চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাবা যখন তারকা

পর্দায় তারা কখনো নায়ক আবার কখনও স্নেহশীল বাবা। লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের জগত ছেড়ে দিন শেষে যখন ক্লান্ত দেহে বাড়ি ফেরেন, তখন তারা বাস্তব জীবনের বাবা। সন্তানকে ঘিরেই থাকে সেই সময়টা। পর্দার ব্যস্ত তারকারা বাস্তবের বাবা হিসেবে কেমন?

বাবা হিসেবে জিশু সেনগুপ্ত খুবই যত্নশীল, এমনটাই বললেন জিশুর স্ত্রী। যখন প্রথম সন্তান সারা জন্ম নেয়, তখন শত ব্যস্ততার মাঝেও স্ত্রীকে সাহায্য করতেন তিনি। আর দ্বিতীয় সন্তান জারার জন্মের পরে কিছুদিনের ছুটি নিয়ে সবকিছু সামলেছেন জিশু। মেয়েদের সঙ্গে তার সখ্যও খুব ভালো। মেয়েরাও বাবাকে খুব সম্মান করে।

বিজ্ঞাপন

পর্দার তুখোড় অভিনেতা আবীর চট্টোপাধ্যায় বাবা হিসেবেও একশতে একশো। মেয়ে ময়ূরাক্ষী যখন জন্ম নেয় তখন শুধু স্ত্রীকে একটিই অনুরোধ করেছিলেন। তার অনুরোধ ছিল, মেয়ের ডায়পার বদলানো ছাড়া বাকি সব কাজ করতে রাজি আছেন। কথা রেখেছিলেন আবির। মেয়েকে ঘুম পাড়ানো, খাওয়ানো সবই করেছিলেন। এমনকি পাঁচ মাস পরে ডায়াপার বদলানোও শিখে ফেলেছিলেন। আবির জানান, মেয়ের জন্মের সময় অপারেশন থিয়েটারেও ছিলেন তিনি। তখন থেকে সবসময়ে শত ব্যস্ততার মাঝেও সন্তানের পাশে থাকার চেষ্টা করেন তিনি।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বাবা হিসেবে কেমন, তা জিজ্ঞেস করা হয়েছিল মেয়ে পৌলমী বসুকে। পৌলমী বলেন, বাবা তার সব ব্যাপারে খেয়াল রাখেন, এমনকি কাঁদলেও দুঃখ ভুলিয়ে দেন। যখন তিনি স্কুলের ক্লাস ওয়ান বা টুতে পড়তেন, তখন বাবা স্কুল থেকে আনতে যেতেন। মায়ের থেকে লুকিয়ে কোল্ড ড্রিংক্স খাওয়াতেন। বাড়িতে মা না থাকলে সকালের নাস্তাও বানিয়ে দিতেন। পড়াশোনাতেও সাহায্য করতেন। টাইমস অব ইন্ডিয়া