চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এবার কথিত আরসা নেতা হাশিমের মরদেহ

কক্সবাজারের টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ের রোহিঙ্গা শিবির থেকে কথিত আরসা নেতা মোহাম্মদ হাশিমের মরদেহ পাওয়া গেছে। মূলত রোহিঙ্গাদের গণপিটুনিতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১০ টার দিকে বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মাহাবুবুর রহমান।

নিহত হাশিম টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনছিপ্রাংয়ের ২২ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মৃত নুরুল আমিনের ছেলে। সে কথিত আরকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা) এর সেকেন্ড ইন কমান্ড ছিলেন বলে ক্যাম্পের সাধারণ রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

তবে আরসার কোনো অস্তিত্ব বাংলাদেশে নেই বলে প্রশাসন দাবি করে আসছে।

আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানিয়েছে, আরসার নাম ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে ক্যাম্পে ত্রাস সৃষ্টি করে আসছিল হাশিম। সে সম্প্রতি রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ড ও মাদ্রাসায় হামলা চালিয়ে ৬ জন হত্যার অন্যতম হুকুমদাতা। ক্যাম্পে অঘোষিত নিয়ন্ত্রণ চালায় হাশিম। এমনকি যারা তার সঙ্গে চলেন তাদের পর্যন্ত বিভিন্নভাবে নির্যাতন চালায় সে। এসব ঘটনার কারণে সাধারণ রোহিঙ্গারা তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিল। তাকে একা পেয়ে হয়তো গণপিটুনি দেয়া হয়েছে, এতে তার মৃত্যু হতে পারে।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, ক্যাম্পেও প্রশাসনের লোক আছে। প্রয়োজনে ফাঁড়ি থেকে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসবে।

বিজ্ঞাপন