চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রেফারি হলুদ কার্ড বাড়িয়ে দিলেন, তবে অটোগ্রাফ নিতে

খেলোয়াড়টি তখনও ড্রেসিংরুমে ফেরেননি। ম্যাচ যদিও শেষ। রেফারি পকেট থেকে হলুদ কার্ডটা বের করে এগিয়ে দিলেন। ফুটবলারটির বুক ধক করেই ওঠার কথা! টানেলে বাজে আচরণের জন্যও তো কার্ড-নিষেধাজ্ঞা মেলে। তবে আর্লিং হাল্যান্ডের দিকে কোনো সতর্কবার্তার জন্য কার্ড বাড়িয়ে দেননি রেফারি, বেচারা ম্যাচ পরিচালক কেবল একটা অটোগ্রাফের ইচ্ছে সামাল দিতে পারেননি।

ঘটনা মঙ্গলবার রাতের। ইতিহাদ স্টেডিয়ামে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টারের প্রথম লেগে ম্যানসিটির কাছে ২-১ গোলে হেরে বসেছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। ক্লাবটির ভরসা হয়ে ওঠা স্ট্রাইকার হাল্যান্ড অবশ্য গোল এনে দিতে পারেননি। ফল, ভুগেছে ডর্টমুন্ড।

বিজ্ঞাপন

হারা ম্যাচ শেষে ড্রেসিংরুমে ফিরছিলেন হাল্যান্ড। টানেলের মুখে তার দিকে এগিয়ে যান রোমানিয়ান এক সহকারী রেফারি, পকেট থেকে হলুদ কার্ড বের করে এগিয়ে দেন, নরওয়ে তারকাকে অনুরোধ করেন অটোগ্রাফের জন্য।

বিজ্ঞাপন

সময়ের অন্যতম আলোচিত ফুটবলার ২০ বয়সী হাল্যান্ড অবশ্য হতাশ করেননি। সই করে দেন হলুদ কার্ডেই। সেই ভিডিও এখন ভাইরাল! জায়গা করে নিয়েছে খবরের শিরোনামেও।

মেসি-রোনালদোর পর নেইমার-এমবাপে নেবেন মহাতারকাদ্বয়ের জায়গা। কয়েকবছর ধরে সেই আলোচনার মাঝে ভালোভাবেই ঢুকে পড়েছে হাল্যান্ডের নাম। এমনকি নেইমার-এমবাপেকে ছাড়িয়ে রোনালদো-মেসিকেও টপকে যেতে পারেন নরওয়েজিয়ান গোলমেশিন, এমন আলোচনাও চলছে।

তাইতো ম্যানসিটি থেকে ম্যানইউ, বার্সা থেকে রিয়াল, বরুশিয়ার লিগ প্রতিপক্ষ বায়ার্ন, কে নেই হাল্যান্ডকে আসছে মৌসুমে দলে পাওয়ার দৌড়ে। অর্থের ঝনঝনানি নিয়ে ইউরোপের জায়ান্ট ক্লাবগুলো তার পেছনে ছুটছে, রোজ শিরোনামে উঠে আসছে সেসব। এমন একজন তারকার অটোগ্রাফের সাধ শুধু রেফারি কেনো, কেইবা সামলাতে পারে!

যদিও উয়েফার নিয়মের বেড়াজালে আছে একজন রেফারি কোনো অবস্থাতেই একজন খেলোয়াড়ের কাছে অটোগ্রাফ চাইতে পারবেন না। ম্যানসিটি কোচ পেপ গার্দিওলা আবার বলে দিয়েছেন তার দিক থেকে কোনো সমস্যা নেই রেফারির এমন চাওয়ায়। এখন উয়েফা বেঁকে না বসলেই হয়।