবার দুপুরে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) সহকারী পরিচালক নূর ইসলামের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়,  শ্রীলংকা বিমান বাহিনীর ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে দেশটির কমান্ডার অব দ্য এয়ার ফোর্স এয়ার মার্শাল এস কে পাথিরানার আমন্ত্রণে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান এই সফরে যান।

শ্রীলংকা সফরকালে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান শ্রীলংকা বিমান বাহিনীর ৭০ বছর পূর্তি উদ্যাপন উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন।

সফরের অংশ হিসেবে তিনি শ্রীলংকা বিমান বাহিনী ঘাঁটি কাতুনায়াকে অনুষ্ঠিত একটি পতাকা প্রদান অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে শ্রীলংকার রাষ্ট্রপতি  গোতাবায়া রাজাপক্ষ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। সেখানে বই এর মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর লেখা ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ নামক বইটি শ্রীলংকার রাষ্ট্রপতিকে উপহার দিবেন।

বিজ্ঞাপন

সফরকালে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষ সহ প্যাসিফিক এয়ার ফোর্সের অধিনায়ক জেনারেল কেনেথ এস উইলসবাচ এবং শ্রীলংকার প্রতিরক্ষা সচিব জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত ) জি.ডি.এইচ কামাল গুনারত্নের  সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ও শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

এছাড়াও, তিনি শ্রীলংকার বিমান বাহিনী সদর দপ্তরে শ্রীলংকা বিমান বাহিনী প্রধানের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করবেন এবং দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মত বিনিময় করবেন।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান শ্রীলংকা বিমান বাহিনীর ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে অনুষ্ঠিতব্য এয়ার শো প্রত্যক্ষ করবেন এবং অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের বিমান বাহিনী প্রধানদের সাথে পেশাগত বিষয়ে মত বিনিময় করবেন।

শ্রীলংকায় অবস্থানকালে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান শ্রীলংকা বিমান বাহিনী জাদুঘরসহ শ্রীলংকার গুরুত্বপূর্ণ সামরিক ও বেসামরিক স্থাপনা পরিদর্শন করবেন।

বিমান বাহিনী প্রধানের এই সফরের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও শ্রীলংকার সাথে বিদ্যমান সৌহাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক সুদৃঢ় ও পেশাগত খাতে পারস্পরিক সহযোগিতার পরিধি সম্প্রসারিত হবে।

এছাড়াও, দুই দেশের বিমান বাহিনীর মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হবে এবং শ্রীলংকায় অভ্যাগত অন্যান্য অতিথিদের সাথে বাংলাদেশ তথা বিমান বাহিনীর স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মত বিনিময় করার সুযোগ হবে।

যা বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ভবিষ্যত প্রতিরক্ষা খাতের উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা পালনে সহায়তার ক্ষেত্রে সুযোগ সৃষ্টি হবে বলে আশা করা যায়।

বিমান বাহিনী প্রধান আগামী ৮ মার্চ দেশে ফিরবেন।