চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মৃত আর্চির ঘরে ফেরা!

যে কোনো উৎসবেই প্রিয়জনরা পাশে থাকা চাই। পরিবারের সবাই একসঙ্গে উৎসব পালন করতে না পারলে আনন্দটাই ম্লান হয়ে যায়। আর যদি পরিবারের কেউ নিখোঁজ থাকে বা হারিয়ে যায়, তাহলে সেই পরিবারে কোনো উৎসব হয় না। প্রিয় মানুষটির কথা যেন আরও বেশী মনে পড়ে।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পরের ঘটনা। ১৯১৭ সাল। কদিন পরেই বড়দিন। আর্চি ক্লিকম্যান যুদ্ধে নিখোঁজ। পরিবারের সবাই ধরে নিয়েছে সে মৃত। মন খারাপ সবার। তাই পরিবারটি বড়দিন পালন করবে না সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে।

Advertisement

দক্ষিণ ডাকোটার পার্কার শহরে একটা কথা প্রচলিত ছিল আর তা ছিল মেইল ট্রেন যখন আসে, তখন ছোট শহরের পোস্ট মাস্টার নাকি সব পোস্ট কার্ড পড়েন। এবারও তার ব্যতিক্রম হলো না। পোস্ট কার্ড পৌঁছে দেয়ার আগেই পড়ে ফেলার বদনাম থাকলেও এই অভ্যাসের সুফল পেলো আর্চির পরিবার।

বড়দিনের আগের দিন আর্চির বাড়িতে ফোন দিলেন পোস্ট মাস্টার। ফোন দিয়ে জানালেন যে আর্চি বেঁচে আছেন। তিনি পোস্ট কার্ড পাঠিয়েছেন এবং নিজেই সেখানে লিখেছেন যে তিনি ভালো আছেন। তবে তিনি যুদ্ধ বন্দী। মুক্তি পেলেই ফিরে আসবেন। পোস্ট মাস্টার আর্চির বার্তাটি ফোনে জানিয়ে দিয়েছেন কারণ পোস্ট কার্ডটি বড়দিনের ছুটিতে তিনি দিতে পারবেন না। ছুটি শেষ হলে দিতে হবে। কিন্তু ততদিনে এই পরিবারের বড়দিনের উৎসব মাটি হয়ে যাবে। সেটা হতে দেননি তিনি। সেই বড়দিনটি ছিল আর্চির পরিবারের সেরা বড়দিন।

এর বেশ কিছুদিন পরে ফিরে এসেছিলেন আর্চি। এরপর বেঁচে ছিলেন আরও বহু বছর। -রিডার্স ডাইজেস্ট