চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভারতের প্রতিটি দল বাংলাদেশের বিষয়ে ঐক্যবদ্ধ: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন: ভারত আমাদের সব সময়কার বন্ধু। আমাদের সুখে-দুঃখে ভারত পাশে থাকে। ভারতের প্রতিটি দল একটি জায়গায় ঐক্যবদ্ধ। সেটি হলো- বাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক।

তিনি বলেন: এছাড়াও ভারত আমাদের শুধু নিকটতম প্রতিবেশী বন্ধু রাষ্ট্র নয়, ভারতের সাথে আমাদের রয়েছে ঐতিহাসিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ভৌগলিক সেতুবন্ধন। মহান মুুক্তিযুদ্ধে আমাদের প্রতি তাদের সমর্থন, সর্বক্ষেত্রে সহযোগিতা কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শেষ করা যাবে না। আমরা সব সময় ভারত সরকার ও ভারতের জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের সমাপনী দিনে সভাপতির বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রী বলেন: আসুন আমরা প্রতিজ্ঞা করি, সকল ভেদাভেদ ভুলে জনগণের উন্নয়নের জন্য কাজ করবো। আমরা বঙ্গবন্ধুর নীতিতেই এগিয়ে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর পররাষ্ট্রনীতি ছিল ‘সবার সাথে বন্ধুত্ব, কারও সাথে বৈরিতা নয়’। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এই পররাষ্ট্রনীতি নিয়েই বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে ও এগিয়ে যাবে।

শেখ হাসিনা বলেন: ভারতের সাথে আমাদের বর্তমান সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় উন্নীত হয়েছে। প্রতিবেশীদের সাথে ভারতীয় প্রধামন্ত্রীর সৌহার্দ্যপূর্ণ অবস্থান প্রশংনীয়। তিনি মহামারীতে প্রতিবেশীদের কাছে করোনা টিকা পাঠিয়ে মহত্বের পরিচয় দিয়েছেন। বাংলাদেশকে করোনা টিকা উপহার দিয়েছেন।  বাংলাদেশকে ১০৯টি অ্যাম্বুলেন্স উপহার দিয়েছেন। নরেন্দ্র মোদির এই আন্তরিক অবস্থান প্রতিবেশীদের সঙ্গে সম্পর্ককে আরও সুদৃঢ় করবে।

এসময় শেখ হাসিনা মহান মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদ এবং ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধু সহ সকল শহীদকে স্মরণ করে বলেন: বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে এ দেশকে আদর্শহীন করার চেষ্টা করা হয়েছিল। আদর্শহীন কোনো জাতি কখনও কিছু অর্জন করতে পারে না।  বাংলাদেশ ২১ বছর মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী, স্বাধীনতা বিরোধীরা নেতৃত্ব দিয়েছে।  আমরা ক্ষমতায় এসে পুনরায় মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের  ফিরে এসেছি।  বাংলাদেশ এখন এগিয়ে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে।