চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ব্রিসবেনে সব রোমাঞ্চ তোলা থাকল শেষদিনের জন্য

ব্রিসবেন টেস্টের সব রোমাঞ্চ যেন শেষদিনের জন্য জমা থাকল। অস্ট্রেলিয়াকে দ্বিতীয় ইনিংসে অলআউট করে দিয়ে যখন ব্যাটে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছিল ভারত, বিরূপ আবহাওয়া খেলা থামিয়ে রাখে অনেকক্ষণ। পরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১১ বল খেলতেই দিনের লড়াইয়ে শেষ টানেন আম্পায়ার।

তার আগে টেস্টের শেষদিনে রোমাঞ্চ ছড়ানোর সব ক্ষেত্রই প্রস্তুত হয়ে গেছে। সিরিজে ১-১এ সমতা নিয়ে নেমেছে দুদল। সোমবার সিরিজের চতুর্থ, তথা শেষ টেস্টের চতুর্থ দিনে ভারতের সামনে ৩২৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জবাব দিতে নেমে সফরকারীদের দুই ওপেনার শুভম গিল রানের খাতা খোলার আগেই দিনের খেলা শেষ। আরেক ওপেনার রোহিত শর্মা নামের পাশে ৪ রান নিয়ে শেষদিনের লড়াইয়ে নামবেন।

জিততে ভারতের দরকার আরও ৩২৪ রান। বিপরীতে অস্ট্রেলিয়ার চাই ১০ উইকেট। যেমন জয়ের সম্ভাবনা আছে দুদলেরই, সম্ভাবনা আছে সবকটি সম্ভাব্য ফলেরও।

প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকরা অলআউট হয়েছিল ৩৬৯ রানে। জবাব দিতে নেমে লেজের দিকের ব্যাটসম্যানদের প্রতিরোধে অলআউট হওয়ার আগে প্রথম ইনিংসে ৩৩৬ রান তোলে ভারত।

প্রথম ইনিংস থেকে ৩৩ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে অজিরা। রোববার দিনের শেষ ঘণ্টায় নেমে লিড বাড়িয়ে ৫৪ করে। দ্বিতীয় ইনিংসে কোনো উইকেট না হারিয়ে ২১ রানে চতুর্থ দিন শুরু করে তারা অলআউট হয়েছে ২৯৪ রানে।

বিজ্ঞাপন

ডেভিড ওয়ার্নার ২০ রানে ক্রিজে এসে ৪৮ রানে থেমেছেন ওয়াশিংটনের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে। আরেক ওপেনার মার্কাস হ্যারিস গেছেন ৩৮ পর্যন্ত। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মার্নাস লাবুশেন এদিন দ্রুত রান তুলতে যেয়ে ৫ চারে ২২ বলে ২৫ করে সাজঘরে হাঁটা দেন।

পরপর ম্যাথু ওয়েড রানের খাতা খোলার আগেই ফিরলে হাল ধরেন স্টিভেন স্মিথ ও ক্যামেরন গ্রিন। স্মিথ ৭৪ বলে ৫৫ রান করে আউট হন সিরাজের বলে রাহানেকে ক্যাচ দিয়ে।

গ্রিন ধীরে ব্যাট করেছেন। ৩৭ রানের অবদান তার। শেষদিকে ঝটপট ৩৭ বলে ২৭ রান এনে দিয়েছেন অধিনায়ক টিম পেইন। ১০ বলে ১৩ করেছেন নাথান লায়ন। প্যাট কামিন্স অপরাজিত থাকেন ২ চার ও এক ছয়ে ২৮ রানে।

অজিদের রানের লাগাম টেনে ধরতে সেরাটা দিয়েছেন মোহাম্মদ সিরাজ, ২৬ বছর বয়সী ডানহাতি মিডিয়াম পেসার তৃতীয় টেস্টে নেমে করেছেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। ১৯.৫ ওভার বল করে ৭৩ রানে ৫ উইকেট নিয়েছেন। প্রথমবার পাঁচ উইকেট শিকার তার।

আরেক মিডিয়াম পেসার শার্দূল ঠাকুরও ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করেছেন। ২৯ বছর বয়সী ডানহাতি মাত্র দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নেমে ১৯ ওভারে ৬১ রানে ৪ উইকেট নামের পাশে জমিয়েছেন। অন্য উইকেটটি অফস্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দরের।

চতুর্থ দিনে ১৮৬ রানে ষষ্ঠ উইকেট পড়ে গেলে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের দীর্ঘ বিষাদে ডুবিয়েছিলেন এই শার্দূল ঠাকুর ও ওয়াশিংটন সুন্দরই। ভারতের সপ্তম উইকেট জুটিতে দুজনে শতরান পেরনো অবদান রাখেন।

স্বীকৃত ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা মুছে দেন শার্দূল ও ওয়াশিংটন। দুজনে সপ্তম উইকেটে ১২৩ রান যোগ করেন, একত্রে ব্যাট করে যান ৩৬ ওভার। প্যাট কামিন্সের বলে ৬৭ করে শার্দূলের বিদায়ে ভাঙে জুটি। টেস্ট প্রথম ফিফটি তার। অন্যদিকে অভিষিক্ত ওয়াশিংটনের অবদান ছিল ৬২। ২১ বছর বয়সী বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ও ডানহাতি অফব্রেক বোলারেরও যেটি প্রথম ফিফটি।