চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মিলনারকে ‘গাধা’ বলে আগুন জ্বালিয়েছিলেন মেসি!

বার্সেলোনার কাছে প্রথম লেগে ৩-০ গোলে হেরেও ফিরতি পর্বে ৪-০ ব্যবধানে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে গেছে লিভারপুল। সেই ম্যাচ নিয়ে শুরুতে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা হলেও সেটা অনেকখানি কমে এসেছে। নিভে আসা সেই আগুন আবারও জ্বালিয়ে দিলেন জেমস মিলনার। লিভারপুল ডিফেন্ডারের অভিযোগ, প্রথম লেগে তাকে গাধা বলে গালি দিয়েছিলেন বার্সা অধিনায়ক লিওনেল মেসি!

সেমিফাইনালে মেসিকে আটকে রাখার দায়িত্বটা ছিল জেমস মিলনারের কাঁধে। প্রথম লেগে ব্যর্থ হলেও ফিরতি লেগে বার্সা অধিনায়ককে একদম বোতলবন্ধী করে রাখেন ইংলিশ ডিফেন্ডার। ম্যানচেস্টার সিটিতে থাকতেও মেসির সঙ্গে মাঠের লড়াইয়ের অভিজ্ঞতা ছিল মিলনারের।

বিজ্ঞাপন

পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকায় মেসিকে ভদ্র খেলোয়াড়ই জেনে এসেছেন মিলনার। কিন্তু প্রথম লেগে মেসির আচরণ দেখে বেশ মর্মাহত হয়েছিলেন বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানালেন।

‘তাকে (মেসি) দেখে মোটেও হাসিখুশি মনে হচ্ছিল না। প্রথমার্ধ শেষে টানেল দিয়ে যাওয়ার সময় ও আমাকে স্প্যানিশ ভাষায় অনেক গালি দিয়েছে। তার একটি হল- বুররো।’

বিজ্ঞাপন

‘স্প্যানিশ ভাষায় এর অর্থ দাঁড়ায় গাধা। কাউকে লাথি মারতে চাইলেও এই শব্দটি ব্যবহার করা হয়।’

‘মেসি মনে করেছিল আমি স্প্যানিশ ভাষা বুঝি না। আমি তাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, তুমি তো ঠিকই আছো। কেন একথা বলছো?’

‘সে বললো- তুমি আমাকে ফাউল করেছ, কারণ আমি তোমাকে নাটমেগড করেছি। একথা শোনার পর কথা না বাড়িয়ে আমি ড্রেসিংরুমে চলে যাই।’

‘আমি মেসিকে শ্রদ্ধা করি। সে যা খুশি বলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। তাকে আটকাতে হলে আপনাকে সাহসী হতে হবে। বোকামি করে দাঁড়িয়ে থাকলে হবে না। আমি সেটাই করেছি। সে আমাকে নাটমেগড করেছে। পুরো বিশ্ব সেটা দেখেছে।’

‘তবে এসব খেলোয়াড়কে বুঝিয়ে দিতে হবে যে আপনার মতো খেলোয়াড়ও আছে। তারা যা কিছু করতে পারে না!’