চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রিফাতকে কোপানো রিফাত ফরাজি গ্রেপ্তার

বরগুনায় প্রকাশ্য দিবালোকে রিফাত শরীফকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যার আরেক হোতা রিফাত ফরাজিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার সকালে তার গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বরগুনা জেলা পুলিশ। তবে কখন বা কোথা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে সে সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।

বিজ্ঞাপন

চাঞ্চল্যকর ওই হত্যার  মামলায় এখন পর্যন্ত এজাহারভুক্ত ৫ জন এবং জড়িত সন্দেহে আরো ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রিফাত ফরাজি ছাড়াও গ্রেপ্তারদের মধ্যে রয়েছে; বরগুনা পৌর শহরের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের অরুণ চন্দ্র সরকারের ছেলে চন্দন, কলেজ রোড এলাকার আয়নাল হকের ছেলে হাসান, ওলি ও টিকটক হৃদয়।

জড়িত সন্দেহে আটকদের মধ্যে রয়েছে; বরগুনা সদর উপজেলার পোটকাখালি গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে মো. নাজমুল হাসান (১৮), বরগুনা পৌরসভার ধানসিঁড়ি সড়কের নয়া মিয়ার ছেলে তানভীর (২২), সদর উপজেলার নলী মাইঠা গ্রামের আ. লতিফ খানের ছেলে মো. সাগর (১৯) এবং হাজারবিঘা গ্রামের কায়সার মিয়ার ছেলে কামরুল হাসান সাইমুন (২১) ও শ্রাবণ।

বিজ্ঞাপন

এই মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড মঙ্গলবার ভোরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়।

গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের মূল ফটকের পাশে রিফাতকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে কয়েকজন যুবক। সেসময় নানাভাবে নিজেকে রক্ষার চেষ্টা করেও বাঁচতে পারেনি রিফাত।

হামলায় গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রিফাতকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

নিহত রিফাত বরগুনা সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের মাইঠা-লবণগোলা এলাকার দুলাল শরীফের ছেলে।

ওই ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেখানে দেখা যায় কয়েকজন যুবক রিফাতকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে একের পর আঘাত করছে। আর তাদের হাত থেকে স্বামীকে রক্ষার চেষ্টা করছেন রিফাতের স্ত্রী। তিনি চিৎকার করে সাহায্য চাচ্ছেন। কিন্তু কাউকে তাদেরকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসতে দেখা যায়নি।

রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় ১২ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে আসামি করে তার বাবা বাদি হয়ে মামলা করেন।

Bellow Post-Green View