চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘শনিবার বিকেল’ মুক্তির পক্ষে জনমত গঠনে তরুণদের উদ্যোগ

ফারুকীর ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তির পক্ষে জনমত গঠনে ‘ঝিল কুটুম’ এর বিশেষ ক্যাম্পেইন…

দেশের মেধাবী নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর বহুল আলোচিত ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তির পক্ষে জনমত গঠনে বিশেষ ক্যাম্পেইন শুরু করেছে দেশের সবচেয়ে বড় সিনেমা ক্যাফে ‘ঝিল কুটুম’।

এমন উদ্যোগ প্রসঙ্গে কুটুম এক্সপ্রেসের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা এবং স্বাধীন চলচ্চিত্র নির্মাতা সিজু খান জানান, ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত ‘ঝিল কুটুম’ নিজেদের সকল অতিথীকে ‘শনিবার বিকেল’ এর অফিসিয়াল টি-শার্টটি একদম বিনামূল্যে উপহার দেবে। মূলত এরমধ্য দিয়ে ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তির পক্ষে জনমত গঠনই একমাত্র লক্ষ্য।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এই টি-শার্টের ডিজাইনে প্রদর্শিত প্রতিবাদী কনসেপ্টটি আমরা ‘শনিবার বিকেল’ এর প্রযোজক, পরিচালকের অনুমতি নিয়েই বানিয়েছি এবং শুধু এই টি-শার্টই নয় এর পাশাপাশি আমরা নূরুল আলম আতিকের ‘নতুন সিনেমা, সময়ের প্রয়োজন’ শীর্ষক একটি সিনেমার বই এবং এক মাসের নেটফ্লিক্স সাবস্ক্রিপশনও বিনামূল্যে উপহার দেবো নিজেদের সব অতিথীদেরকে।

এ বিষয়ে ফারুকী চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ‘শনিবার বিকেল’ নিয়ে কথা উঠলেই আমি বেদনাহত হয়ে পড়ি। এই ছবি মুক্তির পক্ষে ক্যাম্পেইন নিয়ে আমাকে ফোন দিলে তাদের হ্যাঁ বলেছি। টিশার্টে ছবি দিয়ে হোক, বা যেভাবেই হোক- কেউতো কথা বলছে।

বিজ্ঞাপন

গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে ঘটা সন্ত্রাসী হামলাকে উপজীব্য করে নির্মিত ‘শনিবার বিকেল’। ‘চলচ্চিত্রটি দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করতে পারে’ – এমন আশঙ্কায় গেল বছর ‘শনিবার বিকেল’ এর মুক্তি আটকে দেয় সেন্সরবোর্ড।

সেন্সর বোর্ডের এ সিদ্ধান্তের বিপরীতে গত ফেব্রুয়ারিতে আপিল করেছে চলচ্চিত্রটির অন্যতম প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। আপিলের পরও ছাড়পত্রের বিষয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি সেন্সর বোর্ড।

জাজ মাল্টিমিডিয়া, ছবিয়াল ও ট্যানডেম প্রোডাকশন প্রযোজিত ‘শনিবার বিকেল’ বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ১২টি দেশের স্বনামধন্য অভিনেতারা। যার মধ্যে আছেন ফিলিস্তিনের অভিনেতা ইয়াদ হুরানি, ইউরোপের এলি পুসো, সেলিনা ব্ল্যাক, বাংলাদেশি অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা, জাহিদ হাসান, মামুনুর রশীদ এবং ভারতের অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়।

ইতোমধ্যে ছবিটি মিউনিখ, মস্কো, সিডনি, বুসান, প্যারিসের ভেসুল ফিল্ম ফেস্টিভালসহ বিশ্বের বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত এবং প্রশংসিত হয়েছে। এরমধ্যে মস্কো চলচ্চিত্র উৎসবে অংশ নিয়ে ছবিটি দুইটি ইন্ডিপেনডেন্ট জুরি পুরস্কার অর্জন করেছে।