চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় ব্যস্ত বরগুনার প্রার্থীরা

ভোটের মাঠে দলগুলোর একাধিক প্রার্থী থাকায় বরগুনা সদর পৌরসভায় নির্বাচনে ভোট দেওয়া নিয়ে শঙ্কায় আছেন ভোটাররা। শত কিছুর পরও নৌকা প্রতীকের জয় হবে বলে আশা আওয়ামী লীগ।

বিএনপি বলছে, স্বাধীনতার পর বরগুনাবাসীর মনে এবার ধানের শীষ। নীরব বিপ্লবের আশা অন্যান্য প্রার্থীদের। 

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বরগুনা সদর পৌরসভায় মেয়র এবং কাউন্সিলর প্রার্থীদের শেষ মুহুর্তের প্রচার-প্রচারনায় সরগরম ভোটের মাঠ। পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো বরগুনা শহর।

শহরের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ভোটারদের কাছে রাত দিন ছুটছেন মেয়র প্রার্থীরা। করছেন শুভেচ্ছা বিনিময়, চাইছেন ভোট। চলছে মনোমুগ্ধকর ভাষায় মাইকিংও। ভোটররা বলছেন, পৌরসভার সেবক হিসেবে মেয়রকে দেখতে চান তারা।

বিজ্ঞাপন

সদর পৌরসভার বর্তমান মেয়র শাহাদাত হোসেন এবার আওয়ামী লীগের টিকিট পাননি। প্রতিপক্ষ তাকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে বলে দাবি তার। তবে প্রশাসনের বিরুদ্ধে নেই তার তেমন কোনো অভিযোগ।

তবে প্রধান প্রতিপক্ষের এসব অভিযোগ মানতে নারাজ নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের মাঠ থাকা কামরুল আহসান মহারাজ।

তিনি বলছেন, কাউকে চাপ দিয়ে নয় বরং জনগণের ভালোবাসায় তিনি জয়ী হতে চাই।  পরাজয় মেনে নেওয়ার সবধরনের মানসিকতাও রয়েছে। 

আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কৃত আরেক প্রার্থী অ্যাডভোকেট শাজাহান মিয়া। যোগ্য প্রার্থীকেই মেয়র হিসেবে বেছে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। পৌরসভায় কখনো জিততে না পারলেও অভিযোগের শেষ নেই বিএনপি প্রার্থীর।

সুষ্ঠু ভোট না হওয়ার ঢালাও অভিযোগ বিএনপি’র প্রার্থী এস এম নজরুল ইসলামের। প্রায় সাড়ে ২২ হাজার পৌর ভোটারের রায়ের অপেক্ষায় এখন বরগুনার সর্বস্তরের মানুষ।