চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ব্র্যাড পিটের কী আছে?

ফোর্বসের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক নেয়া তারকাদের তালিকায় ব্র্যাড পিটের নাম সবসময়েই থাকে। তাই ভক্তদের মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে, ব্র্যাড পিট এত অর্থ দিয়ে কী করেন, তার সম্পদের পরিমাণই বা কত।

জানা গেছে, ব্র্যাড পিটের মোট সম্পদের পরিমাণ বর্তমানে ৩০০ মিলিয়ন ডলার। এক নজরে জেনে নিন ব্র্যাড পিটের বিলাসী জীবন সম্পর্কে।

বিজ্ঞাপন

ড্রিম ফ্যামিলি প্রমোদতরী (৭.৬ মিলিয়ন): অ্যাঞ্জেলিনা জোলির সঙ্গে ব্র্যাড পিট কিনেছিলেন ৭.৬ মিলিয়ন ডলারের প্রমোদতরী। কেনার পরে মনের মতো করে প্রমোদতরী সাজিয়ে নিতে খরচ করেছিলেন আরও ২ লাখ ডলার।

জোলি-পিট ফাউন্ডেশন (৪১.১ মিলিয়ন): ব্র্যাঞ্জেলিনা প্রতিষ্ঠা করেছিলেন জোলি-পিট ফাউন্ডেশন। ২০০৬ থে

কে ২০১৬ পর্যন্ত এই ফাউন্ডেশনের আয় হয়েছিল ৪১.৪ মিলিয়ন ডলার। পুরো অর্থটাই দান করে দিয়েছিলেন তারা।

ইতালির ভিলা (৪১ মিলিয়ন): ব্র্যাড পিট এবং জোলি ইতালিতে একটি বিলাসবহুল ভিলা কিনেছিলেন ৪১ মিলিয়ন ডলার খরচ করে। ১৮ হাজার বর্গফুটের সেই বাড়িতে হোম থিয়েটার এবং সুইমিংপুল আছে।

ফ্রান্সের চাতিউ মিরাভাল ক্যাসেল (৩৫ মিলিয়ন): ২০০৮ সালে দক্ষিণ ফ্রান্সের চাতিউ মিরাভালে ব্র্যাড-জোলি একটি প্রাসাদসম বাড়ি কিনেছেন ৩৫ মিলিয়ন ডলার দিয়ে। এই বাড়িতেই তাদের বিয়ে হয়েছে ২০১৪ সালে।

পশ্চিম লন্ডনের বাড়ি (১৬.১৮ মিলিয়ন): ‘ওয়ার্ল্ড ওয়ার জি’ ছবির শুটিং এর সময় ব্র্যাড পিট ও জোলি পশ্চিম লন্ডনের একটি সুন্দর বাড়ি ভাড়া নেন। সেই বাড়িটি তাদের এতটাই পছন্দ হয়ে যায় যে সেটি কিনে ফেলেন।

ক্যালিফোর্নিয়ার ভৌতিক বাড়ি (১.৭ মিলিয়ন): ১৯৯৪ সালে ১.৭ মিলিয়ন ডলার খরচ করে একটি ভৌতিক বাড়ি কিনে ফেলেন ব্র্যাড পিট। বাড়িটি এর আগে অভিনেত্রী ক্যাসান্দ্রা পিটারসনের ছিল।

বিএমডাব্লিউ হাইড্রোজেন সেভেন (১১ লক্ষ ৮ হাজার ডলার): ২০০৭ ব্র্যাড পিট এই গাড়িটি কিনেছিলেন। বিভিন্ন প্রিমিয়ার শোতে প্রবেশের সময় ব্র্যাঞ্জেলিনাকে এই গাড়িতে দেখা গেছে কয়েকবার। কইমই