চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

লিটনের পর নাঈমেরও ‘কনকাশন’ বদলি নিতে হল

বাংলাদেশ-ভারতের দিবা-রাত্রির টেস্টে মাথায় বলের আঘাত পেয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন লিটন দাস। তার কনকাশন বদলি হিসেবে ব্যাটিং করেছেন মেহেদী মিরাজ। বোলিংয়ে এসে স্পিনার নাঈম হাসানের বদলিও নিতে হল মাথায় আঘাতজনিত করণে। লিটনের মতো নাঈমকেও হাসপাতালে যেতে হওয়ায় বিকল্প হয়ে বোলিং করছেন তাইজুল ইসলাম।

শুক্রবার ইডেনে বাংলাদেশ দলের দুজন খেলোয়াড় আঘাত পেয়েছেন মাথায়। প্রথমে লিটন। তার মতো নাঈমও হেলমেটে আঘাত পান, বোলার সেই একই- মোহাম্মদ সামি। এরপরও ব্যাট চালিয়ে যান নাঈম। দলকে একশ পার করে নেন। নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরার আগে করে যান মূল্যবান ১৯টি রান। পরে আর ফিল্ডিংয়ে নামেননি তরুণ অফস্পিনার। তার কনকাশন বদলি হিসেবে বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামকে নামায় বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আগে বাংলাদেশ ইনিংসের ২১তম ওভারের তৃতীয় বলে মোহাম্মদ সামির বাউন্সারে হুক খেলতে গেলে বল সরাসরি লিটনের হেলমেটে আঘাত হেনেছিল। তাতে কপালের ডানঅংশ ফুলে যায় তার। ফিজিওর সাথে মাঠেই কিছুক্ষণ সময় কাটিয়ে সেসময় ব্যাটিং চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান।

কিন্তু ২২তম ওভারে যেয়ে অস্বস্তি বোধ করায় আম্পায়ারের কাছে আবেদন করেন আহত অবসরের। লিটনের বিরতি অনুমোদন করার সাঙ্গেই প্রথম সেশনের বিরতিও ঘোষণা করেন মাঠ আম্পায়াররা। মাঠ ছেড়ে লিটনের মাথায় স্ক্যান করাতে ছুটতে হয় হাসপাতালে।

বিরতির পর জানা যায় আর ব্যাটিংয়ে নামতে পারবেন না লিটন। দ্বিতীয় সেশনে তাই ব্যাটিং করতে নেমে যান শুরুর একাদশে না থাকা মিরাজ। এ স্পিন-অলরাউন্ডার ৮ রানের অবদান রেখেছেন দলীয় ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনে। তিনি লিটনের মতো একই ধরনের খেলোয়াড় নন। লিটন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান, মিরাজ অলরাউন্ডার। তাই মিরাজ বোলিং করতে পারবেন না। তবে তাইজুল ও নাঈম দুজনেই স্পিনার হওয়ায় তাইজুলের বোলিং করতে সমস্যা নেই।

Bellow Post-Green View